corona virus btn
corona virus btn
Loading

ধেয়ে আসছে ভয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড়, আমফানের জেরে গোটা কলকাতায় আজ আসল লকডাউন

ধেয়ে আসছে ভয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড়, আমফানের জেরে গোটা কলকাতায় আজ আসল লকডাউন

বুধবার সকাল থেকেই শ্মশানের নিস্তব্ধতা বিরাজ করছিল গোটা মহানগর জুড়ে। সর্বত্রই কি জানি কি হয় , একটা ভাব।

  • Share this:

#কলকাতা: নভেল করোনা ভাইরাসের আতঙ্ক গত দু মাস ধরে তাড়া করে বেড়াচ্ছিল সবাইকেই। আর তার মাঝেই মূর্তিমান বিভীষিকার মতো এসে পৌঁছাল আমফান ঘূর্ণিঝড়। আর এই ঘূর্ণিঝড় দেখিয়ে দিল মানুষ কতটা অসহায়। গত দু মাস জুড়ে চলা লকডাউনের  সময়েও অনেক মানুষকে দেখা গিয়েছিল নির্দ্বিধায় রাস্তায় বেরোতে। পুলিশের চোখ রাঙানি বা করোনা আতঙ্ক কোনওকিছুই প্রভাব ফেলেনি তাদের ওপর। বেপরোয়া ভাবে শুধু রাস্তায় বেরোনো নয়,চায়ের দোকানে আড্ডা,রীতিমত বাজারে গিয়ে গুলতানি,ক্লাবে আড্ডা সবই চলছিল। এক লহমায় সব মুছে দিল আমফান।

দিন তিনেক ধরেই এই আমফান এর আসার খবর আসছিল। আর বুধবার সকাল থেকেই তিলোত্তমা কলকাতার জনজীবনের চিত্রটা এক মুহূর্তে বদলে গেল। মঙ্গলবারই নবান্ন থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা করেছিলেন যে,বুধবার যেন কলকাতা ও তার পার্শ্ববর্তী অঞ্চলে কোনও বাজার না খোলে, সাধারণ মানুষ যেন রাস্তায় না বেরোয়। এর আগেও রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে এই ঘোষণা করা হয়েছিল,তবুও অনেক এলাকায় মানুষ অবাধে রাস্তায় বেরিয়েছিল,শারীরিক দূরত্ব বা মাস্ক না পড়েই মানুষ রাস্তায় বেরিয়েছিল। আর বুধবার সকাল থেকেই উত্তর থেকে দক্ষিণ পূর্ব থেকে পশ্চিম কলকাতার সর্বত্রই রাস্তা যেনো প্রকৃত লকডাউন।

বুধবার সকাল থেকেই শ্মশানের নিস্তব্ধতা বিরাজ করছিল গোটা মহানগর জুড়ে। সর্বত্রই কি জানি কি হয় , একটা ভাব। ১১বছর আগের আয়লার স্মৃতি উস্কে শহর কলকাতা হয় ডুবে গিয়েছিল। সদাব্যস্ত শ্যামবাজার পাঁচ মাথার মোড়, ধর্মতলা, হাজরা,গড়িয়াহাট,বালিগঞ্জ, উল্টোডাঙ্গা,বিবাদীবাগ সর্বত্রই একই চিত্র। রাস্তায় গাড়িঘোড়া প্রায় নেই বললেই চলে। আর মানুষজন, তা অণুবীক্ষণ যন্ত্র দিয়ে খুঁজে দেখতে হয়। এর আগে বুলবুলের সময় দেখা গিয়েছিল সন্ধ্যার পর থেকেই শহরের রাস্তা ফাঁকা হয়ে যাওয়া তবে এবার আমফান এর ভয়ে সকাল থেকেই নিজেকে ঘরবন্দি রেখেছিল আমজনতা।

ঘরে ঘরে একটাই চর্চা কখন আসবে আমফান। যদি সত্যিই আলিপুর আবহাওয়া দফতরের সর্তকতা অনুযায়ী ১১০ থেকে ১২০ কিলোমিটার বেগে এই আমফান কলকাতার উপর দিয়ে বয়ে যায়, তাহলে গোটা শহর যে লন্ডভন্ড হয়ে যাবে। আইলার সময় ৬০ থেকে ৬৫ কিলোমিটার বেগে ঝোড়ো হাওয়ায় শহর কলকাতা বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছিল প্রচুর ক্ষয়ক্ষতি হয়েছিল কলকাতায় আর এবার যদি তার থেকে বেশি বেগে ঝড় আসে তবে কি হবে? প্রকৃতির রোষানলে আজ মহানগর কলকাতার প্রায় ১০০ শতাংশ মানুষই গৃহবন্দী।আর প্রত্যেকেই প্রার্থনা করছেন যেন আমফান এর দুর্যোগ কেটে যায়।

Published by: Dolon Chattopadhyay
First published: May 20, 2020, 3:11 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर