corona virus btn
corona virus btn
Loading

আজ রাজ্যে ফের পূর্ণ লকডাউন, সকাল থেকে শুনশান শহর থেকে জেলার রাস্তাঘাট, কড়া পুলিশ প্রশাসন

আজ রাজ্যে ফের পূর্ণ লকডাউন, সকাল থেকে শুনশান শহর থেকে জেলার রাস্তাঘাট, কড়া পুলিশ প্রশাসন

নবম সার্বিক লকডাউনও কঠোর ভাবে বলবৎ করতে পুলিশ প্রশাসনকে নির্দেশ দিয়েছে নবান্ন। ফলে শহরের বিভিন্ন জায়গায় নাকা চেকিং চলছে রবিবার গভীর রাত থেকেই।

  • Share this:

#কলকাতা: আজ, সোমবার রাজ্যে ফের সম্পূর্ণ লকডাউন। ফলে সকাল থেকেই শুনশান শহরের উত্তর থেকে দক্ষিণ। সূত্রের খবর, নবম সার্বিক লকডাউনও কঠোর ভাবে বলবৎ করতে পুলিশ প্রশাসনকে নির্দেশ দিয়েছে নবান্ন। ফলে শহরের বিভিন্ন জায়গায় নাকা চেকিং চলছে রবিবার গভীর রাত থেকেই। লকডাউনের জেরে সপ্তাহের প্রথম দিনেও উত্তর থেকে দক্ষিণ কলকাতার রাস্তা ফাঁকা। বন্ধ দোকান, বাজার। গার্ড রেল দিয়ে বন্ধ করা হয়েছে শহরের একাধিক গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা।

মাসের শেষ সম্পূর্ণ লকডাউন সফল করতে কড়া প্রশাসন। ফলে সকাল থেকেই গাড়ি থামিয়ে বিভিন্ন রাস্তায় নাকা তল্লাশি চলছে। জরুরি পরিষেবার গাড়ি ছাড়া আর কোনও গাড়ি যেতে দেওয়া হচ্ছে না। চলছে নাকা চেকিং। দক্ষিণ কলকাতার নিউ আলিপুরের ছবিটাও অনেকটাই এক। নিউটাউনের ইউনিটেক মোড়েও ছবিটাও এক। সকাল থেকেই তৎপর নিউটাউন ট্রাফিক ও টেকনো সিটি থানার পুলিশ।  গাড়ি থামিয়ে জিজ্ঞাসা করা হচ্ছে চালকের গন্তব্য। কড়া পুলিশি নজরদারি রয়েছে দ্বিতীয় হুগলি সেতুতেও। শহরে ঢোকা এবং বেরনোর ক্ষেত্রে চালকদের যথার্থ কারণ দেখাতে হচ্ছে। তবেই মিলছে অনুমতি।

এ দিকে, সোমবার সকালে লকডাউন বিধি অমান্য করার দায়ে নিউটাউনের এক যুবককে গ্রেফতার করা হয়েছে। পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে সন্তোষজনক উত্তর না দিতে পাড়ায় তাঁকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

কলকাতার পাশাপাশি জেলাতেও কড়া পুলিশি ঘেরাটোপে চলছে লকডাউন। উত্তরবঙ্গের জেলাগুলি থেকে দক্ষিণ বা পশ্চিমের জেলায় পুলিশি প্রহরা রয়েছে নজরে পড়ার মতো। বন্ধ রয়েছে সব ধরনের গণপরিবহন।  লকডাউনের ফলে সকাল থেকে স্তব্ধ বাঁকুড়া। বাঁকুড়ায় সকাল থেকেই রাস্তাঘাট প্রায় সুনসান। বন্ধ রয়েছে বড়বাজার, চকবাজার, মাচানতলা বাজার-সহ সবকটি বাজার। পুরুলিয়া, মেদিনীপুর, নদীয়ার ছবিটাও কম-বেশি এক।

উল্লেখ্য, সোমবার ৩১ অগাস্ট রাজ্যে পূর্ণ লকডাউনের দিনে বন্ধ রয়েছে ট্রেন পরিষেবা। রাজ্যে  বন্ধ রয়েছে সমস্ত স্পেশ্যাল ট্রেন। শুধুমাত্র স্টাফ স্পেশ্যাল চলাচল করছে জরুরি পরিষেবা প্রদানকারী কর্মী এবং আধিকারিকদের জন্য।

Published by: Shubhagata Dey
First published: August 31, 2020, 9:23 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर