corona virus btn
corona virus btn
Loading

মাটি ফুঁড়ে বেরিয়ে আসছে কাদা-জল, এখনও আতঙ্কে বউবাজার শিয়ালদহের মানুষ

মাটি ফুঁড়ে বেরিয়ে আসছে কাদা-জল, এখনও আতঙ্কে বউবাজার শিয়ালদহের মানুষ

শনিবার রাতে ফের আতঙ্কে বউবাজারের বাসিন্দারা। কোলে মার্কেটের সামনে হঠাৎ করেই রাস্তার ওপর উঠে আসতে থাকে কাদা মাটি।

  • Share this:

#কলকাতা:  শনিবার রাতে ফের আতঙ্কে বউবাজারের বাসিন্দারা। কোলে মার্কেটের সামনে হঠাৎ করেই রাস্তার ওপর উঠে আসতে থাকে কাদা মাটি। যা দেখে শুরু হয়ে যায় দৌড়াদৌড়ি। অনেকেই মনে করেন ঠিক এক বছর আগেকার স্মৃতি। তাহলে কি ফের বিপর্যয়? সেই চিন্তা অমূলক বলে জানিয়ে দিচ্ছেন মেট্রোর ইঞ্জিনিয়াররা। তাহলে শনিবার রাতে বউবাজারে আসলে কি হয়েছিল? সহজ কথায় এটি ছিল ফোম নিঃসরণ।সাধারণত শক্ত মাটি কাটতে গেলে আগে অনেকেই ভালো করে জল ছিটিয়ে দেন। তারপর কোদাল দিয়ে মাটি কাটা হয়। ঠিক সেরকমই মাটির নীচে সুড়ঙ্গ খননের সময় দেখা যায়, একাধিক জায়গায় মাটির চরিত্র একেক রকম। তাই সুড়ঙ্গ খননের জন্যে যখন টানেল বোরিং মেশিন চালানো হয়, তার কাটারের আগে দেওয়া হয় ফোম। যা এক ধরণের বিশেষ রাসায়নিক। সেই ফোম মাটির চরিত্র বুঝে টিবিএম মেশিনকে এগোতে সাহায্য করে। মাটি কেটে এগোনোর সময় দেখা যায় সুড়ঙ্গ ছাদের ওপরে অনেক ফাঁকা জায়গা থাকে। বিজ্ঞানের সহজ নিয়মে মাটির উপরের চাপের জন্যে সেখান দিয়ে কাদা-মাটি বেরিয়ে আসে। শনিবার সন্ধ্যাতেও ঠিক এটাই হয়েছে বউবাজারে বা কোলে মার্কেটের কাছে। সন্ধ্যার ব্যস্ত সময়ে এই ঘটনা ঘটায় আতঙ্কিত হয়ে পড়েন স্থানীয়রা। শুরু হয়ে যায় দৌড়াদৌড়ি। কাছেই মেট্রোর কাজে নিযুক্ত থাকা মেট্রোর শ্রমিক ও আধিকারিকরা ছুটে আসেন। বালি, সিমেন্ট ও বিশেষ রাসায়নিক  দিয়ে গ্রাউটিং করা হয়। যেখান দিয়ে কাদা মাটি বেরিয়ে আসছিল সেখানে গ্রাউটিং করে বন্ধ করে দেওয়া হয়। কে এম আর সি এল আধিকারিকরা জানাচ্ছেন টানেল বোরিং মেশিন উর্বি দিয়ে এখন কাজ হচ্ছে। সেই টিবিএম শিয়ালদহ স্টেশনের খুব কাছে চলে গিয়েছে। যেহেতু স্টেশনের দিকে এগোচ্ছে ফলে এতদিন মাটির নীচে যে উচ্চতায় এটি ছিল এখন সেখান থেকে আরও উপরে উঠে আসছে। আর সেই কারণেই মাটিতে অ্যাকুইফার থাকায় সেখান দিয়ে বেরিয়ে এসেছে কাদা মাটি ও জল। স্থানীয় বাসিন্দা দেবতনু হাজরা জানাচ্ছেন, "এক বছর আগের স্মৃতি এখনও ভুলে যাইনি। তার মধ্যে আবার এই ঘটনা। এতে যথেষ্ট আতঙ্ক হবারই কথা।" যে সময় ঘটনা ঘটে সেই সময় ঘটনাস্থলে ছিলেন ব্যবসায়ী রাজু মন্ডল। তিনি জানাচ্ছেন, "ভয়ে আমি তো আমার ডালা ফেলে দৌড় দিয়েছিলাম। পরে তো মেট্রোরেলের লোকেরা এসে বলল ভয় পাওয়ার কিছু নেই। কিন্তু ভয় একটা থেকেই গেল।"

Published by: Akash Misra
First published: September 6, 2020, 10:59 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर