• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • অতিরিক্ত আয়ের নেশায় এখন বেপরোয়া অধিকাংশ ক্যাব চালক, ছাত্র মৃত্যুতে উঠছে ঘুমিয়ে পড়ার তত্ত্বও

অতিরিক্ত আয়ের নেশায় এখন বেপরোয়া অধিকাংশ ক্যাব চালক, ছাত্র মৃত্যুতে উঠছে ঘুমিয়ে পড়ার তত্ত্বও

Representational Image

Representational Image

বাইপাস দুর্ঘটনায় মেধাবী ছাত্র সায়ন্তনের মৃত্যুতে উঠে আসছে অ্যাপ ক্যাব চালকদের ঘুমিয়ে পড়ার তত্ত্ব।

  • Share this:

    #কলকাতা: বাইপাস দুর্ঘটনায় মেধাবী ছাত্র সায়ন্তনের মৃত্যুতে উঠে আসছে অ্যাপ ক্যাব চালকদের ঘুমিয়ে পড়ার তত্ত্ব। তাহলে কি চালকদের অতিরিক্ত পরিশ্রমেরই মাশুল দিচ্ছেন যাত্রীরা? সায়ন্তনের এই মৃত্যু আরও একবার মনে করিয়ে দিল কালিকাপ্রসাদের মৃত্যুর কথা।

    মোটর ভিইকলস্ অ্যাক্ট ১৯৯৮ অনুযায়ী যেকোনও ভাড়ার গাড়ির চালক আট ঘণ্টার বেশি গাড়ি চালাবেন না। এই আইন মেনেই রাজ্য পরিবহন নিগম ওলা উবেরের মত অ্যাপ ক্যাব সংস্থাগুলির সঙ্গে চুক্তি করে। অন ডিমান্ড ট্রান্সপোর্টেশন টেকনলজি এগ্রিগেটর অ্যাক্ট মেনেই শহর ও শহরতলিতে প্রায় ২০,৭০০ অ্যাপ ক্যাপ চলে। কিন্তু আদৌ কতটা মানা হয় এই আইন ? শহরে একের পর এক দুর্ঘটনা এই প্রশ্ন উঠছেই ৷

    বেশিরভাগ অ্যাপ ক্যাব চালকই স্বীকার করেছেন অতিরিক্ত আয়ের জন্যই তারা অতিরিক্ত পরিশ্রম করেন। যার ফলে ঘটছে বিপদ। বিপদ আরও বাড়াচ্ছে অ্যাপ ক্যাব সংস্থাগুলির দিন প্রতি ট্রিপ কাউন্টের সংখ্যাও।

    অ্যাপ ক্যাবে আয় ১১ ট্রিপে ১৮০০ থেকে ২০০০ টাকা ২০ ট্রিপে ৩৫০০ থেকে ৪০০০ টাকা ২৪ ট্রিপে ৪৭০০ থেকে ৫০০০ টাকা এরমধ্যে ক্যাব সংস্থাগুলি ১৫ থেকে ২০ শতাংশ কমিশন কেটে নেয়

    মাসিক বেতন ছাড়াও অনেক সময় ট্রিপ প্রতি নির্দিষ্ট টাকার বিনিময়ে কাজ করেন চালকরা। এক একটি ট্রিপে ৬০ থেকে ৭০ টাকা করে পাওয়া যায় ৷ চালকদের এই অতিরিক্ত আয়ের প্রবণতাই ডেকে আনে বিপদ ৷

    অ্যাপ ক্যাব চালকদের মতে দশ ঘণ্টা গাড়ি চালালে গড়ে ১২ টা ট্রিপ করা যায়। এক্ষেত্রে অতিরিক্ত আয়ের জন্যই বাড়তি পরিশ্রমের দিকে ঝোঁকেন তাঁরা। যার ফল, কখনও সায়ন্তন কখনও কালিকাপ্রসাদ।

    First published: