• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • মদ্যপ অবস্থায় বেপরোয়া গতি, গড়ফায় মৃত ১! ধৃত ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ুয়া

মদ্যপ অবস্থায় বেপরোয়া গতি, গড়ফায় মৃত ১! ধৃত ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ুয়া

মৃত রতন সরকার (বাঁদিকে)৷ ঘাতক সেই গাড়ি৷

মৃত রতন সরকার (বাঁদিকে)৷ ঘাতক সেই গাড়ি৷

রবিবার বেপরোয়া গতিতে যাদবপুরের দিক থেকে বাইপাসের দিকে আসছিল একটি গাড়ি৷

  • Share this:

    #কলকাতা: ফের রাতের কলকাতায় বেপরোয়া গতির বলি হলেন নিরীহ পথচারী৷ বাড়ির সামনে দাঁড়িয়ে কথা বলার সময়ই ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ুয়ার গাড়ির ধাক্কায় মৃত্যু হল এক মাঝ বয়সি ব্যক্তির৷ আহত আরও একজন৷ ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ুয়া ওই যুবক মদ্যপ অবস্থায় গাড়ি চালাচ্ছিল বলে অভিযোগ৷ রবিবার রাতে গড়ফা থানা এলাকার সাঁপুইপাড়ার কাছে এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ঘটে৷ অভিযুক্তের ১৭ ডিসেম্বর পর্যন্ত পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে আদালত৷

    রবিবার বেপরোয়া গতিতে যাদবপুরের দিক থেকে বাইপাসের দিকে আসছিল একটি গাড়ি৷ সেই সময় সাঁপুইপাড়া বটতলার কাছে রাস্তার ধারে দাঁড়িয়ে দুই পরিচিতের সঙ্গে কথা বলছিলেন রতন সরকার (৪৯) নামে পেশায় বাস চালক এক ব্যক্তি৷ নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার ধারে দাঁড়ানো রতনবাবুদের ধাক্কা মারার পর একটি লাইট পোস্টে ধাক্কা মারে গাড়িটি৷ সঙ্গে সঙ্গে অন্ধকার হয়ে যায় গোটা এলাকা৷ বিকট আওয়াজ শুনে স্থানীয় বাসিন্দারা দৌড়ে এসে দেখেন গাড়ির সামনের অংশটি দুমড়ে মুচড়ে গিয়েছে৷ গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়ে রতন সরকার এবং তাঁর সঙ্গে দাঁড়িয়ে থাকা নীলোৎপল বিশ্বাসকে৷ বরাত জোরে বেঁচে যান নীলোৎপলবাবুর স্ত্রী৷

    গাড়ির মধ্যে থেকেই মদ্যপ অবস্থায় দুই তরুণ ও এক তরুণীকে বের করা হয় বলে অভিযোগ প্রত্যক্ষদর্শীদের৷ গাড়ির চালকের আসনে থাকা ২৩ বছরের শুভম বন্দ্যোপাধ্যায় মদ্যপ অবস্থায় ছিল বলে অভিযোগ৷ সে ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ুয়া৷ সঙ্গীদের নিয়ে শুভম নিউ আলিপুরের একটি পার্টি থেকে শুভম ফিরছিল বলে পুলিশ সূত্রে খবর৷ শুভমকে গ্রেফতার করে একাধিক ধারায় মামলা করেছে পুলিশ৷ শুভম যে মদ্যপ অবস্থায় ছিল, মেডিক্যাল টেস্ট করে সে বিষয়ে নিশ্চিত হয় পুলিশ৷ ধৃতকে এ দিন আলিপুর আদালতে তোলা হলে ১৭ ডিসেম্বর পর্যন্ত পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দেন বিচারক৷ যদিও ধৃতের বাবা পেশায় ব্যবসায়ী সুব্রত বন্দ্যোপাধ্যায়ের দাবি, তাঁর ছেলে মদ্যপান করেন না৷ কোনও পার্টিতে নয়, শুভম কসবায় বন্ধুর বাড়িতে যাচ্ছিল বলেও দাবি তার বাবার৷

    জানা গিয়েছে, ঘটনাস্থলের ২০০ মিটার আগে পুলিশের নাকা তল্লাশির সময় গাড়িটির গতি কম ছিল৷ কিন্তু তার পরেই বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালাতে শুরু করে শুভম৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: