• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • NUSRAT JAHAN TMC REACTION ON BJP MP SANGHAMITRA MAURYA SEEKING ACTION AGAINST TMC MP IN PARLIAMENT SANJ

Nusrat Jahan: 'সংসদেও শাখা-সিঁদুরের আলোচনা দুর্ভাগ্যজনক', নুসরতের সদস্য পদ খারিজের আবেদন প্রসঙ্গে সরব তৃণমূল!

শাখা-সিঁদুর বিতর্ক Photo : File Photo

Nusrat Jahan Controversy: তৃণমূল সাংসদ নুসরত জাহানের (Nusrat Jahan) লোকসভার সদস্যপদ খারিজের দাবি প্রসঙ্গ এভাবেই বিজেপিকে বিঁধলেন তৃণমূলের সৌগত রায় (Saugata Roy)। সরব হয়েছেন অপর সাংসদ সুখেন্দু শেখর রায়ও (Sukhendu Sekhar Roy)।

  • Share this:

    #কলকাতা : "বিজেপির লোকেরা আজকাল সিঁদুর-শাখা নিয়েও ঝামেলা করছেন।" তৃণমূল সাংসদ নুসরত জাহানের (Nusrat Jahan) লোকসভার সদস্যপদ খারিজের দাবি প্রসঙ্গ এভাবেই বিজেপিকে বিঁধলেন তৃণমূলের সৌগত রায় (Saugata Roy)। সরব হয়েছেন অপর সাংসদ সুখেন্দু শেখর রায়ও (Sukhendu Sekhar Roy)। তাঁর কথায়, "বিজেপির অবস্থা মেহের আলির মতো হয়ে গেছে। একদিকে বলছে তফাৎ যাও। একদিকে বলছে সব ঝুটা হ্যায়।"

    উল্লেখ্য, বিবাহ সম্পর্কে বিভ্রান্তিকর তথ্য দেওয়ার জন্য নুসরতের সাংসদ পদ খারিজের আবেদন জানিয়েছেন বিজেপি সাংসদ সংঘমিত্রা মৌর্য (Sanghamitra Mourya)। লোকসভার স্পিকার ওম বিড়লাকে চিঠি দিয়ে সংঘমিত্রা জানিয়েছেন, এই বিষয়ে এথিকস কমিটির সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত। সংঘমিত্রার মতে, নুসরত (Nusrat Jahan) যা করেছেন তা এক কথায় অনৈতিক ও বেআইনি। এই কারণে তাঁর সাংসদ পদ খারিজ হওয়া দরকার। তাঁর অভিযোগে মৌর্য নুসরতের সাংসদ পদ নন-এস্ট বলে ব্যাখ্যা করছেন। নন এস্ট এই আইনি পরিভাষাটি বোঝায় চুক্তিলঙ্ঘনকারী কোনও পদক্ষেপ। গত ১৯ জুন স্পিকারকে চিঠি দেন সংঘমিত্রা মৌর্য। চিঠির সঙ্গে তিনি জুড়ে দেন নুসরতের শপথের প্রতিলিপিও যেখানে স্পষ্টভাবেই বলা রয়েছে তাঁর স্বামীর নাম নিখিল জৈন।

    তবে মৌর্যের এই অভিযোগের পরে থেমে থাকেনি তৃণমূল শিবিরও। এদিন দলের তরফে সৌগত রায় বলেন, "স্পিকার হল সুপ্রিম। এই বিষয়ে স্পিকারই সিদ্ধান্ত নেবেন। তবে লোকসভার স্পিকার কবে সিদ্ধান্ত নেবেন সেটা দেখার। অন্যদিকে সাংসদ সুখেন্দু শেখর বলেন, বাংলা জয় করতে না পেরে প্রতিদিন বিচ্ছিন্নতাবাদীদের সঙ্গে নিয়ে বাংলা ভাগ করতে চাইছে বিজেপি। মানুষ তা মেনে নেবে না। তিনি আরও বলেন, "এটা ভীষণ দুর্ভাগ্যজনক যে সংসদেও এখন শাঁখা, সিঁদূর নিয়ে আলোচনা হচ্ছে।"

    প্রসঙ্গত, নুসরত জাহানের সদস্যপদ বাতিলের আবেদনে সংঘমিত্রা মৌর্য চিঠিতে লিখেছেন গণমাধ্যমে নুসরত নিজের বৈবাহিক সম্পর্ক বিষয়ে যা বলেছেন তা লোকসভায় শপথ নেওয়ার সময় তিনি যে তথ্য দিয়েছিলেন তার ঠিক উল্টো। এক্ষেত্রে তাঁর সদস্যপদটি আইনের চোখে খারিজযোগ্য। সংঘমিত্রা মনে করিয়েছেন ২০১৯ সালের ২৫ জুন নুসরত জাহান শপথ নেওয়ার সময়ে নিজের পরিচয় দিয়েছিলেন নুসরত জাহান রুহি জইন। নববধূর বেশেই তিনি হাজির হয়েছিলেন সংসদে। এমনকি সেই সময় সিঁদুর পরার কারণে তাঁকে একদল মৌলবাদী আক্রমণ করেছিল বলেও মনে করিয়েছেন সংঘমিত্রা। তাঁর কথায়, সে সময়ে সব দলের সাংসদরা নুসরাতের পাশে ছিল। এখানেই শেষ নয়, সংঘমিত্রা মনে করাচ্ছেন, নুসরতের বিয়ের অনুষ্ঠানে স্বয়ং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় গিয়েছিলেন। পরে এএনআই-কে তিনি আরও বলেন, কারও ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে নাক গলানো উচিত নয়। কিন্তু তিনি সম্প্রতি মিডিয়ায় যা বলেছেন তার অর্থ এই যে সংসদে তিনি মিথ্যা কথা বলেছেন। এখন লোকসভায় বেআইনি এক্তিয়ার বা মিথ্যে কথা বললে আসলে সংসদ এবং তার প্রতিনিধিদের সম্পর্কে মানুষের মনে ভুল ধারণা তৈরি করে। সেই কারণেই তাঁর এই পদক্ষেপ বলে জানাচ্ছেন সংঘমিত্রা।

    Published by:Sanjukta Sarkar
    First published: