• হোম
  • »
  • খবর
  • »
  • কলকাতা
  • »
  • NARADA SCAM UPDATE KALYAN BANDOPADHYAYA INVITES SOLICITOR GENERAL ABHISHEK MANU SINGHVI AND LUTHRA TO KOLKATA AS HIS GUESTS FOR KULCHAS OR ROSOGOLLAS IN KOLKATA SB

Narada Scam Update: নারদ মামলার শুনানিতে এল রসগোল্লা আর কুলচা প্রসঙ্গ! কে কাকে খাওয়াবেন?

হালকা চালের আলোচনা হাইকোর্টেও

Narada Scam Case-এ Calcutta High Court-এ উঠে এল কলকাতার রসগোল্লা ও কুলচার প্রসঙ্গও। কিন্তু কেন?

  • Share this:

    কলকাতা: নারদ মামলায় (Narada Scam Case) ৪ হেভিওয়েট- ফিরহাদ হাকিম (Firhad Hakim), সুব্রত মুখোপাধ্যায় (Subrata Mukherjee), মদন মিত্র (Madan Mitra) ও শোভন চট্টোপাধ্যায়ের (Sovan Chatterjee) অন্তর্বর্তী জামিন মঞ্জুর মামলায় নজিরবিহীন জটিলতা দেখা দিল। জামিন মঞ্জুর সংক্রান্ত নির্দেশে হাইকোর্টের দুই বিচারপতির মধ্যে মতভেদ তৈরি হয়। এই মামলায় অভিযুক্তদের অন্তবর্তী জামিন মঞ্জুর করেছিলেন বিচারপতি অরিজিত্‍ বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু এদিনের শুনানিতে ওই চার জনের জামিন মঞ্জুরের বিরোধিতা করেন ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি রাজেশ বিন্দাল। আইনজীবীদের মতে, এদিনের সওয়াল-জবাব রীতিমতো জমে উঠেছিল কোর্টরুমে। জাঁদরেল আইনজীবীদের লড়াইয়ে গমগম করে উঠেছিল হাইকোর্ট। আর সেই সূত্রে শুনানির সময় হালকা চালে উঠে আসে কলকাতার রসগোল্লা ও কুলচার কথাও।

    অভিযুক্ত পক্ষের আইনজীবী অভিষেক মনু সিংভি নিজের বক্তব্য রাখার সময়ই সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহেতা বলেন, 'আপনি আপনার বক্তব্যের বিরোধিতা করছি।' সিংভি পালটা বলেন, 'আমি কী বলব, আপনি তো জানেনই না।' তুষার পাল্টা বলেন, 'যখনই আপনাকে দেখি, আমার বিরোধিতা করতে ইচ্ছে করে।' যদিও এরপরই সুর নরম করে তুষার বলেন, 'আমরা খুব ভালো বন্ধু, আমরা যে আলোচনা করেছি, তা খুব হালকা চালেই।'

    সলিসিটর জেনারেল অবশ্য হাইকোর্টে আগের রায়ই বহাল রাখার অনুরোধ করেন। যদিও সিংভি বলেন, 'যদি নির্দেশে দু'পক্ষই অসন্তুষ্ট হয়, তাহলে তা সংশোধন হওয়া উচিৎ।' হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি বিন্দাল অবশ্য দুই আইনজীবীর সওয়াল-জবাব শুনে বলেন, 'এটা দেখে ভালো লাগছে যুযুধান আইনজীবীরা নিজেদের মধ্যে হালকা চালে কথা বলছেন।'

    এরপরই অভিযুক্ত পক্ষের আরেক আইনজীবী সিদ্ধার্থ লুথরা বলেন, 'এটা যদি পিজিক্যাল কোর্ট হত, তাহলে আমরা শুনানির পর এক কাপ চা খেতে পারতাম সকলে মিলে।' সঙ্গেসঙ্গেই তুষার মেহেতা বলেন, 'শুধু চা-কফি নয়। আমি কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়কে অনুরোধ করব, তিনি যেন আমাদের কলকাতায় কুলচা আর রসগোল্লা খাওয়াতে নিয়ে যান।'

    কল্যাণ অবশ্য সময় না নিয়েই সঙ্গেসঙ্গেই বলে ওঠেন, 'আপনারা সকলেই আমার অতিথি।' সঙ্গেসঙ্গেই হাসির রোল তুলে অভিষেক মনু সিংভি বলে ওঠেন, 'সলিসিটর জেনারেলকে কিন্তু গ্রেফতার করবেন না।' নারদ কাণ্ডে চার হেভিওয়েটের জামিন নিয়ে নজিরবিহীন জটিলতা তৈরি হলেও বিচারপতি-আইনজীবীদের এই হালকা চালের 'আড্ডা' গুরুগম্ভীর আলোচনাকেও কিছুক্ষণের জন্য ম্লান করে দিয়েছিল।

    Published by:Suman Biswas
    First published: