corona virus btn
corona virus btn
Loading

তুবড়ি ফেটে ছেলের মৃত্যুর ৬ মাসের মধ্যেই পরকীয়ায় লিপ্ত স্ত্রী, চরম অবসাদে আত্মঘাতী স্বামী

তুবড়ি ফেটে ছেলের মৃত্যুর ৬ মাসের মধ্যেই পরকীয়ায় লিপ্ত স্ত্রী, চরম অবসাদে আত্মঘাতী স্বামী
প্রতীকী ছবি

গতবছর কালীপুজোর রাতে তুবড়ি ফেটে মৃত্যু হয় কাজল দাসের পাঁচ বছরের ছেলের ।

  • Share this:

#কলকাতা: স্ত্রী পরকীয়া সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছে, মানতে পারেননি । অভিমানে, অবসাদে আত্মঘাতী স্বামী । বেহালা শীলপাড়ার বিবেকানন্দ সরণিতে রবিবার সকালে ঘটনাটি ঘটে । ভাড়া বাড়ি থেকে কাজল দাসের ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার করে হরিদেবপুর থানার পুলিশ । মৃতদেহের পাশ থেকে উদ্ধার হয় সুইসাইড নোট । যাতে মৃত্যুর জন্য স্ত্রী ও তার প্রেমিককে দায়ী করেছেন কাজল দাস । হরিদেবপুর থানায় অভিযোগ দায়ের হয়েছে পরিবারের তরফে ।

গতবছর কালীপুজোর রাতে তুবড়ি ফেটে মৃত্যু হয় কাজল দাসের পাঁচ বছরের ছেলের । সেই থেকেই মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন তিনি । চাকরিও হারিয়েছিলেন । তারপর করোনা আবহের জেরে লকডাউন চলায় চাকরিও পাচ্ছিলেন না । ফলে সংসারে আর্থিক সমস্যা দেখা দেয় । সেইসময় সংসারের হাল ধরার 'বাহানায়' রান্নার কাজ করতে শুরু করে স্ত্রী । কাজ শুরুর কিছুদিন পরেই কাজল দাস জানতে পারেন স্ত্রী পরকীয়ায় লিপ্ত ।

আত্মীয় পরিচয় দিয়ে যার বাড়িতে রান্নার কাজে ঢুকেছিল স্ত্রী , সেই আত্মীয়র সঙ্গে আপত্তিজনক অবস্থায় স্ত্রীকে দেখে ফেলেন কাজল । মানসিকভাবে আরও ভেঙে পড়েন তিনি । স্ত্রীকে রান্নার কাজ ছেড়ে দেওয়ার জন্য বারবার অনুরোধ করলেও স্ত্রী তাতে রাজি হয়নি । বরং কাজলকে ছেড়ে দেওয়ার হুঁশিয়ারিও দেন । স্ত্রীয়ের প্রেমিক প্রাণে মেরে ফেলার হুমকিও দিয়েছিল কাজলকে । ফলে সব মিলিয়ে চরম মানসিক হতাশায় ভুগতে থাকেন । কিন্তু তারপরেও তিনি যে নিজেকে শেষ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিতে পারে তা পরিবারের কেউ টের পায়নি । স্ত্রীয়ের চাপেই মাকে ছেড়ে অন্য বাড়িতে ভাড়া থাকতেন কাজল । স্ত্রী পরকীয়ায় জড়ানোর পর থেকে সেখানে একাই থাকতেন । এদিন সেখানেই আত্মঘাতী হন ।

সকালবেলায় ঘর থেকে কোনও সাড়াশব্দ না পেয়ে প্রতিবেশীরা পরিবারের লোককে খবর দেয় । পরিবারের লোকেরা এসে কাজলকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখে পুলিশে খবর দেয় । হরিদেবপুর থানার পুলিশ এসে মৃতদেহ উদ্ধার করে । কাজলের মা ঝুম্পা দাসের কথায়, "নাতি মারা যাওয়ার পর থেকেই ছেলে মানসিক চাপে ছিল । বৌমাকে কাজ করতে বারণ করেছিল । আত্মীয়র বাড়িতে কাজের নামে পরকীয়ায় জড়িরে পড়েছিল । আমার ছেলের ১৭ বছরের বিয়ে । বৌমাকে খুব ভালবাসতো। প্রেমিকের কাছ থেকে ফিরে আসতে বলেছিল । কিন্তু কিছুতেই শোনেনি । উল্টে ছেড়ে যাওয়ার ভয় দেখাচ্ছিল । কিন্তু বৌমার অন্য সম্পর্ক মানতে পারেনি ছেলে । তাই নিজেকে শেষ করে দিল ।"

বোন সুজাতা দাস বলেন, "যে মা ফুটফুটে সন্তানের মৃত্যুর চার মাস পর পরকীয়ায় লিপ্ত হয়, সে কেমন মানুষ তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না । আমরা বৌদি ও তার প্রেমিকের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করেছি । আমরা চাই চরম শাস্তি হোক ।" পুলিশ সূত্রে খবর, ইতিমধ্যেই কাজলের স্ত্রী ও তার প্রেমিককে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে । ময়নাতদন্তের রিপোর্টের ভিত্তিতে পরবর্তী পদক্ষেপ করা হবে ।

SUJOY PAL

Published by: Shubhagata Dey
First published: June 28, 2020, 9:37 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर