কলকাতা

corona virus btn
corona virus btn
Loading

হাসপাতালে মেলেনি চিকিৎসা, যন্ত্রণা সহ্য করতে না পেরে আত্মহত্যা প্রৌঢ়ের

হাসপাতালে মেলেনি চিকিৎসা, যন্ত্রণা সহ্য করতে না পেরে আত্মহত্যা প্রৌঢ়ের
প্রতীকী চিত্র ।

এমন পরিণতি সহ্য করতে না পেরে আচমকা স্ট্রোকে মারা যান প্রৌঢ়ের বৃদ্ধ বাবাও ৷

  • Share this:

#কলকাতা: হাসপাতালে মিলছে না চিকিৎসা, এমন অভিযোগ আগেও মিলেছে ৷ চিকিৎসা না পেয়ে ঢলে পড়েছেন মৃত্যুর কোলে এমন ঘটনার দুঃখজনক উদাহরণও রয়েছে ৷ কিন্তু চিকিৎসা না পেয়ে এবার আরও মর্মান্তিক ঘটনা ঘটল কলকাতার হরিদেবপুরে ৷ পায়ে অসহ্য যন্ত্রণা। সরকারি হাসপাতালে গিয়েও চিকিৎসা না পাওয়ার অভিযোগ। হরিদেবপুরে যন্ত্রণা থেকে বাঁচতে আত্মঘাতী প্রৌঢ়। সন্তান হারানোর শোকে মৃত বৃদ্ধ বাবা।

অভিযোগ, হাসপাতালে গিয়েও চিকিৎসা না পেয়ে যন্ত্রণা সহ্য করতে না পেরে আত্মহত্যার পথ বেছে নিল এক ব্যক্তি। তাঁর এমন পরিণতি সহ্য করতে না পেরে আচমকা স্ট্রোকে মারা যান প্রৌঢ়ের বৃদ্ধ বাবাও ৷

আর সহ্য হচ্ছিল না পায়ের যন্ত্রণা ৷ যাতে উপশম মেলে দ্বারস্থ হয়েছিলেন হাসপাতালের ৷ কিন্তু শত কাকুতি মিনতির পরও মিলল না ন্যূনতম পরিষেবা ৷ শেষে যন্ত্রণার হাত থেকে বাঁচবার জন্য গলায় দড়ির ফাঁস দিয়ে আত্মঘাতী হলেন প্রৌঢ় ৷ মর্মান্তিক এই ঘটনাটি ঘটেছে হরিদেবপুর থানার ধারা পাড়াতে। মৃতের নাম গোপাল মন্ডল (৫৯) ৷ প্রায় ৩৫ বছর আগে দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত হন গোপাল মণ্ডল৷ দুর্ঘটনার পরে তাঁর ডান পায়ে প্লেট বসানো হয়৷ বেশ কয়েকদিন ধরেই পায়ে অসহ্য যন্ত্রণা শুরু হয় প্রৌঢ়ের ৷ চিকিৎসা করাতে শনিবার বেহালার বিদ্যাসাগর হাসপাতালে যান৷ হাসপাতালে দীর্ঘক্ষণ বসে থেকে যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছিল গোপাল মণ্ডল ৷ কিন্তু কোনও চিকিৎসক আসেননি বলে অভিযোগ ৷ এরপরে কোনওমতে বাড়ি ফিরে আসেন প্রৌঢ় ৷ কিছুক্ষণ পরেই বাড়ি থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার হয় বছর উনষাটের গোপাল মণ্ডলের দেহ। সেদিনই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারান গোপাল মণ্ডলের বৃদ্ধ বাবা ভূতনাথ মণ্ডল।

পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, যন্ত্রণা থেকে মুক্তি পেতেই আত্মহত্যা করেন প্রৌঢ়। আর সন্তান হারানোর শোকে মৃত্যু হয় বৃদ্ধ বাবার। পেশায় ভ্যানচালক গোপান মণ্ডল পরিবারের একমাত্র রোজগেরে সদস্য ছিলেন। একই দিনে বাড়ির দুই সদস্যকে হারিয়ে মণ্ডল পরিবারে শোকের ছায়া।

Published by: Elina Datta
First published: June 28, 2020, 7:16 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर