corona virus btn
corona virus btn
Loading

শিশুপাচার কাণ্ডে গ্রেফতার ব্রহ্মচারী শিশু সেবা প্রতিষ্ঠানের চিকিৎসক নিত্যানন্দ বিশ্বাস

শিশুপাচার কাণ্ডে গ্রেফতার ব্রহ্মচারী শিশু সেবা প্রতিষ্ঠানের চিকিৎসক নিত্যানন্দ বিশ্বাস

শিশুপাচারকাণ্ডে চাঞ্ল্যকর তথ্য। ইটিভি নিউজ বাংলার এক্সক্লুসিভ রিপোর্টের জেরে সিআইডির জালে কলকাতার আরও এক চিকিৎসক ।

  • Share this:

#কলকাতা: শিশুপাচারকাণ্ডে চাঞ্ল্যকর তথ্য। ইটিভি নিউজ বাংলার এক্সক্লুসিভ রিপোর্টের জেরে সিআইডির জালে কলকাতার আরও এক চিকিৎসক । আজ সকালে বেহালা মোহনানন্দ ব্রহ্মচারী শিশু সেবা প্রতিষ্ঠানের চিকিৎসক নিত্যানন্দ বিশ্বাসকে গ্রেফতার করে সিআইডি। গতকালই ইটিভিতে এই প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে শিশু বদলের অভিযোগ আনেন সুঁটিয়ার সরকার দম্পতি। বিষয়টি সিআইডিতেও জানান তাঁরা। ২০১৪-র সেই ঘটনার তদন্তে নেমে আজ নিত্যানন্দকে গ্রেফতার করে সিআইডি। ইটিভি নিউজ বাংলার অন্তর্তদন্তে হাতে এল সদ্যজাতের ভুয়ো ডেথ সার্টিফিকেট।

মঙ্গলবার ইটিভি নিউজ বাংলায় এমনই অভিযোগ করেন উত্তর চব্বিশ পরগনার সুঁটিয়ার সরকার দম্পতি। সিআইডির কাছেও বিষয়টি জানান তাঁরা। সেই ঘটনার তদন্তে নেমে বুধবার বেহালার মোহনানন্দ শিশু সেবা প্রতিষ্ঠানের চিকিৎসক নিত্যানন্দ বিশ্বাসকে গ্রেফতার করে সিআইডি।

২০১৪র ১৪ জুলাই বাদুড়িয়ার মাতৃমঙ্গল নার্সিংহোমে কন্যাসন্তান প্রসব করেন কাঁকন। সোহন নার্সিংহোমের হাতুড়ে ডাক্তার তপন বিশ্বাস তাঁদের জানায়, সদ্যজাতের হার্টে ফুটো আছে। তার কথা মত শিশুটিকে আনা হয় বেহালার মোহনানন্দ ব্রহ্মচারী শিশু সেবা প্রতিষ্ঠানে। সেখানে অপারেশনের পর শিশু মারা গেছে বলে জানানো হয়। সন্দেহ হওয়ায় সিআইডির কাছে অভিযোগ জানান তাঁরা।

এদিকে ইটিভির অন্তর্তদন্তে উঠে এল ২০১৪-র ১৪ ই জুলাই সরকার দম্পতির সদ্যজাতকে মোহনানন্দে ভরতির প্রমাণ। খোঁজ মিলল ভুয়ো ডেথ সার্টিফিকেটও।

১৪ জুলাই চিকিৎসক নিত্যানন্দের অধীনে ভরতি করা হয়েছে সরকার দম্পতির সদ্যজাতকে ৷ ১৫ জুলাই মৃত্যু হয় সদ্যজাতর ৷ ডেথ সার্টিফিকেটে সই আছে হাসপাতালের সেক্রেটারি সুনীল নাগের

প্রতি মঙ্গল ও বুধ হাসপাতালে আরএমও হিসেবে থাকতেন নিত্যানন্দ। শেষ এসেছিলেন পয়লা সেপ্টেম্বর। কেন আরএমর আধীনে রোগী ভরতি হত তা খতিয়ে দেখছেন তদন্তকারীরা।

বেহালার রবীন্দ্রনগর সুকান্ত সরণীতে বিশাল বাড়ি নিত্যানন্দের। দশ-বারো বছর ধরে এলাকায় আছেন তিনি। বাড়ির নীচেই চেম্বার। দুবেলা রোগীর ভিড়। এছাড়াও বেহালায় বালানন্দ ও মোহনানন্দ শিশু সেবা প্রতিষ্ঠানে নিয়মিত রোগী দেখতেন এমবিবিএস এই ডাক্তার। যদিও ডাক্তার হিসেবে খুব একটা সুখ্যাতি ছিল না কোনওদিনও।

ধৃত চিকিৎসককে এদিন বসিরহাট আদালতে পেশ করা হয়।

First published: November 30, 2016, 5:33 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर