কলকাতা

corona virus btn
corona virus btn
Loading

শিয়ালদহ ডিভিশনে বাড়ছে লোকাল ট্রেন, আগামিকাল থেকে চলবে ৬১৩টি ট্রেন

শিয়ালদহ ডিভিশনে বাড়ছে লোকাল ট্রেন, আগামিকাল থেকে চলবে ৬১৩টি ট্রেন

সকাল ৮ টা থেকে ১১টা ও বিকেল ৪ টে থেকে সন্ধ্যা ৭টা অবধি চলবে ঘন ঘন ট্রেন।

  • Share this:

#কলকাতা: বাড়ছে শিয়ালদহ ডিভিশনে ট্রেনের সংখ্যা। আগামিকাল থেকে বাড়ানো হচ্ছে ট্রেন। শিয়ালদহ উত্তর, দক্ষিণ, মেন,  শাখায় বাড়ছে ট্রেন। সপ্তাহের প্রথম কাজের দিন থেকেই ট্রেন চলবে ৬১৩টি। বিশেষ করে শিয়ালদহ-কৃষ্ণনগর-লালগোলা সেকশনে বাড়ানো হচ্ছে ট্রেন। শিয়ালদহ ডিভিশন সূত্রে খবর, অফিস টাইমে ট্রেনের সংখ্যা বাড়ানো হবে। সকাল ৮ টা থেকে ১১টা ও বিকেল ৪ টে থেকে সন্ধ্যা ৭টা অবধি চলবে ঘন ঘন ট্রেন। বিশেষ করে বড় বড় স্টেশনে ভিড়ের কথা চিন্তা করেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে এখনই লেডিজ স্পেশাল বা মাতৃভূমি চালাতে রাজি নয় রেল। আপাতত পরিষেবা বেশি ট্রেন চালিয়ে স্বাভাবিক করতে চায় রেল।

অন্যদিকে দক্ষিণ-পূর্ব রেল, ৮১টি ট্রেনের বদলে ৯৫টি চালাচ্ছে। এই বাড়তি ট্রেন সকাল, বিকেল অফিস টাইমে দেওয়া হল। আগামী ১১ নভেম্বর  থেকে রাজ্যে শুরু হয়েছে লোকাল ট্রেন চলাচল। দক্ষিণ পূর্ব রেল প্রথমেই সিদ্ধান্ত নিয়েছিল ৪০ জোড়া অর্থাৎ ৮১ খানা ট্রেন চালাবে তারা। হাওড়া থেকে খড়গপুর, মেদিনীপুর, পাঁশকুড়া, আমতা শাখায় শুরু হয়েছে লোকাল ট্রেন পরিষেবা। এছাড়া শালিমার, সাঁতরাগাছি, দিঘা থেকেও চালানো হচ্ছে বেশ কয়েকটি লোকাল। যাত্রী সংখ্যা বেড়েছে তাই ট্রেনের সংখ্যা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিল দক্ষিণ পূর্ব রেল।

দক্ষিণ পূর্ব রেল সূত্রে খবর, হাওড়া থেকে প্রথম ট্রেন ছাড়বে ভোর রাত ২:৪০ মিনিটে। এই ট্রেনটি যাবে মেদিনীপুর অবধি। হাওড়া থেকে মেদিনীপুর যাওয়ার জন্যে শেষ ট্রেন ছাড়বে রাত ২০:১৫ মিনিটে। খড়গপুর যাওয়ার জন্যে শেষ ট্রেন ছাড়বে রাত ২০:৪৮ মিনিটে। হাওড়া আসার জন্যে খড়গপুর থেকে প্রথম ট্রেন ছাড়বে রাত ৩:০০ মিনিটে। পাঁশকুড়া থেকে প্রথম ট্রেন ছাড়বে রাত ৩:০৫ মিনিটে। মেচেদা থেকে প্রথম ট্রেন ছাড়বে রাত ৪:২০ মিনিটে। মেদিনীপুর থেকে হাওড়া আসার শেষ ট্রেন ছাড়বে ১৯:১৫ মিনিটে। পাঁশকুড়া থেকে শেষ ট্রেন ছাড়বে রাত ২০:১৮ মিনিটে। দক্ষিণ পূর্ব রেল প্রথমে সিদ্ধান্ত নিয়েছিল তারা ৩৪ টি লোকাল ট্রেন চালাবে। পরবর্তী সময়ে যাত্রী চাহিদার কথা মাথায় রেখে, একই সাথে কোভিড প্রটোকল মেনে তারা ৮১টি লোকাল ট্রেন চালানোর সিদ্ধান্ত নেয়।

সূত্রের খবর, হাওড়া ও মেদিনীপুরের মধ্যে ১৩ জোড়া অর্থাৎ ২৬টি ট্রেন চলবে। হাওড়া ও খড়গপুরের মধ্যে ৪ জোড়া অর্থাৎ ৮টি ট্রেন চলবে। হাওড়া থেকে পাঁশকুড়ার মধ্যে ৯ জোড়া অর্থাৎ ১৮টি ট্রেন চলবে।হাওড়া থেকে মেচেদার মধ্যে ৫ জোড়া অর্থাৎ ১০ জোড়া ট্রেন চলবে।ইতিমধ্যেই দক্ষিণ পূর্ব রেলের খড়গপুর ডিভিশন প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে। বিভিন্ন ছোট, মাঝারি স্টেশনের ঢোকা-বেরনোর গেট পরীক্ষা করা হচ্ছে। একাধিক জায়গায় বসানো হচ্ছে থারমাল স্ক্যানার। জি আর পি ও আর পি এফ যৌথ সহযোগিতা মাধ্যমে একাধিকবার পরীক্ষা চালাচ্ছেন। নজর রাখা হচ্ছে যেন কোনও ভাবেই হকার ভেতরে প্রবেশ করতে না পারে। এছাড়া মাস্ক পরে আছেন কিনা তা দেখার জন্য নজরদারি রাখা হচ্ছে সিসি ক্যামেরায়। দক্ষিণ পূর্ব রেল সূত্রে খবর, আগামী কয়েকদিনে ট্রেনের সংখ্যা আরও বাড়ানো হবে।আগামী সপ্তাহে বাকি অংশে লোকাল বা প্যাসেঞ্জার ট্রেন চালানো নিয়ে রেল-রাজ্য বৈঠক আছে। আশা করা হচ্ছে কাটোয়া-আজিমগঞ্জ, রামপুরহাট-বর্ধমান, আসানসোল-বর্ধমান শাখায় ট্রেন চলাচল আগামী মাসের শুরু থেকেই চালু হয়ে যাবে।

Published by: Pooja Basu
First published: November 22, 2020, 10:00 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर