১২ মাসে বিচার শুরু, এনআরএস কুকুর কাণ্ডের চার্জগঠন

১২ মাসে বিচার শুরু, এনআরএস কুকুর কাণ্ডের চার্জগঠন
representative image

জড়তা কাটিয়ে সোমবার গতি পেল নীলরতন সরকার হাসপাতালে সারমেয় শাবক মৃত্যুর বিচার

  • Share this:

#কলকাতা: ১২ মাসে বিচার শুরু। এনআরএস কুকুর কাণ্ডের চার্জগঠন।জড়তা কাটিয়ে সোমবার গতি পেল নীলরতন সরকার হাসপাতালে সারমেয় শাবক মৃত্যুর বিচার। ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হবে বিচার। সোমবার শিয়ালদহ আদালতের বিচারক শুভদীপ রায় মামলার চার্জ গঠন করে বিচারের দিন নির্দিষ্ট করে দিয়েছেন।

 এর আগে দুবার চার্জ গঠনের শুনানি থেকে নিজেদের সরিয়ে রেখেছিল অভিযুক্ত নার্সিং ছাত্রীরা। এদিন আদালতে গরহাজির থাকলে বিপদ অনিবার্য,  গ্রেফতারি পরোয়ানা এড়াতে তাই এদিন আদালতের প্রথমার্ধেই হাজির হয়ে যান অভিযুক্তরা। অক্টোবর ২০১৯, কুকুর মৃত্যু কাণ্ডের চার্জশিট দেয় এন্টালি থানার পুলিশ। ভারতীয় দণ্ডবিধির ৪২৯, (পশুহত্যা) এবং ২০১ (তথ্য প্রমাণ লোপাট) দুই ধারায় মামলা দায়ের হয়। ১৯ জন সাক্ষী থাকলেও মামলার অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অংশ একটি ভিডিও ফুটেজ। যে ফুটেছে ২০১৯-এর শুরুতে নজরে আসে কুকুর ছানাদের পিটিয়ে মারার ছবি। পশু প্রেমীদের প্রতিবাদ, সোশ্যাল মিডিয়ায় চর্চা... সব মিলিয়ে কলকাতা পুলিশ মামলা রুজু করে এবং গ্রেফতারও করে দুই নার্সিং ছাত্রীকে।

অভিযুক্ত মৌটুসি মণ্ডল এবং সোমা বর্মন উত্তরবঙ্গ থেকে নার্সিং নিয়ে পড়াশোনা করে ফিরেছে কিছুদিন আগে। যদিও এদিন শিয়ালদহ আদালতে এজলাসে দাঁড়িয়ে দুই অভিযুক্তই পুলিশের চার্জশিটে আনা অভিযোগ অস্বীকার করেছে। সরকারি আইনজীবী অরূপ চক্রবর্তীর কথায়,  "অভিযুক্তদের বারবার গরহাজিরায় মামলা দীর্ঘসূত্রিতায় ঢেকেছে। ভিডিও ফুটেজের পাশাপাশি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের অন্তর্তদন্ত রিপোর্ট মামলার মোড় ঘুরিয়ে দেওয়ার জন্য যথেষ্ট।"

বিচারে পুলিশ অভিযোগ প্রমাণ করতে পারলে, ৫ বছরের সশ্রম কারাদণ্ডের সঙ্গে জরিমানার টাকাও গুনতে হবে দুই অভিযুক্তকে।  ১২ মাস পর এনআরএস কুকুর কাণ্ডের বিচার শুরু হচ্ছে। এই ঘটনা সমাজকে কি সচেতন করেছে ?  গত এক বছরে কোনও কুকুর শাবকের কি মৃত্যু ঘটেনি?  নাকি এনআরএস-এর মত ভিডিও ফুটেজ-এর অভাবে তা আড়ালে রয়ে গিয়েছে ? পশু প্রেমীরা অবশ্য বলছেন, যে দেশে মানুষকে পিটিয়ে মারা হয় সেখানে পশুদের খবর রাখে কে !

First published: 09:10:29 PM Jan 13, 2020
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर