বরকতির গাড়ির লালবাতি খুলে নিল পুলিশ, সিদ্দিকুল্লার মুখে ইমামের প্রবল সমালোচনা

অবশেষে লালবাতিহীন শাহি ইমাম বরকতি ৷ শনিবার সকালে কলকাতা পুলিশ টিপু সুলতান মসজিদের মৌলানা নুরুর রহমান ইমাম বরকতির গাড়ি থেকে জোর করে লালবাতি খুলে নেয় ৷

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:May 13, 2017 05:39 PM IST
বরকতির গাড়ির লালবাতি খুলে নিল পুলিশ, সিদ্দিকুল্লার মুখে ইমামের প্রবল সমালোচনা
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:May 13, 2017 05:39 PM IST

#কলকাতা: অবশেষে লালবাতিহীন শাহি ইমাম বরকতি ৷ শনিবার সকালে কলকাতা পুলিশ টিপু সুলতান মসজিদের মৌলানা নুরুর রহমান ইমাম বরকতির গাড়ি থেকে জোর করে লালবাতি খুলে নেয় ৷ কেন্দ্রীয় আইন অমান্য করে লালবাতি লাগানোয় গতকাল কলকাতার একাধিক থানায় মামলা দায়ের করা হয় ৷ তারই পরিপ্রেক্ষিতে এই পদক্ষেপ ৷

লালবাতি নিয়ে দেশজুড়ে চলছে বিতর্ক ৷ এরই মাঝে কেন্দ্রীয় আইনকে ফুৎতারে উড়িয়ে দিয়ে দিব্য লালবাতি লাগিয়ে ঘুরছিলেন টিপু সুলতান মসজিদের মৌলানা নুরুর রহমান ইমাম বরকতি ৷

শাহি ইমামের জারিজুরি শেষ। বরকতির গাড়ি থেকে লালবাতি খুলে দিল পুলিশ। কার্যত জোর করেই খোলা হল লালবাতি। বেআইনিভাবে লালবাতি ব্যবহারের জন্য মামলা রুজু হয়েছে শাহি ইমামের বিরুদ্ধে। আইনকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে লালবাতি লাগানো গাড়িতে চড়ছিলেন বরকতি। লালবাতি ছাড়বেন না বলে হুঁশিয়ারিও দেন।

সম্প্রতি ভিআইপি সংস্কৃতি ঘোচাতে গাড়িতে লালবাতি ব্যবহার নিষিদ্ধ করেছে মোদি সরকার ৷ পয়লা মে থেকে গোটা দেশে কার্যকর হয়েছে এই সিদ্ধান্ত ৷ দেশের বাকি মন্ত্রী-সান্ত্রীদের গাড়ির মাথা থেকে স্থানচ্যুত হলেও কলকাতার টিপু সুলতান মসজিদের ইমাম বরকতির গাড়ির মাথায় বহাল তবিয়তে রয়েছে লালবাতি ৷ সেই নিয়ে প্রশ্ন করা হলে মঙ্গলবার ইমাম স্পষ্ট জানান, ‘আমার কাছে লালবাতি লাগানোর বিশেষ অনুমতি আছে, যা আর কারোর কাছে নেই ৷’ বরকতির দাবি ছিল, তিনি ব্রিটিশ সরকারের থেকে গাড়িতে লালবাতি লাগানোর অনুমতি পেয়েছেন তাই প্রধানমন্ত্রী মোদির কথায় তা খুলবেন না ৷

গলা চড়িয়ে ঘোষণা করেছিলেন। কিন্তু কয়েকদিন কাটতে না কাটতেই নিজের কথাই গিলতে হল নুর-উর-রহমান বরকতিকে। বরকতির গাড়ি থেকে লালবাতি খুলে দিল পুলিশ। ডেপুটি কমিশনারের নেতৃত্বে অভিযানেই খোলা হল লালবাতি।

Loading...

আইনকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে লালবাতি ব্যবহার করায় মামলার মুখে পড়তে হচ্ছে শাহী ইমামকে। চলতি বছরের ১ মে থেকে দেশজুড়ে লালবাতি নিষিদ্ধ করেছে কেন্দ্র। এখানে বলা হয়েছিল, রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী সহ কোনও ভিআইপিই লালবাতি লাগানো গাড়ি ব্যবহার করতে পারবেন না। এই ঘটনার অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেবে সংশ্লিষ্ট রাজ্য প্রশাসন ও পরিবহণ দপ্তর।

এদিন বরকতির সমালোচনায় সিদ্দিকুল্লা চৌধুরী বলেন, ‘বরকতির মন্তব্য অশান্তি সৃষ্টি করছে ৷ বরকতি যা করেছেন তা ইসলামবিরুদ্ধ ৷ ইসলাম ধর্মে আইন অমান্য শোভা পায় না ৷ ইমামের পদের জন্য লালবাতি জরুরি নয় ৷’

আরও পড়ুন,

যেই বারণ করুক, আমি গাড়িতে লালবাতি ব্যবহার করব, মন্তব্য বরকতির

এতেই শেষ নয় ৷ বরকতিকে সরাসরি RSS-এর এজেন্ট বলে অভিযোগ করেন রাজ্যের গ্রন্থাগারমন্ত্রী সিদ্দিকুল্লা ৷ ‘বরকতি RSS-এর এজেন্ট ৷ RSS-এর হাতে অস্ত্র তুলে দিচ্ছেন ৷’ শাহি ইমামের সমালোচনায় সিদ্দিকুল্লা আরও বলেন, ‘বরকিত অহঙ্কারের সঙ্গে ইমামতি করছেন ৷ ইমাম পদের অসম্মান করছেন তিনি ৷ ইমাম পদের জন্য লালবাতি কোনও শর্ত নয় ৷ লালবাতি নিয়ে যে একগুয়েমি করছেন ৷ তাতে ইমাম পদকে কলুষিত করছেন ৷ ওই পদ থেকে সরে যাওয়া উচিত বরকতির ৷ লালবাতি নিয়ে মসজিদের মধ্যে ও বাইরে আইনশৃঙ্খলার অবনতি ঘটলে বরকতি সাহেব দায়ী থাকবেন ৷’

দিলীপ ঘোষও বরকতির সমালোচনায় সরব ৷ দিলীপ ঘোষের নিশানায় মুখ্যমন্ত্রী ৷ তিনি বলেন, ‘মুখ্যমন্ত্রীর জন্য এত বাড়াবাড়ি ৷ বরকতিকে মাথায় তুলে রেখেছেন তিনি ৷’

ফিরহাদ হাকিমের দাবি, পুলিশ নয়, ইমাম বরকতি সরকারি নির্দেশ মেনেই নিজেই খুলে নিয়েছেন লালবাতি ৷

রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর কোনওদিনই লালবাতি ব্যবহার করেন না। এই নির্দেশ জারির পর রাজ্যের মন্ত্রী ও ভিআইপিরাও লালবাতি ছেড়েছেন। অথচ লালবাতির মোহ ছাড়তে পারেননি শাহী ইমাম। একের পর এক বিভ্রান্তিকর দাবিও করেছেন। শাহী ইমামের আচরণ নিয়ে প্রশ্ন তুলছিলেন ইমাম ও মুসলিম সমাজও। অবশেষে ঘটনায় কড়া হল রাজ্য। এখন থেকে লালবাতি ছাড়াই ঘুরতে হবে নুর-উর রহমান বরকতিকে।

First published: 04:22:05 PM May 13, 2017
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर