কলকাতা

corona virus btn
corona virus btn
Loading

ঘরে বসে লখনউয়ের কাবাব-হায়দরাবাদের বিরিয়ানি, জয়পুরের পেঁয়াজ কচুরি, এক ক্লিকে উড়ে আসবে সেই প্রদেশ থেকেই!

ঘরে বসে লখনউয়ের কাবাব-হায়দরাবাদের বিরিয়ানি, জয়পুরের পেঁয়াজ কচুরি, এক ক্লিকে উড়ে আসবে সেই প্রদেশ থেকেই!
ফাইল ছবি

খাবার অর্ডার দিতে হবে ন্যূনতম ১২ ঘণ্টা আগে খাবারের অর্ডার করতে হবে আর খাবার পাবার পর ২৪ ঘন্টা পর্যন্ত তার কোনো রকম সমস্যা হবে না, জানিয়েছে সংস্থা।

  • Share this:

#কলকাতা: খাদ্যরসিক, ভোজন প্রিয় বাঙালি ভাল খাবার নিয়ে কোনও  দেশ, কাল, সীমানার বেড়াজাল মানে না। ভাল খাবারের খোঁজে কোথায় না ছুটে বেড়ায় বাঙালি। তবে এই অন্তর্জালের দুনিয়ায় আর ঘুরে বেড়ানোর প্রয়োজন নেই। দরজার দোরগোড়ায় চাইলেই হায়দরাবাদের প্যারাডাইস বা শাদাব বা বাবুর্চির দম বিরিয়ানি, সিদ্দিকির কাবাব, বেগম বাজার, মিনার্ভা বা গোবিন্দের ধোসা বাড়ি বসেই পেয়ে যাবেন।

এখানেই শেষ নয়, লখনউয়ের দস্তরখান রেস্তোরাঁর বিখ্যাত মটন গলৌটি কাবাব, কালি মির্চ চিকেন, মুঘল বিরিয়ানি বা টুন্দে কাবাব অথবা অমৃতসরের কেশর কা ধাবার প্রসিদ্ধ রাজমা মশালা, পনির পরোটা, জয়পুরের পেঁয়াজ কচুরি বা দিল্লির করিমের মোগলাই খানা সবই আপনার সাধ্যের মধ্যে। এক ক্লিকেই মুশকিল আসান। আসল রেস্টুরেন্টে যা দাম সেই একই দামে ঘরে বসে পেয়ে যাবেন দুর্দান্ত সব খাবার। শুধু একটু গরম করে নিলেই চলবে।

করোনা ভাইরাস যতই দাপট দেখাক না কেন, খাদ্য রসিক বাঙালি মনমুগ্ধকর অন্য রাজ্যের ভাল খাবার চেখে দেখবে না তা কি হয়! টেস্টেস টু প্লেট বা t2p নামে একটি ডেলিভারি সংস্থা এই দুর্দান্ত সব খাবারের সম্ভার আপনাদের জন্য হাজির করেছে। এই সংস্থার সিইও জ্ঞান কুমার সিং জানান, "www.tastes2plate.com এই সাইটে একবার শুধু ঢুকে দেখতে হবে, তারপরে ভোজনরসিক বাঙালির আর পিছনে ফিরে তাকাতে হবে না, অর্ডার দিতে বাধ্য। কারণ আমরা আসল রেস্টুরেন্টের যা দাম, সেই একই দামে শুধুমাত্র সামান্য ডেলিভারি চার্জ এবং প্যাকেজিং চার্জ হিসাবে অতিরিক্ত কিছু টাকা নেওয়া হবে।"

জ্ঞান কুমার সিং জানিয়েছেন, এখানে দু'জনের হায়দ্রাবাদের মাটন বিরিয়ানি খেতে খরচ হবে মাত্র ৩২০ টাকা। এখানে সমস্ত খাবারের জিনিসই কেজি দরে বিক্রি হবে। অত্যন্ত কম মূল্যে ভারতের বিভিন্ন নামিদামি রেস্টুরেন্টের বিখ্যাত সব খাবার আমরা তুলে দেবে উপভোক্তাদের কাছে। যে কোন রেস্টুরেন্টের খাবারের আমরা এমন ভাবে প্যাকেজিং করছি, যাতে স্বাদ গন্ধের কোনও রকম পরিবর্তন হবে না। তবে ক্রেতাদের ন্যূনতম ১২ ঘণ্টা আগে খাবারের অর্ডার করতে হবে আর খাবার পাবার পর ২৪ ঘন্টা পর্যন্ত তার কোনো রকম সমস্যা হবে না।"

ঘরে বসেই লখনউয়ের করিমের বিরিয়ানী বা কাবাব, গোয়ার মনমুগ্ধকর সি ফুড, মুম্বইয়ের নামিদামী রেস্তরাঁর লোভনীয় খাবার সব এখন থেকে হাতের মুঠোয়। অন্যদিকে, কলকাতার নামী দামী মিষ্টির দোকানের মিষ্টি একইভাবে দেশের অন্যান্য রাজ্য পাঠানো হবে এই সংস্থার মাধ্যমে। গাঙ্গুরাম, ভীম নাগ, নবীন চন্দ্র দাস, বলরাম মল্লিক-সহ বিভিন্ন দোকানের দুর্দান্ত সব মিষ্টি অন্য রাজ্যের মানুষ একই দাম দিয়ে খেতে পারবেন।

ABHIJIT CHANDA

Published by: Shubhagata Dey
First published: November 12, 2020, 2:22 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर