Home /News /kolkata /

Omicron: করোনার ওমিক্রন প্রজাতির সংক্রমণ নিয়ে একগুচ্ছ নতুন সিদ্ধান্ত, দেখে নিন কী বলছে স্বাস্থ্য দফতর

Omicron: করোনার ওমিক্রন প্রজাতির সংক্রমণ নিয়ে একগুচ্ছ নতুন সিদ্ধান্ত, দেখে নিন কী বলছে স্বাস্থ্য দফতর

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

Omicron: কী পদ্ধতি মেনে চিকিৎসা করা হবে, তারও বিস্তারিত নির্দেশিকা দিয়েছে রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর। বলা হয়েছে, রোগীকে আইসোলেশন এ থাকতে হবে, যত দিন না তাঁর রিপোর্ট নেগেটিভ আসছে।

  • Share this:

#কলকাতা: করোনার ওমিক্রন  (Omicron) প্রজাতির সংক্রমণ রুখতে একগুচ্ছ নতুন পরিকল্পনা বাস্তবায়িত করার পাথে হাঁটছে রাজ্য সরকার। সোমবার রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর থেকে একগুচ্ছ নতুন নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে। পাশাপাশি, কলকাতা ও তার পার্শ্ববর্তী এলাকায় সংক্রমণ রুখতে আরও সুষ্ঠ ব্যবস্থা গড়ে তুলতেও একগুচ্ছ নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে সোমবার জানানো হয়েছে, ওমিক্রন আক্রান্ত সন্দেহে বা ওমিক্রণ পজিটিভ রোগীর ক্ষেত্রে বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালকে রাজ্যের মধ্যে একমাত্র নোডাল হাসপাতাল হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। সেখানেই এই রোগের চিকিৎসা হবে। তবে, যদি কেউ বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে ভর্তি হতে না চান, তবে কলকাতার সাতটি বেসরকারি হাসপাতালকে চিহ্নিত করা হয়েছে, সেখানেও তাঁরা ভর্তি হতে পারবেন এই বেসরকারি হাসপাতালগুলির মধ্যে রয়েছে, আমরি,অ্যাপোলো, উডল্যান্ড, বেলভিউ, সিএমআরআই, ফর্টিস এবং চার্নক হাসপাতাল।

আরও পড়ুন: রাজ্যের লোকায়ুক্ত প্রধান অসীম রায়, মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান জ্যোতির্ময় ভট্টাচার্য

কী পদ্ধতি মেনে চিকিৎসা করা হবে, তারও বিস্তারিত নির্দেশিকা দিয়েছে রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর। বলা হয়েছে,  রোগীকে আইসোলেশন এ থাকতে হবে, যত দিন না তাঁর রিপোর্ট নেগেটিভ আসছে। ওমিক্রন পজেটিভ রোগীকে সম্পূর্ণ আইসোলেশন এ থাকতে হবে, অন্য করোনা রোগীদের থেকেও আলাদা রাখা হবে তাঁকে। হাসপাতালগুলোতে তিন ধরনের আইসোলেশন করতে হবে, ১. সাধারণ করণা আক্রান্ত রোগীদের জন্য, ২. অমিক্রন সন্দেহভাজন রোগীদের জন্য, ৩. অমিক্রণ পজিটিভ রোগীদের জন্য। ৪৮ ঘণ্টার ব্যবধানে পরপর দুটি RT-PCR রিপোর্ট নেগেটিভ এলে তবেই ওমিক্রন নেগেটিভ ধরা হবে। তবে ওমিক্রন আক্রান্ত ব্যক্তির রিপোর্‌ট নেগেটিভ হওয়ার পরের সাতদিন সেই বাধ্য়তামূলক ভাবে বাড়িতে  আইসোলেশন এ থাকতে হবে।

আরও পড়ুন: 'সর্ষের মধ্যেই ভূত', BJP নেতৃত্বের কাছে হারের 'গুরুতর' কারণ জানিয়ে গেলেন প্রার্থীরা!

এ ছাড়াও.  কলকাতা পুরসভা এলাকা ও সল্টলেক এবং রাজারহাট নিউটাউন এলাকা নিয়েও নতুন সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর। বলা হয়েছে, এই এলাকাগুলিকে যে যে সমস্ত করোনা আক্রান্তের সিটি ভ্যালু ৩০-এর নীচে  তাংদের লালারসের নমুনা পাঠানো হবে স্কুল অব ট্রপিক্য়াল মেডিসিনে জেনোম সিকোয়েন্সিং-এর জন্য। এ ছাড়াও রাজ্যের সব সরকারি ও বেসরকারি করোনা পরীক্ষার ল্যাবকে বিদেশ থেকে আগত কোনও ব্যক্তির করোনা পরীক্ষার রিপোর্টে উল্লেখ করতে হবে তাঁর টিকাকরণের তারিখ ও কেন তাঁর করোনা পরীক্ষা করা হচ্ছে।

Avijit Chanda

Published by:Uddalak B
First published:

Tags: Omicron

পরবর্তী খবর