কোভিড-যোদ্ধাদের সম্মান জানাতে কলকাতায় তৈরি হতে চলেছে মিউজিয়াম!

কোভিড-যোদ্ধাদের সম্মান জানাতে কলকাতায় তৈরি হতে চলেছে মিউজিয়াম!

এই মিউজিয়ামে থাকবে কোভিড ১৯-এর (Covid 19) সঙ্গে সম্পর্কিত বহু জিনিস। থাকবে পিপিই কিট, মাস্ক ও স্যানিটাইজার।

এই মিউজিয়ামে থাকবে কোভিড ১৯-এর (Covid 19) সঙ্গে সম্পর্কিত বহু জিনিস। থাকবে পিপিই কিট, মাস্ক ও স্যানিটাইজার।

  • Share this:

#কলকাতা: অতিমারীর বিরুদ্ধে অনেক দিন ধরে লড়াই করছে গোটা বিশ্ব। যাঁরা এই রোগের বিরুদ্ধে লড়াই করতে করতে প্রাণ দিয়েছেন, তাঁদের শ্রদ্ধা জানাতে কলকাতার চিকিৎসকেরা একটি মিউজিয়াম তৈরির পরিকল্পনা করছেন। শ্রদ্ধা জানানোর সঙ্গে সঙ্গে এই মিউজিয়ামে এটাও তুলে ধরা হবে যে কী ভাবে এই অতিমারী আমাদের জীবনকে আমূল পাল্টে দিয়েছে।

এই মিউজিয়ামে থাকবে কোভিড ১৯-এর (Covid 19) সঙ্গে সম্পর্কিত বহু জিনিস। থাকবে পিপিই কিট, মাস্ক ও স্যানিটাইজার। এই মারণ রোগের সঙ্গে লড়াই করতে মানুষ এত দিন যা যা সুরক্ষা নিয়েছে, সেই সংক্রান্ত সব জিনিস থাকবে এখানে। এই তথ্য দিয়েছেন ওয়েস্ট বেঙ্গল ডক্টরস ফোরাম (WBDF) এর অফিস বিয়ারার ডক্টর রাজীব পাণ্ডে।

ডক্টর পাণ্ডে জানিয়েছেন যে এই মিউজিয়াম তৈরি করতে গেলে রাজ্য সরকারের অনুমতি প্রয়োজন। সরকারি দফতরে এই প্রকল্প পাঠানো হয়েছে। আপাতত সেখান থেকে সম্মতিবাচক কোনও অনুমতির আশায় রয়েছেন কলকাতার চিকিৎসকেরা।

কিন্তু কেন এই মিউজিয়াম তৈরির কথা ভাবলেন চিকিৎসকেরা? এই প্রশ্নের উত্তরে ডক্টর পাণ্ডে জানালেন যে এই ধরনের অতিমারী প্রায় ১০০ বছর পর আবার ফিরে এল। বহু বৃদ্ধ-বৃদ্ধা, যাঁরা এখন দাদু ঠাকুমা হয়ে গিয়েছেন, তাঁরাও এই রকম অবস্থা কোনও দিন দেখেননি। একজন ডাক্তার হিসেবে ডক্টর পাণ্ডের আফসোস যে এই যুদ্ধে তিনি তাঁর সহযোদ্ধাদেরও হারিয়েছেন। প্রায় ৯০ জন ডাক্তার এই রাজ্যে মারা গিয়েছেন রোগীদের পরিষেবা দেওয়ার সময়ে বলে জানিয়েছেন তিনি।

যখন পৃথিবী এই ভাইরাসের প্রকোপ সামলে নেবে, তখন মানুষের স্মৃতি থেকে এই চিকিৎসকদের কথা ও অন্যান্য স্বাস্থ্যকর্মীদের কথা মুছে যাবে। সেটা যাতে না হয়, মূলত সেই লক্ষ্যেই এই মিউজিয়াম তৈরির কথা ভাবা হয়েছে।

সাধারণ মানুষ থেকে তারকা- কোভিড ১৯ কেড়েছে অসংখ্য প্রাণ। মিউজিয়ামে তাঁদের কাহিনিও শোনানো হবে। এত মানুষের বলিদান যাতে বিফলে না যায়, সেই জন্যই এই মিউজিয়াম তৈরি করা একান্ত প্রয়োজন বলে মনে করছেন পশ্চিমবঙ্গের চিকিৎসকেরা।

ডক্টর অর্জুন দাশগুপ্ত, যাঁর মাথা থেকে এই আইডিয়ার সূত্রপাত, তিনি বলেছেন যে কী ভাবে ভ্যাকসিন তৈরি হয়েছে এবং বিশ্বের অন্যান্য দেশ কী ভাবে এই পরিস্থিতি সামাল দিয়েছে, সেটাও মিউজিয়ামে দেখানো হবে।

আপাতত রাজ্য সরকারের অনুমতি ও সরকার থেকে এক খণ্ড জমির আশায় আছেন পশ্চিমবঙ্গের চিকিৎসকেরা!

Published by:Dolon Chattopadhyay
First published: