• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • অধ্যক্ষের অনুরোধে বৈঠকে সামিল বিরোধীরা

অধ্যক্ষের অনুরোধে বৈঠকে সামিল বিরোধীরা

বুধবার রাজ্য বিধানসভায় বাংলার প্রতি কেন্দ্রীয় বঞ্চনার অভিযোগ তুলে সরব হন পার্থ চট্টোপাধ্যায়ও। নাম পরিবর্তন নিয়ে রাজ্যের শাসক দলের পাশে দাঁড়াচ্ছে বাম-কংগ্রেস শিবির।

বুধবার রাজ্য বিধানসভায় বাংলার প্রতি কেন্দ্রীয় বঞ্চনার অভিযোগ তুলে সরব হন পার্থ চট্টোপাধ্যায়ও। নাম পরিবর্তন নিয়ে রাজ্যের শাসক দলের পাশে দাঁড়াচ্ছে বাম-কংগ্রেস শিবির।

দলীয় বৈঠকের বিপরীত ছবি দেখা গেল বিধানসভায় । অধ্যক্ষের অনুরোধে বিএ কমিটির সভায় যোগ দিল বিরোধীরা। কিন্তু, সেখানে বিরোধীদের আলোচনার দাবি খারিজ হয়ে গেল।

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #কলকাতা: দলীয় বৈঠকের বিপরীত ছবি দেখা গেল বিধানসভায় । অধ্যক্ষের অনুরোধে বিএ কমিটির সভায় যোগ দিল বিরোধীরা। কিন্তু, সেখানে বিরোধীদের আলোচনার দাবি খারিজ হয়ে গেল। কথা বলতে বাধা দেওয়ায় বামেদের ওয়াকআউটে সঙ্গী হল না কংগ্রেস। যদিও যৌথ সাংবাদিক সম্মেলনে দেখা গেল মান্নান-সুজনকে। শাসকের বিরুদ্ধে বিভাজনের রাজনীতির অভিযোগ তুলল বামেরা।

    বুধবার বিধানসভার বিএ কমিটির বৈঠক বয়কট করে বাম ও কংগ্রেস। অভিযোগ, বিরোধীদের বক্তব্য পেশের সুযোগ দেওয়া হচ্ছে না। বৈঠক বয়কটের চিঠি পেয়ে বুধবারের বৈঠক স্থগিত রাখেন অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়।

    বৃহস্পতিবার অধিবেশনের প্রথমার্ধের পর ফের বৈঠক ডাকা হয়। প্রথমার্ধের শেষে অধ্যক্ষ ও পরিষদীয় মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় বিরোধী দলনেতা আব্দুল মান্নানকে বিএ কমিটিতে যোগ দেওয়ার অনুরোধ জানান। শর্তসাপেক্ষে সম্মত হন তিনি।

    বিরোধী দলনেতাকে অনুরোধ জানালেও বাম পরিষদীয় দলের উদ্দেশে অধ্যক্ষ বা মন্ত্রী কিছু বলেননি। এ ব্যাপারে সুজন চক্রবর্তী কিছু বলতে চাইলে সরকারপক্ষের বিধায়করা বাধা দেন। অধ্যক্ষের কাছ থেকেও বলার অনুমতি না পেয়ে ওয়াকআউট করে বামেরা। যদিও কংগ্রেস তাদের সঙ্গ দেয়নি।

    ওয়াকআউটে সঙ্গী না হলেও বামেদের সাংবাদিক বৈঠকে যোগ দেয় কংগ্রেস। দু’পক্ষই যোগ দেয় বিএ কমিটির বৈঠকে। কিন্তু, বিধানসভা সূত্রের খবর, বৈঠকে শাসকপক্ষ বিরোধীদের দাবি খারিজ করে দিয়েছে।

    বাম ও কংগ্রেস সরকারি কর্মীদের মহার্ঘ্যভাতা ও মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে আলোচনার দাবি তোলে। কিন্তু, সময়ের অভাবে তা সম্ভব নয় বলে জানিয়ে দেন অধ্যক্ষ। এর ফলে বিএ কমিটির বৈঠকে যোগ দেওয়া নিয়ে বিধানসভায় সংঘাতের পরিস্থিতি বজায় রইল।

    First published: