কলকাতা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৬ তলা থেকে মরণঝাঁপ রোগীর

কলকাতা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৬ তলা থেকে মরণঝাঁপ রোগীর

এই যুবকের মৃত্যু বেশ কয়েকটি প্রশ্নের দিকে আঙ্গুল তুলে গেল

  • Share this:

#কলকাতা: সকাল পৌনে ১১ টা। কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নবনির্মিত সুপার স্পেশালিটি বিল্ডিংয়ের পিছনে ভারী কিছু পড়ে যাওয়ার আওয়াজ জনমানবহীন ওই জায়গায় পড়ে আছে এক যুবক। নদিয়া ধানতলা এর বাসিন্দা রিয়াজউদ্দিন মন্ডল, ১৮ বছর বয়স। গতকাল,মঙ্গলবার হাসপাতালের নব নির্মিত সুপার স্পেশালিটি বিল্ডিং এর নিউরো মেডিসিন বিভাগে ভর্তি হন। গত দেড়মাস ধরে মানসিক সমস্যায় ভুগছিলেন। বুধবার সকাল সাড়ে দশটা নাগাদ ওয়ার্ডে চিকিৎসকেরা ভিজিট করার সময়েই আচমকা বেড থেকে ছুটে গিয়ে জানালার লক খুলে ঝাঁপ মারেন। ৬ তলা থেকে আছড়ে পড়েন। বিল্ডিঙের পিছনের অংশ জনমানবহীন। উপর থেকে কর্মীরা নীচে খবর দিলে অন্য কর্মীরা যান। উদ্ধার করেন। জরুরি বিভাগে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে দ্রুত অস্ত্রোপচার শুরু হয়। অপারেশন টেবিলেই মৃত্যু হয় যুবকের।

আরও পড়ুন ড্রোন নিয়ে কড়া কেন্দ্র, থাকতে হবে কেন্দ্রীয় অনুমতি, না হলেই বিপদ

এই যুবকের মৃত্যু বেশ কয়েকটি প্রশ্নের দিকে আঙ্গুল তুলে গেল। সদ্য নির্মিত হওয়া এই সুপার স্পেশালিটি বিল্ডিংয়ে প্রচুর নিরাপত্তারক্ষী, প্রতিটি ওয়ার্ডে অত্যন্ত কড়াকড়ি, তবু কিভাবে এই যুবক বিনা বাধায় ওয়ার্ড এর ভেতর থেকে ঝাঁপ দিল,সেই প্রশ্নটা কিন্তু থেকেই যাচ্ছে। এরই সঙ্গে যে জানালা দিয়ে ঝাঁপ দিয়েছে সেখানে কেন গ্রিন ছিল না, বা লক করা ছিল না;সেই প্রশ্নও উঠতে শুরু করেছে।  মানসিক সমস্যায় আক্রান্ত এই ধরনের রোগীদের ক্ষেত্রে কি আরো সুষ্ঠু ব্যবস্থা গ্রহণ করা যায় না? প্রশ্ন তুলছে মৃত যুবকের পরিবার।

কলকাতা মেডিক্যাল কলেজের হাসপাতাল সুপার ইন্দ্রনীল বিশ্বাস বলেন, "একটা দুর্ভাগ্যজনক ঘটনা ঘটেছে। আমরা সব দিক খোঁজ নিচ্ছি। "বউবাজার থানার পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে।মৃত রিয়াজ উদ্দিন মন্ডলের দেহ ময়নাতদন্ত পাঠানো হয়েছে।বুধবার সকালে এই ঘটনা ঘটায় স্বভাবতই গোটা হাসপাতাল জুড়ে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে।বিশেষত সুপার স্পেশালিটি বিল্ডিঙের অন্য রোগী ও তাদের আত্মীয় দের মধ্যে যথেষ্টই ভয় ছড়িয়ে পড়েছে।

First published: January 15, 2020, 4:01 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर