Kolkata ATM Fraud: এবার বউবাজারের এটিএম থেকে খোয়া গেল ২৫ লক্ষ, প্রতারণার পিছনে ফরিদাবাদ গ্যাং?

প্রতীকী ছবি

ফরিদাবাদেও একই কায়দায় এটিএম প্রতারণার (ATM Fraud) ঘটনা ঘটেছিল৷ সেই কারণেই পুলিশের অনুমান, কলকাতার এই এটিএম প্রতারণা চক্রের সঙ্গেও ফরিদাবাদের ওই গ্যাং-টিই যুক্ত রয়েছে৷

  • Share this:

#কলকাতা:  অক্ষত এটিএম৷ কিন্তু উধাও মেশিনের ভিতরে থাকা লক্ষ লক্ষ টাকা৷ কাশীপুর, নিউ মার্কেট এবং যাদবপুরের পর এবার বউবাজারের একটি এটিএম থেকে প্রায় একই কায়দায় খোয়া গেল ২৫ লক্ষ টাকারও বেশি৷ ঘটনার তদন্তে নেমেছে বউবাজার থানার পুলিশ৷ প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের অনুমান, বউবাজারের এটিএম থেকে টাকা চুরির ঘটনাতেও জড়িয়ে রয়েছে একই প্রতারক চক্র৷ এটিএম জালিয়াতির এই ঘটনার পিছনে ফরিদাবাদের একটি গ্যাং রয়েছে বলেই প্রাথমিক অনুমান পুুলিশের৷ কলকাতার জালিয়াতদের সঙ্গে হাত মিলিয়েই তারা এই প্রতারণা চালাচ্ছে বলে অনুমান তদন্তকারীদের৷

গত ১৪ থেকে ২২ মে-র মধ্যে কাশীপুরের একটি এটিএম থেকে ৭ লক্ষ টাকা, যাদবপুরের একটি এটিএম থেকে ১৩ লক্ষ ৮০ হাজার টাকা এবং নিউ মার্কেটের একটি এটিএম থেকে ১৮ লক্ষ ৮০ হাজার টাকা খোয়া যায়৷ এই ঘটনা নিয়ে পুলিশ তদন্ত শুরু করার পর পরই সামনে এল বউবাজারের এটিএম থেকে টাকা চুরি যাওয়ার খবর৷ জানা গিয়েছে, বউবাজারের একটি বেসরকারি ব্যাঙ্কের এটিএম থেকেও গত ১৪ মে ২৫ লক্ষ ২০ হাজার টাকা খোয়া গিয়েছে৷ গত ২৯ মে পুলিশে অভিযোগ দায়ের করা হয় ব্যাঙ্কের তরফে৷ তদন্তে নেমে সিসিটিভি ফুটেজে পুলিশ দেখেছে, একসঙ্গে তিন প্রতারক ওই এটিএম-এ ঢুকেছিল৷ তাদের প্রত্যেকের মুখেই মাস্ক ছিল৷

যেভাবে অত্যাধুনিক ডিভাইসের সাহায্যে আগের তিনটি এটিএম থেকে টাকা বের করে নেওয়া হয়েছিল, এক্ষেত্রেও একই পদ্ধতি অবলম্বন করা হয়েছে বলে মনে করছে পুলিশ৷ প্রতিটি ক্ষেত্রেই এক থেকে দেড় ঘণ্টা ধরে অপারেশন চালানো হয়েছে৷ কাশীপুরে মোট ৩৫টি ট্রানজ্যাকশন চালায় প্রতারকরা৷ নিউ মার্কেটের এটিএম-এ ৯০টি লেনদেন করা হয় আর বউবাজারে ১৩ থেকে ১৪ বারের ট্রানজ্যাকশন করে এই বিপুল টাকা তুলে নেওয়া হয়েছে৷ খতিয়ে দেখা হচ্ছে এটিএম-গুলির সিসিটিভি ফুটেজ৷ আশেপাশের কারও যাতে সন্দেহ না হয়, তা নিশ্চিত করতে টাকা বের করে নেওয়ার আগে বার বার এটিএম-র বাইরে বেরিয়ে আসছিল প্রতারকরা৷

ফরিদাবাদেও একই কায়দায় এটিএম প্রতারণার ঘটনা ঘটেছিল৷ সেই কারণেই পুলিশের অনুমান, কলকাতার এই এটিএম প্রতারণা চক্রের সঙ্গেও ফরিদাবাদের ওই গ্যাং-টিই যুক্ত রয়েছে৷ একই সঙ্গে তদন্তকারীদের সন্দেহ, যে ব্যাঙ্কগুলির এটিএম-এ চুরি ঘটনা ঘটছে তাদের বা এটিএম রক্ষণাবেক্ষণে যুক্ত সংস্থাগুলির এক বা একাধিক কর্মীও এর সঙ্গে যুক্ত থাকতে পারে৷ সেই কারণেই গত পাঁচ বছরে এই ব্যাঙ্কগুলি এবং রক্ষণাবেক্ষণের সঙ্গে যুক্ত সংস্থাগুলিরতে কারা চাকরিতে ঢুকেছেন এবং ছেড়েছেন, সেই তালিকা চেয়ে পাঠিয়েছে পুলিশ৷ সূত্রের খবর, ফরিদাবাদের ওই প্রতারণা চক্রের সঙ্গে যুক্ত এক অভিযুক্তের সঙ্গে সিসিটিভি ফুটেজ থেকে পাওয়া এক প্রতারকের মুখের মিলও পাওয়া গিয়েছে৷

Arpita Hazra

Published by:Debamoy Ghosh
First published: