Home /News /kolkata /
Mamata Banerjee: মুখ্যমন্ত্রীর উদ্বোধন করা প্রকল্প নির্দিষ্ট সময়ে মধ্যে শেষ করতে হবে, কড়া বার্তা নবান্নের

Mamata Banerjee: মুখ্যমন্ত্রীর উদ্বোধন করা প্রকল্প নির্দিষ্ট সময়ে মধ্যে শেষ করতে হবে, কড়া বার্তা নবান্নের

নবান্নর কড়া বার্তা৷

নবান্নর কড়া বার্তা৷

বিকেল চারটে থেকে মঙ্গলবার মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী একটি জরুরি বৈঠক করেন বিভিন্ন দপ্তরের সচিব ও বিভিন্ন জেলার জেলাশাসক দের নিয়ে। মুখ্যমন্ত্রীর উদ্বোধন করা প্রকল্প গুলির অগ্রগতি কতদূর তা নিয়ে এদিন বিস্তারিত আলোচনা হয় বলে নবান্ন সূত্রে খবর।

আরও পড়ুন...
  • Share this:

#কলকাতা: গত সপ্তাহেই বাঁকুড়া ও পুরুলিয়া জেলার প্রশাসনিক বৈঠক থেকে দীর্ঘদিন ধরে উদ্বোধন ও শিলান্যাস করা প্রকল্পগুলির কাজ কেন সম্পন্ন হয়নি, তা নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছিলেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শুধু তাই নয়, লাইভ সম্প্রচার চলাকালীন মুখ্যমন্ত্রীর কোন কোন প্রকল্পের কাজ দীর্ঘদিন ধরে পড়ে রয়েছে তার তথ্য তুলে ধরেছিলেন মুখ্য সচিব ও স্বরাষ্ট্র সচিবের উপস্থিতিতেই।

তারই জেরে এবার অতি সক্রিয়তা নবান্নের শীর্ষ পর্যায়ের আধিকারিকদের। মঙ্গলবার মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী বিভিন্ন দপ্তরের সচিব ও জেলার জেলাশাসক দের নিয়ে দীর্ঘ দেড় ঘণ্টা ধরে বৈঠক করেন। বৈঠকে আলোচনার বিষয়বস্তু ছিল মুখ্যমন্ত্রীর উদ্বোধন ও শিলান্যাস করা প্রকল্পগুলির অগ্রগতি কতদূর? সেই বৈঠকেই বিভিন্ন দপ্তর ও জেলা গুলিকে কড়া বার্তা দেওয়া হয় বলেই নবান্ন সূত্রে খবর।

আরও পড়ুন: 'খুব খুশি হয়েছি', মুখ্যমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানালেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়

নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যেই যাতে প্রকল্প গুলির কাজ শেষ হয় সেই বিষয়ে এদিন দপ্তর ও জেলা গুলিকে নির্দেশ দেওয়া হয়। পাশাপাশি প্রকল্প গুলির কাজ নিয়ে যাতে বিভিন্ন দপ্তর ও জেলাগুলির মধ্যে কোন ভুল বোঝাবুঝি না হয় তা নিশ্চিত করতে বলেন মুখ্য সচিব। দপ্তর ও জেলাগুলি যাতে সমন্বয় সাধন করে কাজ করে সেই বিষয়েও এদিন নির্দেশ দেওয়া হয়। পাশাপাশি এই দিনের বৈঠকে বাংলা সহায়তা কেন্দ্রগুলি নিয়েও আলোচনা হয়। বিভিন্ন জেলায় যে বাংলা সহায়তা কেন্দ্রগুলি রয়েছে, সেগুলি যাতে আরও সক্রিয় করে তোলা হয় সেই বিষয়ে এদিন জেলা গুলিকে নির্দেশ দেন মুখ্য সচিব।

অন্যদিকে মুখ্যমন্ত্রী দপ্তরের অভিযোগগুলি জমা পড়ছে, সেই অভিযোগগুলির যাতে দ্রুত নিষ্পত্তি হয় সে বিষয়ে এদিন নির্দেশ দেন মুখ্য সচিব বলেই নবান্ন সূত্রে খবর। এরই সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীর উদ্বোধন ও শিলান্যাস করা প্রকল্পগুলির বিস্তারিত তথ্য দিয়ে যাতে রাজ্য সরকারের তৈরি করার "সমন্বয়" পোর্টালে আপলোড করা হয়, সে বিষয়ে আলোচনা হয় বলে সূত্রের খবর। যদিও এই দিনের বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী দপ্তরের জমা পড়া অভিযোগগুলি জেলা গুলিকে আরও দ্রুতগতিতে নিষ্পত্তি করার কথা বলা হয়েছে।

বাংলা সহায়তা কেন্দ্রগুলির মাধ্যমে বিভিন্ন দপ্তর কিভাবে পরিষেবা পৌঁছে দেওয়া যায়, এ দিনের বৈঠকে তা নিয়ে একটি রূপরেখা ও ঠিক করে দেওয়া হয় বলে সূত্রের খবর। জেলাগুলিকে সেই বিষয়ে দ্রুত নির্দেশ পাঠানো হবে বলেও জানা গেছে।

প্রসঙ্গত, আগামী ১৩  জুন থেকে ৩১  জুলাই পর্যন্ত আদিবাসী প্রধান অঞ্চলে দুয়ারে সরকার অনুষ্ঠিত হবে। জমির মিউটেশন সংক্রান্ত কোন কোন পরিষেবাগুলি কোথায় অগ্রাধিকার পাবে সেই বিষয়ে ইতিমধ্যে জেলা গুলিকে প্রয়োজনীয় নির্দেশ দিয়েছে নবান্ন। সূত্রের খবর এ দিনের বৈঠক চলাকালীন তিনটি জেলা থেকেও ভূমি ও ভূমি রাজস্ব দপ্তরের কাজের বিষয়ে রিপোর্ট চাওয়া হয়।

উত্তর ২৪ পরগণা, দক্ষিণ ২৪ পরগণা এবং জলপাইগুড়ি জেলার ভূমি ও ভূমি রাজস্ব দপ্তরের কাজ নিয়ে রিপোর্ট চাওয়া হয় বলে সূত্রের খবর। এ দিন সকালে মুখ্যসচিব মাটির সৃষ্টি এবং স্কুলপড়ুয়াদের স্কুলড্রেস নিয়ে একটি বৈঠক করেন জেলাশাসকদের সঙ্গে।

Published by:Debamoy Ghosh
First published:

Tags: Mamata Banerjee, Nabanna

পরবর্তী খবর