• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • PEOPLE TAKE SELFIE WITH CUT OUT OF MAMATA BANERJEE AT NETAJI INDOOR STADIUM RM

নেই 'দিদি'র আপত্তি, নেই নিরাপত্তারক্ষীদের কড়াকড়ি, মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে দেদার সেলফি তুললেন কর্মীরা

অবাধে , দলনেত্রী তথা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে দলীয় কর্মী সমর্থকেরা দেদার সেলফি তুললেন

অবাধে , দলনেত্রী তথা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে দলীয় কর্মী সমর্থকেরা দেদার সেলফি তুললেন

  • Share this:

#কলকাতা : হাতের কাছে পেয়ে 'দিদি'কে সঙ্গে নিয়ে কেউ তুললেন সেলফি, আবার কেউবা তুললেন ছবি। নিরাপত্তারক্ষীদের কড়াকড়ি নেই। নেই দিদির আপত্তিও। তাই  অবাধে , দলনেত্রী তথা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে দলীয় কর্মী সমর্থকেরা দেদার সেলফি তুললেন ।চোখের সামনে 'দিদি'!  এই সুযোগ কি  হাতছাড়া করা যায় ? বললেন অনেকেই।

দিনটা ছিল সোমবার। দলীয় কর্মী- জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে রাজনৈতিক কর্মসূচি। সকাল থেকে যেভাবে  তৃণমূল সুপ্রিমো তথা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় স্টেডিয়ামের মূল প্রবেশদ্বারের ঠিক সামনে দুহাত জোড় করে দাঁড়িয়েছিলেন , হঠাৎ করে কারও চোখ সেদিকে গেলে  ঘাবড়ে যেতেই পারেন। অনেকে ঘাবড়ে গেলেনও। পরে অবশ্য  ভুল ভাঙল। হাতের নাগালে পৌঁছতেই মালুম হল, সেটি দিদির কাটআউট। কিন্তু দূর থেকে ঠিক যেন মনে হচ্ছে খোদ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই দাঁড়িয়ে রয়েছেন।

প্রিয় 'দিদি' কে নিয়েই  সেখানে তখন রীতিমতো সেলফি জোন।  দলীয় সুপ্রিমোকে মধ্যমণি করে কেউ তুলছেন সেলফি । কেউবা তুললেন ছবি।   তৃণমূল কর্মীদের  কথায়, 'নেত্রী আমাদের  মনের গভীরে আছেন। বাস্তবে  আজ  দূর থেকে তাঁকে দেখার , তাঁর  বার্তা শোনার সুযোগ হলেও  দিদির  কাটআউটের  সঙ্গে সেলফি বা ছবি  তুলে মনে হল, খোদ দিদি আমাদের পাশেই আছেন'।

বর্তমান সময়ে সেলফি একটি বহূল চর্চিত বিষয়। স্মার্টফোন ব্যবহার করেন অথচ সেলফি তোলেন না, এমন মানুষের সংখ্যা হাতেগোনা। বিশেষ করে কিশোর-কিশোরী, তরুণ-তরুণীদের মধ্যে সেলফি তোলার প্রবণতা দিনদিন বাড়ছে। বলা ভাল পুরো বিশ্বই এখন সেলফি জ্বরে আক্রান্ত। নানা ঢঙে, হরেক ভঙ্গিমায়, বিভিন্ন স্থানে এবং অনেক কিছুর সঙ্গে সেলফি তুলে ফেসবুক সহ অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়ায়  পোষ্ট করার হিড়িক পড়ে গিয়েছে। আধুনিক হচ্ছে সমাজ। যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে আধুনিক হচ্ছে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলগুলিও। তৃণমূল কংগ্রেসের তরফেও বারবার সোশ্যাল মিডিয়ায় দলীয় নেতা ,কর্মী, সমর্থকদের  আগ্রহ বাড়ানোর কথা বলা হয়েছে। সময়ের পালাবদলে প্রযুক্তি হয়েছে আরও আধুনিক, প্রযুক্তির এই চলমান যাত্রায় সেলফিও পেয়েছে জনপ্রিয়তার নতুন মাত্রা। আর যখন হাতের নাগালে  প্রিয়জনকে পেয়ে যান কেউ তখন তাঁকে নিয়ে  সেলফি তোলার  সুযোগ হাতছাড়া করেন কেউ ?  যেমনটা ঘটল নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে, 'দিদি' কে কাছে পেয়ে । বিজেপি-র 'আর নয় অন্যায়' কর্মসূচিকে কটাক্ষ করে তৃণমূলের এক প্রথম সারির নেতা এই ঘটনা শুনে মুচকি হেসে বললেন, '' দিদির জনপ্রিয়তা যে এতটুকুও কমেনি তারই ফের প্রমাণ মিলল। বাংলার গর্ব মমতাই।''

VENKATESWAR  LAHIRI

Published by:Rukmini Mazumder
First published: