Narendra Modi in Bengal: বাংলা বললেন কম, সারলেন অল্প কথায়! উচ্চারণ বিতর্কেই সতর্ক প্রধানমন্ত্রী?

Narendra Modi in Bengal: বাংলা বললেন কম, সারলেন অল্প কথায়! উচ্চারণ বিতর্কেই সতর্ক প্রধানমন্ত্রী?

কৃষ্ণনগরের জনসভায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷

শনিবার রাজ্যে তিনটি জনসভা করলেও প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যে লক্ষ্যণীয় ভাবে কমে গেল বাংলা শব্দ এবং বাক্যের ব্যবহার৷

  • Share this:

    #কলকাতা: তাঁর বাংলা উচ্চারণ নিয়ে কম কটাক্ষ করছে না রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস৷ সামাজিক মাধ্যমেও নানা ধরনের মিম ছড়িয়েছে৷ গত ৬ এপ্রিল রাজ্যে ভোট প্রচারে এসে হাওড়ার ডুমুরজলার জনসভা থেকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি স্বীকার করে নিয়েছিলেন, তাঁর বাংলা উচ্চারণে অনেক ভুল থাকে ঠিকই৷ কিন্তু বাংলা ভাষাকে সম্মান করেন বলেই সততার সঙ্গে বাংলা বলার চেষ্টা করেন৷

    আগের দিন রাজ্যে প্রচারে এসে এ কথা বললেও আজ, শনিবার রাজ্যে তিনটি জনসভা করলেও প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যে লক্ষ্যণীয় ভাবে কমে গেল বাংলা শব্দ এবং বাক্যের ব্যবহার৷ ফলে, বাংলা উচ্চারণ নিয়ে বিতর্ক কমাতেই সচেতন ভাবে প্রধানমন্ত্রী এই কৌশল নিলেন কি না, সেই প্রশ্ন উঠছে৷

    এ দিন রাজ্যে তিনটি জনসভা করেন প্রধানমন্ত্রী৷ প্রথমে শিলিগুড়ি, তার পর কৃষ্ণনগর আর সবশেষে সোনারপুরে জনসভা করেন তিনি৷ শিলিগুড়ির জনসভায় শুরুতেই অবশ্য প্রধানমন্ত্রী বলেন, 'আপনারা জানেন আমি চাওয়ালা, গোটা উত্তরবঙ্গ আমায় অনেক স্নেহ আর আশীর্বাদ দিয়েছে৷' মনে করা হয়েছিল, এ দিনও নরেন্দ্র মোদির ভাষণের বড় অংশ জুড়ে থাকবে বাংলা৷ যদিও শিলিগুড়ির ওই সভা গোটা ভাষণেই আর সেভাবে বাংলা বলতে শোনা যায়নি নরেন্দ্র মোদিকে৷ একদম শেষ দিকে তিনি বলেন, 'কমলে ছাপ, টিএমসি সাফ৷' প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে গলা মেলায় জনতাও৷ সবশেষে প্রধানমন্ত্রী বলেন, 'ভয় পাবেন না, আমরা আপনাদের সাথে আছি৷ নতুন বছরে নতুন বাংলার উদয় হবে৷ নতুন প্রজন্ম নতুন বাংলাকে উজ্জ্বলিত করবে৷'

    শিলিগুড়ির জনসভায় পাহাড়ের বিভিন্ন জনজাতির মানুষও এসেছিলেন৷ তাছাড়া শিলিগুড়িতে অবাঙালি জনসংখ্যাও যথেষ্ট৷ সেদিক দিয়ে দেখতে গেলে শিলিগুড়ির সভায় প্রধানমন্ত্রীর হিন্দিতে ভাষণ দেওয়ার অন্যতম কারণ হিসেবে ধরে নেওয়া যায়৷ কিন্তু শিলিগুড়ির পর কৃষ্ণনগরের সভাতেও গোটা বক্তব্যেই সেভাবে বাংলা বাক্য বলেননি প্রধানমন্ত্রী৷ খেলা শেষ, আসল পরিবর্তন, বহিরাগতর মতো কয়েকটি বাংলা শব্দ বিক্ষিপ্ত ভাবে তাঁর মুখে শোনা গেলেও একটানা দু' তিনটি বাক্য বাংলায় বলার চেষ্টা করেননি মোদি৷ অথচ নির্বাচনের ফলাফল থেকে শুরু করে তৃণমূলের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিশানা করেছেন তিনি৷ কটাক্ষ করেছেন নন্দীগ্রামে ভোটে দাঁড়ানো নিয়েও৷

    অথচ এই সমস্ত বিষয়গুলি নিয়েই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং তৃণমূলকে আক্রমণ করতে গিয়ে আগের দফাগুলিতে রাজ্যে প্রচারের সময় প্রধানমন্ত্রীর মুখে একের পর এক বাংলা শব্দ, বাক্য শোনা গিয়েছে৷ হিন্দিতে কিছুটা বক্তব্য রাখার পরই বাংলায় কিছুটা বক্তব্য রাখতেন তিনি৷ বাংলা কবিতা, গানের অংশও উঠে এসেছে প্রধানমন্ত্রীর মুখে৷ কিন্তু এ দিন সেই পথে হাঁটেননি নরেন্দ্র মোদি৷

    তবে প্রথম দু'টি সভার তুলনায় অবশ্য সোনারপুরের শেষ সভায় প্রধানমন্ত্রীর মুখে ফের কিছুটা বাংলা শোনা গিয়েছে৷ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কটাক্ষ করে তিনি বলেছেন, 'দশ বছর বাংলায় শাসন করার পর, আমাদের কর্মীরা খুন হওয়ার পর, সিন্ডিকেট, তোলাবাজির রাজত্ব চালানোর পর তবু এই রাগ কেন দিদি? ' এর পরে প্রধানমন্ত্রী ফের মমতার উদ্দেশে বাংলায় বলেন, 'আপনি নিজে টিএমসি-র গুন্ডাদের সামলান, ওদেরকে বোঝান এখানে মোদি এসেছে৷ এখানে ওদের গুন্ডাগিরি চলবে না৷ বাংলা চায় না টিএমসি ক্যাডারদের হিংসা, খেলা৷ বাংলা চায় নাটিএমএসি-র অত্যাচার সহ্য করবে না৷ বাংলা নিজেদের মেয়েদের শিক্ষা, সুরক্ষা, সম্মান, ন্যায় চায়৷'

    গত ৬ এপ্রিল রাজ্যে ভোট প্রচারে এসে নিজের বাংলা উচ্চারণের প্রসঙ্গ তুলে প্রধানমন্ত্রী বলেনছিলেন, 'আমি যেখানেই যাই সেখানে স্থানীয় ভাষায় কিছু কথা বলার চেষ্টা করি৷ তামিলনাড়ুতে গেলে তামিলে কিছু বলার চেষ্টা করি, কেরলে গেলে মালয়ালম ভাষায় অল্প কথা বলি৷ উচ্চারণে ভুল হয়তো হয়, কিন্তু সততার সঙ্গে তো চেষ্টা করি৷ আমি যখন হিন্দিতে কথা বলি তখনও ভুল হয়৷ আমার বাংলা উচ্চারণে অনেক ভুল আছে৷ তা সত্ত্বেও বাংলা শব্দ, বাংলায় বাক্য বলি কারণ আমি বাংলাকে সম্মান করি৷ দিদি এই বিষয়টিতে তো আপনার উৎসাহ দেওয়া উচিত৷ কিন্তু তাতেও উনি রেগে যাচ্ছেন৷' এর পর এ দিন প্রধানমন্ত্রীর ভাষণে বাংলা শব্দ-বাক্য কমে যাওয়ার বিষয়টি অনেকেরই নজর এড়ায়নি৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: