স্বাস্থ্য সাথী কার্ড থাকলে রোগী হয়রানি বরদাস্ত নয়, জরুরী বৈঠকে বেসরকারি হাসপাতালগুলিকে হুঁশিয়ারি ফিরহাদের

পুরসভার প্রশাসক বোর্ডের চেয়ারপার্সন ফিরহাদ হাকিম এ দিনের বৈঠকে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের প্রতিনিধিদের স্পষ্ট বার্তা দেন, রোগীদের প্রত্যাখ্যান করলে সংশ্লিষ্ট হাসপাতালের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

পুরসভার প্রশাসক বোর্ডের চেয়ারপার্সন ফিরহাদ হাকিম এ দিনের বৈঠকে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের প্রতিনিধিদের স্পষ্ট বার্তা দেন, রোগীদের প্রত্যাখ্যান করলে সংশ্লিষ্ট হাসপাতালের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

  • Share this:

#কলকাতা: কয়েকদিন ধরেই অভিযোগ আসছিল স্বাস্থ্য সাথী কার্ড থাকা সত্বেও কলকাতার অনেক বেসরকারি হাসপাতাল রোগীদের ফিরিয়ে দিচ্ছে। এই প্রেক্ষিতেই কলকাতার সমস্ত বেসরকারি হাসপাতাল, নার্সিংহোম কর্তৃপক্ষের সঙ্গে শনিবার  জরুরী বৈঠক ডেকে  কড়া বার্তা দিল কলকাতা পুরসভা।

পুরসভার প্রশাসক বোর্ডের চেয়ারপার্সন ফিরহাদ হাকিম এ দিনের  বৈঠকে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের প্রতিনিধিদের স্পষ্ট বার্তা দেন, রোগীদের প্রত্যাখ্যান করলে সংশ্লিষ্ট হাসপাতালের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে। অনুমোদন আসা পর্যন্ত অপেক্ষা করা যাবে না। স্বাস্থ্য সাথী কার্ড থাকলেই রোগীর চিকিৎসা শুরু করে দিতে হবে। সমস্ত বেসরকারি চিকিৎসা কেন্দ্রের সামনে স্বাস্থ্য সাথী কার্ড প্রযোজ্য বলে বোর্ড লাগাতে হবে।

এ দিনের গুরুত্বপূর্ণ বৈঠকে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের প্রতিনিধিরাও বেশ কিছু সমস্যার কথা তুলে ধরেন। কেউ কেউ বলেন স্বাস্থ্য সাথী কার্ড নিয়ে এসে সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে সামান্য জ্বরের চিকিৎসা করতে চলে আসছেন রোগীরা। একদিকে কলকাতার রোগীদের চাপ, অন্যদিকে বিভিন্ন জেলা থেকেও রোগীরা আসায় বেড পূর্ণ হয়ে যাচ্ছে। ফলে অনেক মুমূর্ষু রোগী অনেক সময় চিকিৎসার সুযোগ পাচ্ছেন না। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের তরফে ফিরহাদ হাকিমকে প্রস্তাব দেওয়া হয়, অনেক বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজ রয়েছে। এ ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট গাইডলাইন করলে এ ধরনের পরিস্থিতি এড়ানো যাবে। এমন অনেক চিকিৎসা রয়েছে যার খরচ স্বাস্থ্য সাথীর কার্ড থাকার জন্য বরাদ্দ করা হয়েছে। কিন্তু ওই বরাদ্দ টাকার মধ্যে থেকে চিকিৎসা করা প্রায় অসম্ভব বলে এ দিনের বৈঠকে হাসপাতালের প্রতিনিধিরা ফিরহাদ ফিরহাদ হাকিমের সামনে তুলে ধরেন।

ছানি অপারেশনের মত আরও বেশ কিছু রোগের চিকিৎসা স্বাস্থ্য সাথী কার্ড এ উপলব্ধি না থাকাতেও নানান হয়রানির মধ্যে পড়তে হচ্ছে হাসপাতাল গুলিকে। এই ধরনের অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয় এ দিনের বৈঠকে আলোচিত হয়েছে। যে সমস্ত হাসপাতাল এখনও স্বাস্থ্য সাথীর কার্ড থাকা সত্ত্বেও পরিষেবা দিচ্ছেন না তাঁদের অবিলম্বে পরিষেবা দেওয়ার নির্দেশ জারি করা হয়েছে এ দিনের বৈঠকে। বৈঠক শেষে ফিরহাদ হাকিম বলেন, "মানুষের চিকিৎসা সংক্রান্ত বিষয়ে কোনওরকম টালবাহানা বরদাস্ত করা হবে না।"

স্বাস্থ্য সাথী কার্ড থাকলেই হাসপাতালগুলিকে পরিষেবা দিতেই হবে। পাশাপাশি এ দিন হাসপাতাল প্রতিনিধিদের তোলা সমস্যার কথা গুলোর ব্যাপারেও  হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের প্রতিনিধিদের আশ্বস্ত করে ফিরহাদ হাকিম জানিয়েছেন , আমাদের কাছে মুখ্য বিষয় মানুষের স্বাস্থ্য পরিষেবা'। রোগী হয়রানি ঠেকাতে এ দিনের প্রশাসনিক দাওয়াইয়ে আদৌ কোনও কাজ হয় কিনা তার উত্তর দেবে সময়ই।

VENKATESWAR  LAHIRI 

Published by:Shubhagata Dey
First published: