সিঙ্গুর আন্দোলনের পর এবার কন্যাশ্রীর স্বীকৃতিও জায়গা পাবে স্কুল সিলেবাসে

সিঙ্গুর আন্দোলনের পর এবার কন্যাশ্রীর স্বীকৃতিও জায়গা পাবে স্কুল সিলেবাসে

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Jun 26, 2017 03:26 PM IST
সিঙ্গুর আন্দোলনের পর এবার কন্যাশ্রীর স্বীকৃতিও জায়গা পাবে স্কুল সিলেবাসে
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Jun 26, 2017 03:26 PM IST

#কলকাতা: রাষ্ট্রসংঘের মঞ্চে ‘কন্যাশ্রী’র স্বীকৃতি ৷ রাষ্ট্রসঙ্ঘের মঞ্চে বিশেষভাবে সম্মানিত ও প্রশংসিত রাজ্য সরকারের কন্যাশ্রী প্রকল্প ৷ ৬৩টি দেশের ১৬৭টি প্রকল্পের মধ্যে সেরা হয়েছে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের কন্যাশ্রী। এই প্রকল্প যার মস্তিষ্ক প্রসূত সেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাতেই কন্যাশ্রী প্রকল্পের জন্য পুরস্কার তুলে দিয়েছে রাষ্ট্রসংঘ ৷

২৩ জুন রাষ্ট্রসঙ্ঘের পাবলিক সার্ভিস ডে’র অনুষ্ঠানে সম্মানিত করা হয় বাংলার এই প্রকল্পকে ৷ এরপরই কন্যাশ্রীর স্বীকৃতিকে স্কুল পাঠ্যক্রমে অন্তর্ভুক্ত করার জন্য সিলেবাস কমিটির কাছে প্রস্তাব দেয় রাজ্য সরকার ৷

উল্লেখ্য, ইতিমধ্যেই সিলেবাসে অন্তর্ভুক্ত ‘কন্যাশ্রী’ ৷ তবে এবার রাষ্ট্রসংঘের এই বিশেষ স্বীকৃতির কথা তাতে যুক্ত করার জন্য প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে ৷ বুধবার এই প্রস্তাব নিয়ে আলোচনার জন্য বৈঠকে বসছে সিলেবাস কমিটি ৷ কোথায় কোথায় কন্যশ্রীর উল্লেখ থাকবে সেই নিয়ে আলোচনা হবে ওই বৈঠকে ৷ আগামী শিক্ষাবর্ষ থেকেই পাঠ্যক্রমে থাকবে রাষ্ট্রসঙ্ঘে কন্যাশ্রীর স্বীকৃতির কাহিনী ৷

নাবালিকা কন্যাদের পড়াশুনা থামিয়ে বিয়ে দেওয়ার প্রবণতা সম্পূর্ণ বন্ধ করার উদ্দেশ্যেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্যোগে শুরু হয়েছিল কন্যাশ্রী প্রকল্প ৷ এই কবছরে এই প্রকল্পের কারণেই স্কুলছুট পড়ুয়াদের সংখ্যা অনেক কমেছে ৷ ইতিমধ্যেই প্রায় ৪০ লক্ষ স্কুল ছাত্রীদের স্কলারশিপ দেওয়া হয়েছে ৷

যাদের পরিবারের বার্ষিক আয় ১ লাখ ২০ হাজার টাকার কম, সেই পরিবারের মেয়েদের কন্যাশ্রী প্রকল্পের আওতায় স্কলারশিপ দেয় রাজ্য সরকার ৷ রাজ্যের স্কুলগুলির মাধ্যমে সপ্তম ও অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রীদের নাম সরকারি এই প্রকল্পে নথিভুক্ত করা হয় ৷ ১৮ বছর হওয়ার পর স্কুলের গন্ডি পেরোলে মেয়েদের উচ্চশিক্ষার জন্য সরকারের তরফ থেকে এককালীন ২৫ হাজার টাকা অথবা বার্ষিক ৫০০ টাকা দেওয়া হয় ৷ গড়ে প্রতিবছর ১৮ লক্ষ ছাত্রী বার্ষিক স্কলারশিপ ও ৩.৫ লাখ পড়ুয়া এককালীন স্কলারশিপ পায় ৷

First published: 03:26:46 PM Jun 26, 2017
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर