Home /News /kolkata /

Crime: বিধাননগরে শ্লীলতাহানির ঘটনায় চার্জশিট জমা দিল বিধাননগর নর্থ থানা

Crime: বিধাননগরে শ্লীলতাহানির ঘটনায় চার্জশিট জমা দিল বিধাননগর নর্থ থানা

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

Bidhannagar: চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটে গত ১০ ডিসেম্বর রাতে। রাত দেড়টা নাগাদ ঘটনাটি ঘটে। আসানসোলের তরুণী অনলাইন পরীক্ষা দেওয়ার জন্য কলকাতায় বন্ধুর বাড়িতে আসছিলেন।

  • Share this:

# কলকাতা: বিধাননগরে তরুণীর শ্লীলতাহানির ঘটনায় এ বার চার্জশিট পেশ করল নর্থ বিধাননগর থানা। বিধাননগর  আদালতে পেশ করা হল চার্জশিট । আদালত সূত্রে খবর, দুই অভিযুক্ত পুলিশকর্মীর নাম রয়েছে চার্জশিটে। চার্জশিটে উল্লেখ করা হয়েছে ২২ জন সাক্ষীর। মূল অভিযুক্ত দুই পুলিশ কর্মী এএসআই সন্দীপ কুমার পাল ও সিভিক অভিষেক মালাকারের নাম রয়েছে চার্জশিটে। দুই পুলিশকর্মীকে আদালতে পেশের ১৩ দিনের মাথায় চার্জশিট পেশ করল পুলিশ। রবিবার বিধাননগর আদালতে চার্জশিট পেশ করে নর্থ বিধাননগর থানা।

l কিন্তু বাস দেরি করায় করুণাময়ীতে নামতে গভীর রাত হয়ে যায়। তরুণীর ফোন বন্ধ হয়ে যায় , কারণ চার্জ শেষ হয়ে গিয়েছিল। তিনি গাড়ি পাচ্ছিলেন না। তখন পুলিশের পোশাক পরা তিন পুলিশকর্মী দুটি বাইক নিয়ে আসেন। তরুণী ক্যাব ধরে দেওয়ার জন্য অনুরোধ করেন। তখন ওই অভিযুক্ত পুলিশ কর্মীরা বাইকে লিফট দেন। তরুণীকে বোঝানো হয় যে এত রাতে গাড়ি পাবেন না। উল্টোডাঙা থেকে ট্যাক্সি পাবেন, সেই জন্য লিফট দিতে চান পুলিশকর্মীরা। সিভিক অভিষেক মালাকারের বাইকে তরুণীকে তোলা হয়। অপর বাইকে ছিলেন এএসআই সন্দীপকুমার পাল ও অপর এক পুলিশকর্মী।

আরও পড়ুন: এখনই নয়, তবে প্রয়োজনে ফের কড়া বিধিনিষেধ, সতর্ক করে ইঙ্গিত মমতার

কিছু ক্ষনের মধ্যে এএসআই ওই বাইক থেকে নেমে আসেন। এর পর সিভিকের বাইকে বসেন তরুণীকে সঙ্গে নিয়ে। বাইক চলতে শুরু করার পরেই অশালীন আচরণ ও শ্লীলতাহানি করেন অভিযুক্ত পুলিশকর্মী। এর পর একটি নির্জন পুলিশ ব্যারাকে তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে ওই এএসআইয়ের নামার কথা থাকলেও তিনি নামেননি। এর পর তরুণীকে মাঝে বসতে বললে তরুণী আপত্তি করেন। তরুণী দুই পুলিশের পিছনে তৃতীয় সিটে বসেন। ফের শুরু করে অসভ্যতা।

আরও পড়ুন: গঙ্গাসাগর মেলা হচ্ছে, অথচ সুব্রতদা নেই, খুব মিস করি, নবান্নের সভায় বললেন মমতা

অভিযুক্ত পুলিশ কর্মীরা বিভিন্ন জায়গা ঘুরিয়ে শেষ পর্যন্ত তরুণীকে  বাইপাসের ধারে একটি শপিং মলের সামনে নামানো হয়। তরুণী নেমে যান কোনও মতে। তিনি বন্ধুকে ফোন করেন। পালিয়ে যায় অভিযুক্ত দুই পুলিশ কর্মী। বন্ধু আসেন  কিছু ক্ষণের মধ্যে। তরুণীকে নিয়ে রুবি মোড় আসেন। রাত পৌনে তিনটা নাগাদ ট্রাফিককে জিজ্ঞাসা করেন কাছাকাছি থানা কোথায়। রাত তিনটে নাগাদ কসবা ট্রাফিক পুলিশের সাহায্যে তরুণী আসেন কসবা থানায়। কসবা পুলিশ ঘটনাস্থলে নিয়ে যায় ওই তরুণীকে।সেখান থেকে বিধান নগর নর্থ থানাকে কসবা পুলিশ ফোন করে ডেকে আনে। নর্থ বিধান নগর থানা আসে। ঘটনাস্থলে এসে অভিযোগ শোনে।

রাত চারটে নাগাদ নর্থ বিধান নগর থানায় কসবা পুলিশ পৌঁছে দেয় ওই তরুণীকে।এর পর তরুণী শ্লীলতাহানির অভিযোগ করেন ওই দুই পুলিশ কর্মীর বিরুদ্ধে। সেই ঘটনায় ১২ তারিখ দুপুর দুটো পঞ্চান্ন মিনিট নাগাদ গ্রেফতার হয় দুই অভিযুক্ত পুলিশকর্মী।

Arpita Hazra

Published by:Uddalak B
First published:

Tags: Crime

পরবর্তী খবর