আহত মমতাকে নিয়ে চুপ মোদি-শাহ, আজ নন্দীগ্রাম থেকে মুখ খুলতে পারেন শুভেন্দু

আহত মমতাকে নিয়ে চুপ মোদি-শাহ, আজ নন্দীগ্রাম থেকে মুখ খুলতে পারেন শুভেন্দু

এসএসকেএম-এ স্ট্রেচারে করে কেবিনে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। Photo courtesy- special arrangement

মুখে কুলুপ মমতার একদা সতীর্থ শুভেন্দু অধিকারীরও।

  • Share this:

    #কলকাতা: মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায় আহত হয়েছেন ১২ ঘণ্টার বেশি সময় কেটে গিয়েছে । এসএসকেএম হাসপাতালে তাঁকে খুঁটিয়ে পরীক্ষা করে চিকিৎসক মণিময় বন্দ্যোপাধ্য়ায় জানিয়ে দিয়েছেন, আঘাত গুরুতর। চোট লেগেছে বাঁ পায়ের গোঁড়ালিতে, পায়ের পাতায়, ঘাড়ে মাথায়। এখন ট্রমায় রয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। কিন্তু মমতার আঘাত নিয়ে এখনও একটি শব্দও খরচ করলেন না নরেন্দ্র মোদি, অমিত শাহ। মুখে কুলুপ মমতার একদা সতীর্থ শুভেন্দু অধিকারীরও।

    যদিও আজ দিনভর নন্দীগ্রামে চষে বেড়াবেন  শুভেন্দু অধিকারী। শিবরাত্রি উপলক্ষ্যে  তাঁর সোনাচূড়া, রেওয়াপাড়া, পারুলবাড়ির মন্দিরগুলিতে ঘোরার পরিকল্পনা রয়েছে। রাজনৈতিক মহল মনে করছে, সেখান থেকে রাজনৈতিক ভাবেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অভিযোগের জবাব দেবেন শুভেন্দু অধিকারী।

    বুধসন্ধ্যায় নন্দীগ্রামের বিরুলিয়ায় গাড়ির দরজা খুলে দাঁড়িয়ে স্থানীয় মানুষজনের সঙ্গে কথা বলছিলেন। মমতার অভিযোগ, অতর্কিতেই চার পাঁচজন তাঁর পায়ের ওপর দরজার ধাক্কা দেন। তাতেই আহত হন মমতা। তাঁকে গ্রিন করিডোর করে কলকাতায় নিয়ে আসা হয়। এই পরিস্থিতিতে নতুন করে তরজা শুরু হয় রাজ্য রাজনীতিতে।বিজেপির রাজ্য সভাপতি  দিলীপ ঘোষ বলেন, মমতা নাটক করছে। বিজেপি নেতা অর্জুন সিংয়ের কথায়, 'নিজের ভবানীপুর ছেড়ে নন্দীগ্রামে পালিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। চারিদিক থেকে তাঁকে ব্লক করে রাখা হয়। সেই সমস্ত পুলিশকে সাসপেন্ড করা উচিত। চারজন আইপিএসকে সাসপেন্ড করা উচিত। উনি পুলিশমন্ত্রী, ভূতে এসে তো ধাক্কা দেয়নি। ওঁর কথা মতো মানুষই ধাক্কা দিয়েছে। আমরা মনে করি, সব সময়ের মতো এখনও উনি মিথ্যা কথা বলে সহানুভূতি নেওয়ার চেষ্টা করছেন। নন্দীগ্রামে হারবেন বলে নাটক করছেন মমতা।' বিজেপির মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য অবশ্য অনেকটা সংযত, তৃণমূলের ষড়যন্ত্রের অভিযোগের বিরুদ্ধে উচ্চ পর্যায়ের তদন্ত করার দাবি করেছেন তিনি। বিজেপির পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, হারের সম্ভবনা বুঝতে পেরে আত্মবিশ্বাস হারিয়েছেন মমতা। প্রশ্ন তোলা হচ্ছে এই ঘটনার কোনও প্রত্যক্ষদর্শী নেই কেন ?

    উল্টোদিকে তৃণমূল জোট বাঁধছে দলনেত্রীর অবমাননা তত্ত্বে। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় মধ্যরাতের ট্যুইটে লিখেছেন, উত্তর ফেরানো হবে ২ মে। দফায় দফায় বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন কর্মীরা। সর্বাত্মক প্রতিবাদের পথে হাঁটছেন তৃণমূল নেতারা। এখন দেখার এ বিষয়ে শুভেন্দু অধিকারী ও তাঁর উচ্চতর নেতৃত্বরা কী বলেন।

    Published by:Arka Deb
    First published: