corona virus btn
corona virus btn
Loading

চাল, ডাল হোক বা ওষুধ, লকডাউনে ক্যান্সার রোগীদের ত্রাতা তিনিই

চাল, ডাল হোক বা ওষুধ, লকডাউনে ক্যান্সার রোগীদের ত্রাতা তিনিই

এখনও প্রায় পাঁচ জনের কেমোর ব্যাবস্থা করেছেন লকডাউনে।

  • Share this:

#হুগলী: সকাল থেকেই ল্যাপটপ দেখছেন, কখনও ফোনেই ব্যাস্ত। লকডাউন বলে কী অবসর সময় কাটাচ্ছেন? হাওড়ার এক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার নন্দিতা চৌধুরীকে দেখলে মনে হতে পারে সময় কাটাচ্ছে ফোনে বা ল্যাপটপে। ঘরের বাইরে যারা চাল, ডাল বা খাবার দিয়ে ব্যাস্ত, ততটাই ব্যাস্ত কৃষ্ণা, স্বপন, দীপা, তাপসীর পাশে দাড়িয়ে। লকডাউনের আগে ও পরে জীবনের শেষ দিকে এসে জীবন ফেরানোর এক মুহূর্ত চেষ্টা সংস্থাটির। ক্যান্সার রোগী পরিবারই জানে সেই রোগের জ্বালা-যন্ত্রনা। তাদের সহযোগীতা করে এসেছেন কখনও টাকা আবার কখনও কেমো নেবার দিন ঠিক করে। মারন করোনা ভাইরাস এই লোকগুলোকে ভয় দেখাতে না পারলেও কেমোর ঠিকানার বদল করেছে। শহরের সরকারি হাসপাতালে করোনার জেরে যাওয়া হবে না! যাবে কোথায়? সরকারি নির্দেশ মেনে ঘর বন্দি থেকেই মুসকিল আসান করলেন নন্দিতা।

চিকিৎসকদের পরামর্শ নিচ্ছেন ভিডিও কলে, রোগীর পরিবারকে জানাচ্ছেন ফোন করে। শুধু বলছেন লাগে টাকা দেবে গৌরী সেন। মনে মনে বলছেন গৌরী সেন আদতে নন্দিতা চৌধুরী। এখনও প্রায় পাঁচ জনের কেমোর ব্যাবস্থা করেছেন লকডাউনে। ওষুধের অভাবও মিটিছেন ডিজিটাল পেমেন্টের মাধ্যমে। তার বয়স ৫৯ বছর। নিজের হাজারো শারীরিক অসুস্থতা থাকলেও ওদের দিকেই নজর৷ কখনো নিজের ডাক্তারকেই ম্যানেজ করে অন্যের জন্য ছুটে গেছেন হাসপাতালে।

নন্দিতা চৌধুরী জানাচ্ছেন, 'বয়সটা সংখ্যায়, ওদের সেবা করটাই প্রথম উদ্দেশ্য। বাবা প্রাক্তন সাংসদ অম্বিকা ব্যানার্জির মৃত্যু সেই ক্যান্সারেই। সামনে থেকে দেখেছেন একটু একটু করে কিভাবে মানুষ ক্যান্সারের কাছে আত্মসমর্পণ করে তা নিজেই সাক্ষী। বাবার মতন আর কাউকে সে ক্যান্সারের কাছে আত্মসমর্পণ করতে দিতে চান না।' একজন রোগীর সঙ্গে ক্যান্সারের লড়াইয়ে পরাজিত হয়ে এবার একাধিক ব্যক্তিকে বনাম ক্যান্সারকে হারানোর লড়াইয়ে নন্দিতা চৌধুরী। এবার একটু একটু করে পূরন হচ্ছে বা্ার স্বপ্নটাই। লকডাউনে যখন সবাই মন মরা তখন অনেকের মন ভালো করছেন চিকিৎসার পরিসেবা দিয়ে। তাও ফোনে ওপারে হাসি শুনে কমছে ব্যাস্ততা। এভাবেই করোনা থেকে মুক্তি না দিতে পারলেও ক্যান্সার থেকে মুক্তি দেবার চেষ্টা করছেন।

Susovan Bhattacharjee

First published: April 19, 2020, 11:43 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर