corona virus btn
corona virus btn
Loading

কার মাধ্যমে পাক জঙ্গি সংগঠন লস্করে যোগ তানিয়ার? রাজ্যে প্রথম মহিলা জঙ্গিকে গ্রেফতার করল NIA

কার মাধ্যমে পাক জঙ্গি সংগঠন লস্করে যোগ তানিয়ার? রাজ্যে প্রথম মহিলা জঙ্গিকে গ্রেফতার করল NIA

শুক্রবার পাক জঙ্গি সংগঠনের এই সদস্যাকে আদালতের নির্দেশে নিজেদের হেফাজতে নিল এনআইএ । আদালত তানিয়াকে ১০ দিনের এনআইএ হেফাজতে রাখার নির্দেশ দিয়েছে ।

  • Share this:

#কলকাতা: পাক জঙ্গি সংগঠন লস্কর-ই-তৈবার সদস্যা তানিয়া পারভিনকে গ্রেফতার করেছিল রাজ্য পুলিশের এসটিএফ । কিন্তু ঘটনার গভীরতা বুঝে গত এপ্রিল মাসে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক তদন্তভার তুলে দেয় কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা ন্যাশনাল ইনভেস্টিগেটিং এজেন্সি বা এনআইএ-র হাতে । শুক্রবার পাক জঙ্গি সংগঠনের এই সদস্যাকে আদালতের নির্দেশে নিজেদের হেফাজতে নিল এনআইএ । আদালত তানিয়াকে ১০ দিনের এনআইএ হেফাজতে রাখার নির্দেশ দিয়েছে ।

এনআইএর এক আধিকারিক বলেন, "উত্তর ২৪ পরগনার বাদুড়িয়ার এক সাধারণ ঘরের মেয়ে কীভাবে পাক জঙ্গি সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত হল, তা জানা অত্যন্ত জরুরি । তা জানতে পারলেই এই সংগঠনে তানিয়ার লিংকম্যান ও এই সংগঠনের জাল কোথা থেকে কতদূর ছড়িয়ে আছে তা জানা সম্ভব হবে ।" জেল হেফাজতে থাকা তানিয়াকে নিজেদের হেফাজতে নেওয়ার জন্য এ দিন বিশেষ আদালতে আবেদন জানায় এনআইএ । করোনার কারণে অভিযুক্তকে আদালতে হাজির না করলেও দমদম কেন্দ্রীয় সংশোধনাগার থেকে ভিডিও কনফারেন্সে আদালতে শুনানি চলে । তারপরেই তানিয়াকে এনআইএ হেফাজতের নির্দেশ দেয় আদালত । এনআইএ-র আইনজীবী শ্যামল ঘোষ বলেন, "এই জঙ্গি সংগঠনের জাল কতদূর ছড়িয়েছে তা জানার জন্যই তাঁকে নিজেদের হেফাজতে নেওয়া প্রয়োজন । আদালত আমাদের আবেদন মঞ্জুর করেছে ।"

গত মার্চ মাসে বাদুড়িয়ায় বাড়ি থেকে তানিয়া পারভিনকে গ্রেফতার করে রাজ্য পুলিশের এসটিএফ । তার কাছ থেকে দুটি মোবাইল ও বেশকিছু নথিপত্র বাজেয়াপ্ত করে পুলিশ । যার মাধ্যমে গোয়েন্দারা আরও নিশ্চিত হয় যে তানিয়া ওই জঙ্গি সংগঠনের সক্রিয় সদস্যা । গোয়েন্দারা জানতে পেরেছেন , এ রাজ্যে লস্করের সংগঠন বিস্তার ও সরকারি গুরুত্বপূর্ণ তথ্য বের করে আনার দায়িত্ব তানিয়াকে দেওয়া হয়েছিল । পড়াশোনায় মেধাবী তানিয়া একাধিক ভাষায় যথেষ্ট দক্ষ । আরবি ভাষায় সে মাস্টার ডিগ্রি করছিল ।

জানা গিয়েছে , সোশ্যাল মিডিয়ায় ভুয়ো অ্যাকাউন্ট তৈরি করে প্রেমের ফাঁদ পাতার চেষ্টা করত তানিয়া । সেখানে তার টার্গেট ছিল মূলত পুলিশ কিংবা ভারতীয় সেনায় চাকরি করা যুবকরা । এর পাশাপাশি নিজের সংগঠন বিস্তারের কাজও চালিয়ে যেত সে । হোয়াটসঅ্যাপ বা টেলিগ্রামের মত সুরক্ষিত অ্যাপ ব্যবহার করে সংগঠন বিস্তারের কাজ চালাচ্ছিল তানিয়া । পাকিস্তানের জঙ্গি সংগঠনের সঙ্গেও সরাসরি যোগাযোগ ছিল তার । এমনকী সিরিয়ায় জঙ্গি সংগঠনে নাম লেখার কথাও ভেবেছিল এই তরুণী ।

SUJOY PAL

Published by: Shubhagata Dey
First published: June 12, 2020, 7:50 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर