• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • কর্মসংস্থানের নয়া সুযোগ, সবুজ সাথী প্রকল্পের সাইকেল এবার তৈরি হবে এরাজ্যেই, নতুন শিল্পের প্রস্তাব মুখ্যমন্ত্রীর

কর্মসংস্থানের নয়া সুযোগ, সবুজ সাথী প্রকল্পের সাইকেল এবার তৈরি হবে এরাজ্যেই, নতুন শিল্পের প্রস্তাব মুখ্যমন্ত্রীর

রাজ্যে সাইকেল কারখানা হলে শিল্প যেমন তৈরি হবে, তেমন বহু মানুষ কাজ পাবেন বলেও আশা প্রকাশ করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷

রাজ্যে সাইকেল কারখানা হলে শিল্প যেমন তৈরি হবে, তেমন বহু মানুষ কাজ পাবেন বলেও আশা প্রকাশ করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷

রাজ্যে সাইকেল কারখানা হলে শিল্প যেমন তৈরি হবে, তেমন বহু মানুষ কাজ পাবেন বলেও আশা প্রকাশ করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷

  • Share this:

    #কলকাতা: মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সবুজ সাথী প্রকল্পের হাত ধরেই এবার রাজ্যে নয়া কর্মসংস্থানের স্বপ্ন ৷ প্রস্তাব এল খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছ থেকে ৷ সবুজসাথী প্রকল্পে প্রতি বছরই দ্বাদশ শ্রেণী পর্যন্ত পড়ুয়াদের সাইকেল দেয় রাজ্য সরকার ৷এবার সেই সাইকেল এরাজ্যেই কারখানা প্রতিষ্ঠা করে তৈরির প্রস্তাব মুখ্যমন্ত্রীর ৷

    মুখ্যমন্ত্রীর স্বপ্নের প্রকল্প সবুজ সাথী রাষ্ট্রপুঞ্জেও সম্মানিত হয়েছে ৷ এবার সেই প্রকল্পের হাত ধরেই এবার রাজ্যে নয়া শিল্প গড়ে উঠতে চলেছে ৷ এদিন নবান্নের প্রশাসনিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী সুবজ সাথী প্রকল্পে সাইকেল বিতরণ নিয়ে উষ্মা প্রকাশ করে বলেন, 'সবুজ সাথী প্রকল্প নিয়ে আমার যথেষ্ট অভিযোগ আছে। গত বছরের যা টার্গেট দেওয়া ছিল তা এখনও অসম্পূর্ণ ৷ প্রায় ২ লক্ষ সাইকেল দেওয়া হয়নি। এটা যত তাড়াতাড়ি সম্ভব দিয়ে দেওয়া হোক। ২০২০-২১ সালের সাইকেল দেওয়ার টার্গেট অর্থ দফতরের সঙ্গে কথা বলে ঠিক করে নিন।'

    এরপরই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রস্তাব দেন এরাজ্যেই সাইকেল কারখানা গড়ে সবুজ সাথীর সাইকেল তৈরি করা যেতে পারে এতে অনেক মানুষের কর্মসংস্থানের সুযোগ বৃদ্ধি পাবে ৷ একইসঙ্গে তিনি বলেন, যে সংস্থা এ রাজ্যে সাইকেল তৈরির কারখানা গড়বে, তাদেরই 'সবুজ সাথী' প্রকল্পের সাইকেলের বরাত দেওয়া হবে ৷ তাঁর মতে এতে সরকারেরও খরচ কিছুটা বাঁচবে ৷ এতদিন ভিনরাজ্য থেকে সাইকেলের বিভিন্ন যন্ত্রাংশ এনে তা জুড়ে তৈরি হত সবুজ সাথীর সাইকেল ৷ তবে একইসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী সতর্ক করেন সাইকেল তৈরির ক্ষেত্রে সংস্থাকে তিন বছরের ওয়ারেন্টি দিতে হবে ৷ তিন বছরের মধ্যে সাইকেল নষ্ট হলে ওনারা সারিয়ে দেবেন ৷

    করোনা পরিস্থিতিতে সাইকেল বন্ধ রাখা যাবে না বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী ৷ তিনি বলেন, 'স্কুল না খুললেও বাড়িতে গিয়ে সাইকেল দিতে হবে।’ রাজ্যে সাইকেল কারখানা হলে শিল্প যেমন তৈরি হবে, তেমন বহু মানুষ কাজ পাবেন বলেও আশা প্রকাশ করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷

    Published by:Elina Datta
    First published: