• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • PAKISTANI LADY ROAMED AROUND BUT FAILED TO GET COVID VACCINE JAB IN KOLKATA AKD

Pakistani Lady denied covid jab in Kolkata: সাত বছর কলকাতার বাসিন্দা, হন্যে হয়ে ঘুরেও টিকা পেলেন না পাকিস্তানি মহিলা...

নিজের পরিচয়পত্র দেখাচ্ছেন শাহার কাইজার।

Pakistani Lady denied covid jab in Kolkata: দড়ি টানাটানির মধ্যে পড়ে টিকা নেওয়া হল না তাঁর। অথচ শাহার কোনও অবৈধ বাসিন্দা নন। বিবাহসূত্রেই সাত বছর ধরে এই শহরে আছেন তিনি।

  • Share this:

#কলকাতা: ভারতীয় নথি নেই, এই অভিযোগে এক পাকিস্তানি মহিলাকে টিকা না দিয়েই ফেরাল কলকাতার মেডিকা হাসপাতাল। পাসপোর্ট ছিল, সেই নথি দেখিয়েই কো-উইন অ্যাপে টিকার জন্য স্লট বুক করেছিলেন বছর ৩০-এর শাহার কাইজার। কিন্তু দড়ি টানাটানির মধ্যে পড়ে টিকা নেওয়া হল না তাঁর। অথচ শাহার কোনও অবৈধ বাসিন্দা নন। বিবাহসূত্রেই সাত বছর ধরে এই শহরে আছেন তিনি।

শুক্রবার বিকেল তিনটে থেকে চারটের স্লট বুকিং করেন শাহার। হাসপাতালে গেলে প্রথমে নিয়ম অনুযায়ী কোউইনের স্লট বুকিং দেখে টাকা জমা নেওয়া হয়। স্পুটনিক-ভি টিকা দেওয়া হবে বলেও জানানো হবে। এরপরে একজন কর্মী তাঁদের বলেন, "অপেক্ষা করতে হবে। আমরা উচ্চ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলছি।"

আরও প্রায় দেড় দুই ঘন্টা বসে থাকার পর তাদের বলা হয় যে স্বাস্থ্য ভবনের নির্দেশ নেই, ফলে টিকা দেওয়া যাবে না। শাহার বলেন,যখন রেজিস্ট্রেশন করতে হয় তখন সেখানে ভ্যালিড ডকুমেন্ট হিসেবে পাসপোর্টের উল্লেখ আছে। অন্য কোনও দেশের পাসপোর্ট বৈধ নয় সে বিষয়ে কোনও উল্লেখ নেই।

এদিকে মেডিকা হাসপাতাল থেকে ফিরে আসার পরই তাঁর কাছে মেসেজ আসে যে তিনি টিকা নিতে অসম্মত হন তাই টিকা গ্রহণ সম্পন্ন হয়নি। বাড়ি ফিরে এসে স্বাস্থ্য ভবনে ফোন করলে তাঁকে জানানো হয়, বেসরকারি হাসপাতালে কোনও সমস্যা হবে না পয়সা দিয়ে টিকা নেওয়া হচ্ছে। ফলে তারা (মেডিকা) টিকা দিতে বাধ্য।

যদিও মেডিকা হাসপাতালে শাহার আবার ফোন করলে তারা বলেন স্বাস্থ্য ভবনের নির্দেশ না থাকায় তারা টিকা দিতে অসমর্থ। এরপর রবিবার আবার কোউইন অ্যাপে নাম নথিভুক্ত করেন শাহার। আগামী মঙ্গলবার সকাল ১০ টা থেকে ১১ টা ঢাকুরিয়া আমরি হাসপাতালে টিকা দেওয়ার স্লট বুক হয়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আমরি হাসপাতাল সূত্রে জানিয়েছে, তারা বারবার স্বাস্থ্য ভবনে এই বিষয়ে যোগাযোগ করেছেন। কিন্তু সঠিক ভাবে কোনও তথ্য জানানো হয়নি স্বাস্থ্য দপ্তর থেকে। যদি স্বাস্থ্য ভবন বারণ না করে, তবে তারা নির্দিষ্ট সময়ে টিকা দেবেন।

যদিও শাহরের প্রশ্ন,  ৭ বছর বিবাহসূত্রে এই শহর কলকাতার সঙ্গে অঙ্গাঙ্গিভাবে জড়িত তিনি, শুধুমাত্র আধার কার্ড না থাকার কারণেই তাঁকে টিকা দেওয়া থেকে বঞ্চিত করা হলো? টিকা না পেয়ে তিনি যথেষ্ট অসুরক্ষিত, তাঁর দুটি ছোট সন্তান রয়েছে। তাছাড়াও তিনি যদি ঠিকানা না পান তাহলে তিনি আগামী দিনে আরও বহু মানুষকে সংক্রামিত করতে পারেন। এছাড়াও যে সমস্ত বিদেশি দূতাবাসের কর্মীরা সেখানে রয়েছেন, তারা তো দিব্যি টিকা পাচ্ছেন। স্বাস্থ্য দপ্তরের কি কোন নির্দিষ্ট নির্দেশিকা রয়েছে বিদেশি নাগরিক হলে কি টিকা দেওয়া যাবে না? তাকে যদি কোনও কারণে দেশে যেতে হয়, তবে তিনি টিকা না দিয়ে কী করে যাবেন?

Published by:Arka Deb
First published: