বিল নেই তো কি ! আলোচনা করার কত কি আছে...বিরোধীদের জবাব শাসকের

বিল নেই তো কি ! আলোচনা করার কত কি আছে...বিরোধীদের জবাব শাসকের
  • Share this:

Arup Dutta

#কলকাতা: এ যেন নেই মামার চেয়ে কানামামা ভাল। নাক্কুর বদলে চাক্কু পেলাম টাকডুমাডুম ৷ বিল নেই তো কি! আলোচনা করার কত কি আছে। বিরোধীরা আলোচনা চাইলে এই ভাষাতেই জবাব দিচ্ছে শাসক। স্ট্যান্ডিং কমিটির রিপোর্ট, সে কি যা তা ব্যাপার। কত বৈঠক করে কমিটি এ সব রিপোর্ট তৈরি করে, যা বাকি সদস্যরা জানেই না ৷ তাই এই সব রিপোর্ট সকলের জানা দরকার। আর, তার জন্য অধিবেশনকে বেছে নেওয়া একটা ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত। বিধানসভায় সরকারের বিজনেস বা বিল না থাকায় এই সিদ্ধান্ত কার্যকর করা নিয়ে সাফাই প্রাক্তন মুখ্য সচেতক তথা মন্ত্রী শোভনদেবের।

সরকারের হাতে না আছে কোন বিল, না কোনও বিজনেস। এদিকে, বছর শেষ হতে আর কটা দিন বাকি কিন্তু, বছরে অধিবেশনের জন্য বরাদ্দ নূন্যতম দিনের লক্ষ্যমাত্রাই এখনও ছুঁতে পারেনি বিধানসভা। তাই অধিবেশন চালু রাখতে শেষমেশ তিন বছরের পুরনো বিধানসভার পরিবহন দফতরের স্ট্যান্ডিং কমিটির রিপোর্ট নিয়ে আলোচনা করতে হল সরকারকে। যা দেখে হাসি চাপতে পারছেন না তৃণমূলের মন্ত্রী, বিধায়করাও। আর, শাসককে খোঁচা দেওয়ার একটা জুৎসই হাতিয়ার পেয়ে গেল বিরোধীরাও।

সারা বছরে কমপক্ষে ৪৭ দিন অধিবেশন বসাতে হবে বিধানসভায়। এবার, এখনও পর্যন্ত তা চল্লিশের কাছাকাছি। মূলত, বিল পাশ করানোর লক্ষ্যেই অধিবেশন বসায় সরকার। কিন্তু, বিল পাশ করানোর পাশাপাশি বিধায়কদের এলাকার নানা সমস্যা তুলেধরাও একটা গুরুত্বপূর্ন বিষয়। বিশেষ করে বিরোধীদের বক্তব্য, সরকারের কাজের সমালোচনা সদনে হাজির করে শাসকদলের দৃষ্টি আকর্ষন করার একটা সুযোগ থাকে বিধানসভার অধিবেশনে। কিন্তু, এবার চলতি অধিবেশনে এখনও পর্যন্ত কোনও বিল পেশের মত পরিস্থিতি তৈরি করতে পারে নি সরকার। যদিও, এস সি এস টি বিল সহ কয়েকটি বিল না পেশ করতে পারার জন্য রাজ্যপালকেই ঢাল করে আক্রমন শানিয়েছে সরকার৷ কিন্তু, বিরোধীদের প্রশ্ন, বিল চূড়ান্ত না করে অধিবেশন শুরু করল কেন সরকার? গোদের ওপর বিষ ফোঁড়ার মত হয়েছে আজ মুখ্যমন্ত্রীর প্রশ্নত্তোর পর্ব বাতিল করে ২০১৬ সালের পরিবহন দফতরের স্ট্যান্ডিং কমিটির রিপোর্ট সিন্দুক থেকে বার করে তা নিয়ে আলোচনা।

বিধানসভার বিজনেস অ্যাডভাইসরি কমিটি দিনে দু’বার বৈঠক করেও কোনও দিশা দেখাতে না পারায় আচমকা দু’দিন অধিবেশন মূলতুবি করতে হয়েছে স্পিকারকে। তারপরেও, বিল অধরা। ফলে, অধিবেশন চালু রাখতে ফের স্ট্যান্ডিং কমিটিই ভরসা। আগামী সোমবার অধিবেশন বসবে পঞ্চায়েত দফতরের একটি রিপোর্ট নিয়ে আলোচনার জন্য। যা শুনে নাকি ময়দানের ঘোড়ারাও হাসছে, লুকিয়ে বলছেন শাসক দলেরই বর্ষীয়ান এক নেতা।

First published: 11:33:29 PM Dec 06, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर