corona virus btn
corona virus btn
Loading

মুল্যব্যান পেঁয়াজ, পেঁয়াজির দাম বাড়িয়েও লাভ দেখছেন না শতবর্ষ প্রাচীন তেলেভাজার দোকান

মুল্যব্যান পেঁয়াজ, পেঁয়াজির দাম বাড়িয়েও লাভ দেখছেন না শতবর্ষ প্রাচীন তেলেভাজার দোকান
পেঁয়াজির দাম - ৭ টাকা থেকে ৮ টাকা, তবুও লাভ হচ্ছেনা দেখে

শতবর্ষ পুরনো এই দোকানে প্রতিদিন এক মন অর্থাৎ ৪০ কেজি পেঁয়াজের পেঁয়াজি ভাজা হত। গত কয়েকদিন থেকে তা কমিয়ে ২০ কেজি করা হয়েছে।

  • Share this:

BISWAJIT SAHA #কলকাতা: পেঁয়াজের দাম এর প্রভাব কলকাতার শতবর্ষ প্রাচীন বিখ্যাত পেঁয়াজির দোকানেও। ১৫৮ বিধান সরণির এই দোকানে ২০১৬ সালের পর এক টাকা বাড়ল পেঁয়াজির দাম। ১০২ বছরের লক্ষীনারায়ন সাউ এন্ড সন্স এর দোকানে পেঁয়াজির দাম এখন ৮ টাকা। ২০১৬ সালে ৬ টাকা থেকে বেড়ে ৭ টাকা হয়েছিল। ৩ বছর পর এক টাকা বাড়ল পেঁয়াজির দাম।

শুধু দামে নয় পরিমাণেও কমানো হয়েছে পেঁয়াজি। শতবর্ষ পুরনো এই দোকানে প্রতিদিন এক মন অর্থাৎ ৪০ কেজি পেঁয়াজের পেঁয়াজি ভাজা হত। গত কয়েকদিন থেকে তা কমিয়ে ২০ কেজি করা হয়েছে। অর্থাৎ প্রোডাকশন অর্ধেক কমিয়ে দেওয়া হয়েছে। ১৯১৮ সালের খেদু সাউ উত্তর কলকাতার কর্নওয়ালিস স্ট্রিটে তেলেভাজার দোকান দেন। ছেলে লক্ষ্মী নারায়ণ সাউ এর নামে দোকানের নাম রাখেন। সেই দোকান আজ ১০২ বছর ঐতিহ্য ধরে এগিয়ে চলেছে। সবথেকে কথিত আছে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু এই দোকানে এসে তেলেভাজা খেয়েছেন। shop 1 দোকানের প্রতিষ্ঠাতা থেকে শুরু করে পরবর্তী প্রজন্ম সবাই নেতাজির ভক্ত। সেই নেতাজি ভক্তি উদাহরণ হিসেবে লক্ষীনারায়নপুর চালু করেন ২৩শে জানুয়ারি বিনামূল্যে তেলেভাজা বিতরণ। স্বাধীনতার আগে নেতাজির জন্ম দিনের তেলেভাজা বিতরণ করা হতো লুকিয়ে। আর এখন প্রকাশ্যেই নেতাজির জন্মদিনে তেলেভাজা বিতরণ করা হয়। পেঁয়াজের দামতো আর ছেড়ে কথা বলে না। তাই পেঁয়াজের দামের আঁচ লেগেছে শতবর্ষ প্রাচীন এই দোকাাও। দীর্ঘ ১৫-১৬ বছর ধরে এই দোকানের তেলেভাজা খান স্বাধীন চন্দ্র ঘোষ। আজও হাতিবাগান এসেছিলেন তাই কিছু তেলেভাজা নিয়ে গেলেন সঙ্গে পেঁয়াজি তবে পরিমাণে অল্প। বললেন, 'বাড়িতে পেঁয়াজ এর পরিমাণ অনেক কমিয়ে দেওয়া হয়েছে তাই পেঁয়াজের স্বাদ পেঁয়াজি তেই নিতে হচ্ছে।' shop 2 শতবর্ষ প্রাচীন দোকানের তৃতীয় প্রজন্ম এবং কলকাতা পুরসভার ১৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মোহন গুপ্ত বলেন, 'বাধ্য হয়েই পেঁয়াজির দাম বাড়ানোর সিধান্ত নিয়েছি। ৬০ টাকার পেঁয়াজ এখন প্রায় ১৫০ টাকা। পেঁয়াজের দাম কমলে পেঁয়াজির দাম আবার কমিয়ে দেওয়া হবে। তবে এখন আর পেঁয়াজি থেকে লাভ হচ্ছে না তবু ক্রেতাদের বঞ্চিত করবো না বলেই পেঁয়াজি ভাজছি আমরা।' চতুর্থ প্রজন্মের বিক্রেতা সুধাংশু গুপ্ত জানান, 'প্রতিদিন এক মন অর্থাৎ ৪০ কেজি পেঁয়াজি ভাজা হত। এখন অর্ধেক কমিয়ে ২০ কেজি পেঁয়াজ কাটা হচ্ছে।' অনেকদিন আগের কথা এক সময় পেঁয়াজের দাম অনেকটাই বেড়ে ছিল। তেলেভাজার দোকানে পেঁয়াজের সঙ্গে বাঁধাকপি মিশিয়ে পিয়াজি তৈরি করা হতো। সেই সময়ে কোয়ালিটি মেনটেইন করে লক্ষীনারায়ন সাউ এন্ড সন্স তেলেভাজা বিক্রি করেছে। ৩ টাকা থেকে সে সময় ৫০ পয়সা বাড়ানো হয়েছিল পেঁয়াজির দাম। আর তাতেই শোরগোল পড়ে গিয়েছিল উত্তর কলকাতায়।

First published: December 4, 2019, 11:22 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर