corona virus btn
corona virus btn
Loading

জন্মদিনে দিলীপকে বাংলায় শুভেচ্ছা বার্তা মোদীর, শুভেচ্ছা বাবুল, মুকুলেরও

জন্মদিনে দিলীপকে বাংলায় শুভেচ্ছা বার্তা মোদীর, শুভেচ্ছা বাবুল, মুকুলেরও

এই চিঠির নতুনত্ব হল, চিঠি লেখা হয়েছে বাংলায়। প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা বার্তা পেয়ে স্বাভাবিক ভাবেই খুশি দিলীপ।

  • Share this:

#কলকাতা: জন্মদিনে বাংলায় শুভেচ্ছা জানিয়ে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে ই-মেল করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র দামোদরাস মোদী। ১ অগাস্ট ৫৬ তে পড়লেন দিলীপ। সেই উপলক্ষে জন্মদিনের আগেই গতকাল ৩১শে জুলাই প্রধানমন্ত্রীর দফতর থেকে মেল এসে পৌছেছে দিলীপ ঘোষের কাছে। মেল-এ শুভ কামনা জানানোর পাশাপাশি, নতুন ভারত গঠনে একত্রে কাজ করার আহ্বানও জানিয়েছেন মোদী।

যদিও,  জন্মদিনে দলের সাংসদদের শুভ কামনা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রীর এই বার্তা নতুন কিছু নয়, রুটিন মাফিক প্রধানমন্ত্রীর দফতর থেকে মোদীর স্বহস্তে স্বাক্ষরিত এই চিঠি নিয়ম করে সব সাংসদদের কাছেই পাঠানো হয়। তবে, এবার সেই চিঠির নতুনত্ব হল, চিঠি লেখা হয়েছে  বাংলায়।  প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা বার্তা পেয়ে স্বাভাবিক ভাবেই খুশি দিলীপ। তবে, দিলীপের দাবি, তাকে বাংলায় চিঠি পাঠিয়ে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানানো আসলে বাংলা ভাষা ও বাঙালিকে সম্মান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। খুশির কারণ সেটাই।

দিলীপের এই খুশি হওয়া নিয়ে ইতিমধ্যেই আড়ালে আবডালে রসিকতা শুরু করে দিয়েছেন নিন্দুকেরা। উড়ে আসছে টীকা টিপ্পনিও। বিশেষত, এমন একটা সময়ে যখন দিলীপকে নিয়ে দলের মধ্যে কাজিয়া একেবারে তুঙ্গে। রাজ্য বিজেপিতে তাদেরই একজন চুপিসাড়ে বললেন, "আসলে  প্রধানমন্ত্রীর চিঠি পেয়ে হয়ত একটু "চাপমুক্ত" বোধ করছেন। তাই খুশি। "  যদিও, আজ জন্মদিনের দিনও, রাজারহাটের বাড়িতে রুটিন মাফিক সকালে মর্নিং ওয়াক থেকে শুরু করে বৈঠক সবই চলেছে আর পাঁচটা দিনের মত। মাঝে ভূতনাথ মন্দিরে নিজের জন্মদিনের পূজো দিতে গিয়েছিলেন কিছুক্ষণের জন্য। বিকালে দিলীপ নিজেই বললেন, শুভেচ্ছা জানিয়ে দলীয় কর্মী আর অনুগামীদের ফোন ধরতে ধরতে দিনের বেশির ভাগ সময়টা কেটে গেল ।

সকাল, সকাল জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়ে দিলীপ ঘোষের সঙ্গে নিজের  পুরনো ছবি নিজের ফেসবুক পেজে  পোস্ট করে দেন সাংসদ, মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। আর তা দেখেই রাজনৈতিক মহলে শুরু হয়ে যায় গুঞ্জন। রাজ্য বিজেপির দলীয় সমীকরনে বাবুল - দিলীপ সম্পর্ক অনেকটা "কভি খুশি, কভি গম " গোছের। অম্ল মধুর এই সম্পর্কের টানাপোড়েনেই বারবার তৈরি হয়েছে বিতর্ক। এবারেও, সম্প্রতি দিল্লি কান্ডে সেই টানাপোড়েন সামনে এসে পড়েছিল। রাজনৈতিক মহল থেকে সংবাদমাধ্যম যখন তার রসায়ন নিয়ে ব্যস্ত, সে সময়েই আচমকা বাবুলের এই ফেসবুক পোষ্ট,  রাজনৈতিক ভাবে আবার গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠল বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।  বিকালে জানা গেল, শুধু ফেসবুকেই নয়, নিজে ফোনও করেছিলেন বাবুল। দেরিতে হলেও, ফেসবুকে শুভেচ্ছা এসেছে মুকুল রায়ের থেকেও। এসব দেখে, রাজনীতির কারবারিদের প্রশ্ন, তাহলে কী বরফ গলছে? নাকি এও এক নয়া কৌশল মুকুল, বাবুলদের?

Arup Dutta

Published by: Elina Datta
First published: August 2, 2020, 12:34 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर