Prashant Kishor: বিজেপির আসন সংখ্যা নিয়ে এখনও অনড় প্রশান্ত কিশোর, নয়া কাজিয়ায় সরগরম ভোটচতুর্থী

Prashant Kishor: বিজেপির আসন সংখ্যা নিয়ে এখনও অনড় প্রশান্ত কিশোর, নয়া কাজিয়ায় সরগরম ভোটচতুর্থী

নতুন বিতর্কে প্রশান্তকিশোর।

প্রশান্তকিশোর বলছেন, আগের মন্ত্বব্যেই স্থির থাকছি। বিজেপি কোনও ভাবেই বাংলায় ১০০ পেরোবে না।

  • Share this:

    #কলকাতা:  এখনও তাঁর ট্যুইটার পিন টু টপ পোস্ট -বিজেপি ১০০-র গণ্ডী পেরোতে পারবে না। এরই মধ্যে নতুন অডিও ক্লিপ নিয়ে সামনে এসেছে বিজেপি, যেখানে মোদির গুরুত্বের কথা বলছেন প্রশান্ত কিশোর (Prashant Kishor)। কথা বলছেন মেরুকরণ নিয়েও। এই আবহে মাথা ঠাণ্ডাই রাখছেন প্রশান্তকিশোর, বলছেন, "আগের মন্তব্যেই স্থির থাকছি। বিজেপি কোনও ভাবেই বাংলায় ১০০ পেরোবে না।"

    প্রশান্ত কিশোর এদিন ANI-কে বলেন, "বিজেপি যে আমার ক্লাবহাউজ চ্যাটকে তাদের নেতাদের কথার থেকেও বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে এই কারণে আমি খুশি। তবে তাদের পুরো চ্যাটটা সামনে আনা উচিত। পাশাপাশি বিজেপির জন্য বরাদ্দ আসন সংখ্যা  ঠিক আগের মতোই ১০০তেই বেঁধে দিচ্ছেন তিনি।"

    কিন্তু বিতর্কটা ঠিক কী নিয়ে? অমিত মালব্যর ফাঁস করা একটি ক্লাব হাউজ চ্যাটে দাবি করা হচ্ছে, প্রশান্ত কিশোর বলেছেন, বাংলা‌য় বাম-কংগ্রেস-তৃণমূল সব দলই তোষণের রাজনীতি করেছ। পাশাপাশি এও দাবি করা হচ্ছে, এই নির্বাচনে তফশিলি ভোট একটা গুরুত্বপূর্ণ ফ্যাক্টর। নরেন্দ্র মোদির গুরুত্ব নিয়েও আলোচনা করা হয়েছে ওই ক্লাবহাউজ চ্যাটে। অমিত মালব্যের শেয়ার করা ওই অডিওর সত্যাসত্য খতিয়ে দেখেনি নিউজ১৮ বাংলা।

    প্রশান্ত কিশোর নিজে এই আংশিক কথোপকথনের পরিবর্তে গোটা কথাবার্তা সামনে আনার কথা বলছেন। এই সময়েই বিজেপি নেতারা নেমে পড়েছেন তাঁকে আক্রমণের পথে। বিজেপি নেত্রী লকেট চট্টোপাধ্যায় বলছেন, প্রশান্ত কিশোর জানেন সোনার বাংলা হবে, তবু তিনি তৃণমূলের সহযোগী। বিজেপি নেতা রাজীব বন্দ্য়োপাধ্যায়ের যুক্তি, প্রশান্ত কিশোরের স্ট্র্যাটেজি এই বাংলায় খাটবে না। নরেন্দ্র মোদির স্ট্র্যাটেজিই জনতার রায় আদায় করবে।

    এই বাদানুবাদেই চতুর্থ দফা নির্বাচনের আগে নতুন করে উত্তপ্ত রাজ্যরাজনীতি। ব্যাপ্তিতে আগের তিন দফার থেকে অনেকটাই বড় এই দফা। ভোট হচ্ছে পাঁচ দলেরা ৪৪টি কেন্দ্রে। প্রার্থীদের মধ্যে রয়েছেন বহু হেভিওয়েট। সদ্য বিজেপিতে যোগ দেওয়া রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়, বৈশালী ডালমিয়া, রথীন চক্রবর্তী, কাঞ্চন মল্লিকদের ভাগ্যে কী লেখা রয়েছে, কেমন ফল করেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়, রত্না চট্টোপাধ্যায়, ইন্দ্রনীল সেনরা জানতে মরিয়া সাধারণ মানুষ। অন্য দিকে উত্তরবঙ্গের দিনহাটায় লড়াই করা জন্য বিজেপি নিশীথ প্রামাণিকের মতো সাংসদকে নামিয়ে এনেছে। ওই আসনের দিকেও তাকিয়ে থাকবে সাধারণ মানুষ।  ভোটের ফল কী হবে সময় বলবে।

    Published by:Arka Deb
    First published: