বহিস্কার নিয়ে কী বললেন ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায় ?

বহিস্কার নিয়ে কী বললেন ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায় ?
File Photo

বহিস্কার হতে হবে, সেটা যেন জানতেনই। তাই দলের সিদ্ধান্ত জানার পরও প্রকাশ্যে অন্তত ভেঙে পড়ার লক্ষণ দেখালেন না।

  • Share this:

    #কলকাতা: বহিস্কার হতে হবে, সেটা যেন জানতেনই। তাই দলের সিদ্ধান্ত জানার পরও প্রকাশ্যে অন্তত ভেঙে পড়ার লক্ষণ দেখালেন না। উলটে নিজের বহিস্কার নিয়ে তাৎপর্যপূর্ণ মন্তব্য ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায়ের। ভবিষ্যতে এনিয়ে দলীয় নেতৃত্বকে অস্বস্তিতে ফেলতে পারেন। এদিন সেই ইঙ্গিতই যেন দিয়ে রাখলেন সিপিএমের সদ্য বহিস্কৃত সাংসদ।

    ঋত-ভার ঝেড়ে ফেলেছে সিপিএম। দল থেকে বহিষ্কৃত ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজ্যসভার তরুণ সাংসদের শরীরী ভাষায় কিন্তু যুদ্ধং দেহি ভাব। বহিস্কারের খবর পেয়ে কিছুটা বললেন। বাকিটা কি জমিয়ে রাখলেন ভবিষ্যতের জন্য?

    অভিযোগ, অপ্রিয় অথচ প্রয়োজনীয় কাজটা করার জন্যই তাকে বহিষ্কৃত হতে হল। অর্থাৎ বহিষ্কারের পরেও সিপিএম নেতৃত্বের একটি গোষ্ঠীর দিকেই তীর ঋতব্রতর।


    একাধিকবার শৃঙ্খলাভঙ্গ, দলের গোপন তথ্য পাচারের অভিযোগ তার বিরুদ্ধে। সেই অভিযুক্ত কিন্তু আঙুল তুলছেন দলীয় নেতৃত্বের দিকেই।

    বহিষ্কৃত সাংসদ ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায় জানালেন, ‘নাড়ি ছিঁড়লে রক্তক্ষরণ হবেই আগে থেকেই ক্ষেত্র তৈরি ছিল, জানতাম এটা হবেই৷’

    ঋতব্রত সুর আরও চড়ালে তাই অস্বস্তি আরও বাড়ার আশঙ্কায় সিপিএম নেতৃত্ব।

    সিপিএমে এর আগে বহিষ্কারের মুখে পড়তে হয়েছে সৈফুদ্দিন চৌধুরী, সোমনাথ চট্টোপাধ্যায় মতো নেতাদের। দলের সঙ্গে সম্পর্ক চোকার পর আর খুব একটা রাজনৈতিক সাফল্য জোটেনি বহিষ্কৃত এই নেতাদের। আবার এদের বহিষ্কারে দলের ক্ষতি হয়েছে বলেও স্বীকার করতে হয়েছে সিপিএম নেতৃত্বকে। ঋতব্রতর বেলায় কি হবে, ভবিষ্যতেই তার উত্তর মিলবে।

    First published: