• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • Oxygen Saturation: সর্বোচ্চ স্যাচুরেশন ৯৬%, অক্সিজেনের আকাল রুখতে জরুরি নির্দেশিকা রাজ্যের

Oxygen Saturation: সর্বোচ্চ স্যাচুরেশন ৯৬%, অক্সিজেনের আকাল রুখতে জরুরি নির্দেশিকা রাজ্যের

হাসপাতালগুলিকে জরুরি নির্দেশ

হাসপাতালগুলিকে জরুরি নির্দেশ

গোটা দেশেই অত্যন্ত প্রয়োজনীয় হয়ে উঠছে অক্সিজেন (Oxygen)। ভারতে শুধু অক্সিজেনের অভাবেই যে কত রোগীর মৃত্যু হয়েছে, তার ইয়ত্তা নেই।

  • Share this:

    #কলকাতা: গোটা দেশ ভুগছে করোনার কবলে (Corona in India)। বাদ নেই বাংলাও। প্রতিদিন রেকর্ড সংক্রমণ ও মৃত্যু ঘটছে। আর এই পরিস্থিতিতে গোটা দেশেই অত্যন্ত প্রয়োজনীয় হয়ে উঠছে অক্সিজেন (Oxygen)। ভারতে শুধু অক্সিজেনের অভাবেই যে কত রোগীর মৃত্যু হয়েছে, তার ইয়ত্তা নেই। তাই পরিস্থিতি আন্দাজ করে এবার হাসপাতালগুলির জন্য নতুন নির্দেশিকা দিল রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর।

    বুধবার স্বাস্থ্য দফতরের তরফে একটি নির্দেশিকা জারি করে জানানো হয়েছে, কোভিড রোগীদের ৯২-৯৬ % অক্সিজেন স্যাচুরেশন রাখতে হবে। ৯৬% স্যাচুরেশন হয়ে গেলেই আর অক্সিজেন দেওয়ার প্রয়োজন নেই। ৯৬% স্যাচুরেশন থাকা মানেই রোগী সুস্থ থাকবে। রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে জানানো হয়েছে, রাজ্যের সমস্ত হাসপাতাল-নার্সিংহোমগুলিকে অক্সিজেন মজুত-সরবরাহের দায়িত্ব সুনিশ্চিত করতে হবে। এই পুরো বিষয়টি দেখভালের জন্য দায়িত্বে থাকবেন একজন সহকারী সুপার। স্বাস্থ্য দফতরের নতুন নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, অক্সিজেন নার্সিং ম্যানেজমেন্টের দায়িত্বও প্রতিটি হাসপাতালকে নির্দিষ্ট করতে হবে। আর এই দায়িত্বে থাকবেন একজন নার্স।

    প্রসঙ্গত, তৃতীয়বারের জন্য মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ গ্রহণ করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। আর তারপর থেকেই দিন প্রতি প্রায় একটি করে চিঠি তিনি পাঠানো শুরু করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে (Narendra Modi)। করোনা আবহে রাজ্যের জন্য সাহায্য চাওয়ার সূত্রে সেই প্রতিটি চিঠি। যাকে রাজনৈতিক মহল, মমতার সুক্ষ্ম রাজনীতি বলেই মনে করছে। সম্প্রতি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী করোনা পরিস্থিতিতে অক্সিজেন সরবরাহ বৃদ্ধি করা থেকে প্রয়োজনীয় কোভিড চিকিৎসা সরঞ্জামের উপর কর ছাড়ের দাবি তুলেছেন প্রধানমন্ত্রীর কাছে।

    তার আগে একটি চিঠিতে রাজ্যের অক্সিজেন 'ঘাটতির' বিষয়েও মোদিকে চিঠি লিখেছিলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী। রাজ্যে অক্সিজেনের চাহিদা ও জোগানের পরিসংখ্যান দিয়ে চিঠিতে তিনি লিখেছিলেন, 'করোনা পরিস্থিতি বাংলাতেও প্রতিদিন মারাত্মক আকার নিচ্ছে। তাই অক্সিজেনের চাহিদাও ব্যাপক হারে বাড়ছে।' সেই সময় মুখ্যমন্ত্রী লিখেছিলেন, অক্সিজেনের চাহিদা দৈনিক ছিল ৪৭০ মেট্রিক টন। অথচ রাজ্য এখন গড়ে দিনে অক্সিজেন পাচ্ছে মাত্র ৩০৮ মেট্রিক টন।' মুখ্যমন্ত্রী চিঠিতে উল্লেখ করেন, 'আগামী ৭-৮ দিনে ৫৫০ মেট্রিন টন অক্সিজেন দরকার পড়বে। তাই কেন্দ্র যাতে রাজ্যে উৎপাদিত অক্সিজেন আর না নেয়, এবং প্রয়োজনীয় অক্সিজেন সরবরাহ করা হয়।'

    যদিও এখনও এ বিষয়ে কেন্দ্রের তরফে কোনও প্রত্যুত্তর আসেনি। এই পরিস্থিতিতে রাজ্যে অক্সিজেনের অপচয় রুখতে নতুন নির্দেশিকা জারি করল রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর।

    Published by:Suman Biswas
    First published: