corona virus btn
corona virus btn
Loading

পুরনো তৃণমূলীরা কাঠগড়ায় দাঁড় করালেন কাউন্সিলর ও স্থানীয় নেতৃত্বকে

পুরনো তৃণমূলীরা কাঠগড়ায় দাঁড় করালেন কাউন্সিলর ও স্থানীয় নেতৃত্বকে
  • Share this:

#কলকাতা: ওরা সবাই পুরোনো দিনের সদস্য। কেউ কেউ ভাবেনও এই নিয়ে একদিন দল ক্ষমতায় আসবে। তবু একদিকে সিপিআইএম বিরোধিতা আর অন্যদিকে মমতা বন্দোপাধ্যায়েরর প্রতি তীব্র আকর্ষণে দল করেছিলেন তারা। আজও করছেন।

দলের বিধায়কদের ডাকে রবিবার সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে এসে ওদের কেউ আপ্লুত,  কেউ বা আবার ক্ষোভ উগড়ে দিলেন। দলের শীর্ষ এক নেতার ডাকে পুরোনো সদস্যরা জানিয়ে গেলেন

১.কাউন্সিলর রা তাদের টিমে নেয় না ।

২.নতুন রা ঘিরে ফেলেছে স্থানীয় নেতাদের। দুর্দিনের সদস্যদের প্রাধান্য কম

৩.এখনও অন্তর থেকে দল করি। কিন্তু এই বিভাজন দলকে বহু আসনে ক্ষতিগ্রস্ত করবে।

৪.সম্মাননা অনুষ্ঠান খুব ভাল। কিন্তু একদিন করে কী হবে। সারাবছর দলে সম্মান থাকবে কি ?

এভাবেই বক্তব্য রাখতে গিয়ে নিজেদের মনোভাব বুঝিয়ে গেলেন পুরনো তৃণমুলীরা। কোথাও তাদের আটকানো হলো না। মন খুলে বক্তব্য রাখার সুযোগ দেওয়া হল নেতাদের তরফে। পুরনো কর্মীদের ক্ষোভ কোথায় তা বিলক্ষণ জানতেন বিধায়কদের বড় অংশ। তাই এদিনের সম্মাননা জ্ঞাপন সুচীতে বহু জায়গায় নিমন্ত্রিত ছিলেন না কাউন্সিলররা। কোথাও পুরনো ও প্রবীন সদস্যদের সম্মাননার পর কাউন্সিলরদের নিয়ে আলাদা করে বসলেন বিধায়করা।

এক প্রবীণ মন্ত্রীর কথায় "এ ধরনের প্রোগ্রাম খুব জরুরি,  এতে জমে থাকা ক্ষোভৃগুলো অন্তত বেড়িয়ে আসে। সম্মান দিয়ে বোঝানো যায় , তাদের সমস্যার মূলে কোন স্থানীয় নেতা থাকতে পারে। কিন্তু দলের কাছে তারা ব্রাত্য নয়। " আরেক শীর্ষ নেতা এদিনের সম্মাননা অনুষ্ঠানে ভাষণ রাখতে গিয়ে স্পষ্ট বলেছেন "আপনাদের মমতা বন্দোপাধ্যায় কোনও দিনই নিস্ক্রিয় থাকতে বলেন নি। কারোর ওপর রাগ করে মমতাকে ভুল বুঝবেন না ৷"

এদিন বেশীরভাগ জায়গায় মধ্যাহ্ন ভোজনের আয়োজন করা হয়। রীতিমতো মাংস ভাত খাইয়ে হাতে শংসাপত্র তুলে দেওয়া হয়। শংসাপত্র হাতে নিয়ে বেড়িয়ে যেতে যেতে অনেককেই বলতে শোনা যায়  "সবই তো হলো,  এলাকায় কাজে প্রাধান্য পাব কি ?  " যদিও  নেতারা মনে করছেন ক্ষোভ প্রশমনের প্রক্রিয়া শুরু হলো। এদিন সব অনুসঠানেই হাজির ছিলেন টিম পিকে-র সদস্যরা। মোবাইলে রীতিমতো নোট নিতে ও দেখা গেল তাদের।

SOURAV GUHA

Published by: Elina Datta
First published: March 15, 2020, 9:45 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर