Home /News /kolkata /
ফের অঙ্গদান, আসানসোলের মেয়ে সুরভি বরাটের লিভার ও কিডনি পেল শহরের তিন  রোগী

ফের অঙ্গদান, আসানসোলের মেয়ে সুরভি বরাটের লিভার ও কিডনি পেল শহরের তিন  রোগী

সান্টা নয়, বড়দিনের সবচেয়ে বড় উপহারটি আসানসোলের সুরভি দিয়ে গেল শহরের তিন রোগীকে ! উপহারে দিলেন নিজের লিভার, কিডনি !

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #কলকাতা: সান্টা নয়, বড়দিনের সবচেয়ে বড় উপহারটি আসানসোলের সুরভি দিয়ে গেল শহরের তিন রোগীকে ! উপহারে দিলেন নিজের লিভার, কিডনি !

    ফের অঙ্গদানের ঘটনা শহরে ৷ আসানসোলের মেয়ে সুরভি বরাটের লিভার ও কিডনি পেল অ্যাপোলোর দুই রোগী ৷

    ব্রেন টিউমার নিয়ে অ্যাপোলোতে ভর্তি হয়েছিলেন আসানসোলের সুরভি বরাট ৷ কিন্তু চিকিৎসকদের শত চেষ্টা বিফলে গেল ৷ শনিবার রাতে চিকিৎসক ঘোষণা করলেন সুরভির মস্তিষ্কের মৃত্যু হয়েছে ৷ ডাক্তারদের থেকে একথা জানর পর, সুরভির পরিবারই সিদ্ধান্ত নিলেন, সুরভি বেঁচে থাকুক ৷ কিন্তু অন্যভাবে ৷ সুরভির অঙ্গদানের সিদ্ধান্ত নিলেন বরাট পরিবার ৷ সুরভির লিভার ও একটি কিডনি পেল অ্যাপেলোর দুই রোগী ৷ অন্য একটি কিডনি পেল এসএসকেএমের এক রোগী ৷

    কিছুদিন আগে পথ দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত হন স্বর্ণেন্দু রায় ৷ তাঁকে ভর্তি করা হয় বাইপাসের এক বেসরকারি হাসপাতালে ৷ চিকিৎসার সময়, কোমায় চলে যান তিনি ৷ চিকিৎসকরা স্বর্ণেন্দুর পরিবারকে জানায়, স্বর্ণেন্দু-র ব্রেন ডেথ হয়েছে ৷ তারপরই স্বর্ণেন্দু-র অঙ্গদানের ইচ্ছে প্রকাশ করে তাঁর পরিবার ৷ স্বাস্থ্য দফতের কাছে স্বর্ণেন্দু-র লিভার, কিডনি, চোখ দানের আবেদন করে তাঁর পরিবার ৷

    কলকাতায় এই ঘটনা প্রথম নয় ৷ জুলাই মাসে অঙ্গ প্রতিস্থাপনের সাক্ষী থাকল কলকাতা। সত্তর বছর বয়সী ব্রেন ডেথ হওয়া এক বৃদ্ধার দুটি কিডনি পেয়ে নতুন জীবন পেলেন বছর তিরিশের শেখ ফিরোজউদ্দিন ও কেয়া রায়। শোভনা সরকারের কিডনিতে নতুন জীবন ফিরে পেলেন রামগড়ের কেয়া রায়। গতকাল দক্ষিণ কলকাতার একটি নার্সিংহোমে কিডনি প্রতিস্থাপনের পর এখন স্থিতিশীল আছেন কেয়া রায়। যদিও তাঁর শরীর এই কিডনি কতটা নিতে পারবে তাই নিয়ে কিছুটা দুশ্চিন্তা রয়েছে পরিবারে। তবে তাঁদের আশা, এই লড়াইটা কেয়া জিতবেই।

    মঙ্গলবার গড়িয়ার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ব্রেন ডেথ হয় সত্তর বছরের শোভনা সরকারের। মৃত্যুর পর তাঁর ইচ্ছে অনুযায়ী কিডনি ও চোখ দানের সিদ্ধান্ত নেয় পরিবার। কিন্তু সাহায্য করার মতো কাউকে পাচ্ছিলেন না। খবর পেয়ে যোগাযোগ করেন মিন্টো পার্কের একটি বেসরকারি হাসপাতালের চিকিৎসকরা। শোভনা সরকারের দেহ পরীক্ষার পর অঙ্গ প্রতিস্থাপনে সবুজ সংকেত দেন তাঁরা। একটি কিডনি প্রতিস্থাপন করা হয় কেয়া রায়র শরীরে।

    মরণোত্তর অঙ্গদানে সফল চিকিৎসা। প্রয়াত সমর চক্রবর্তীর অঙ্গ প্রতিস্থাপনের পর, নতুন জীবন ফিরে পেলেন মাধুরী সাহা। প্রায় এক মাসের লড়াইয়ের পর ফিরে গেলেন বাড়িতে। ভাই নেই। কিন্তু, বোনকে পেয়ে খুশি সমর চক্রবর্তীর দাদা। অঙ্গদানের ক্ষেত্রে আরও সচেতন হোক সমাজ। দাবি দুই পরিবারের।

    পথ দেখিয়েছিলেন শোভনা সরকার। সেই পথেই হেঁটেছিল দমদম ক্যান্টনমেন্টের চক্রবর্তী পরিবার। নাগেরবাজারের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ২৬ জুলাই, ব্রেন ডেথ হয় সমর চক্রবর্তীর। ভাই ফিরবে না। তাই অন্যের মধ্যেই ভাইকে বাঁচিয়ে রাখতে, অঙ্গদানের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল পরিবার। সেইমতোই, হাওড়ার শিবপুরের বাসিন্দা, মাধুরী সাহার শরীরে সমরের লিভার প্রতিস্থান হয়। প্রায় এক মাস কড়া পর্যবেক্ষণের পর, আপাতত সুস্থ মাধুরী। নতুন জীবন নিয়েই বাড়ি ফিরলেন তিনি। সেইসঙ্গে মরণোত্তর অঙ্গদানের পর সফল লিভার প্রতিস্থাপনে পূর্বাঞ্চলে নজির গড়ল এ-শহর।

    First published:

    Tags: Donations, ETV News Bangla, Kolkata, Organ

    পরবর্তী খবর