বিশ্ববাংলা ব্র্যান্ড নিয়ে ফের বিস্ফোরক মুকুল ! এবার তাঁর নিশানায় মুখ্যমন্ত্রীও !

বিশ্ববাংলা ব্র্যান্ড নিয়ে ফের বিস্ফোরক মুকুল ! এবার তাঁর নিশানায় মুখ্যমন্ত্রীও !
Mukul Roy

বিশ্ববাংলা ব্র্যান্ড বিতর্কে আরও বিস্ফোরক মুকুল রায় ৷

  • Share this:

#কলকাতা:  বিশ্ববাংলা ব্র্যান্ড বিতর্কে আরও বিস্ফোরক মুকুল রায় ৷ এবার অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে সামনে রেখে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিশানা একদা তৃণমূল কংগ্রেসের সেকেন্ড ইন কমান্ডের। নথি তুলে ধরে মুকুল রায়ের দাবি, ‘‘ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন তিনি নিজে এ কাজ করেননি। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুমতি নিয়েই তিনি কাজ করেছেন।’’

জাগো বাংলা, মা-মাটি-মানুষের ব্র্যান্ডের মালিকানাও অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বলে অভিযোগ করেছেন মুকুল। একইসঙ্গে, তৃণমূলের প্রতীকের ব্র্যান্ডের জন্যও অভিষেক আবেদন করেছেন বলে অভিযোগ করেছেন ওই বিজেপি নেতা।

শনিবার সংবাদিক সম্মেলনে মুকুল রায় বলেন, ‘‘ অভিষেক বলেছেন তিনি নিজে এ কাজ করেননি ৷ মমতার অনুমতি নিয়েই তিনি কাজ করেছেন ৷ হলফনামায় জানিয়েছেন স্বয়ং অভিষেকই ৷ গত ১০ নভেম্বর আমি বিশ্ববাংলার ব্র্যান্ড নিয়ে বলি ৷ তারপরেই ১৩ নভেম্বর অভিষেক আবেদন তুলে নিতে চান ৷ ’’

এখানেই থেমে না থেকে মুকুল রায় আরও বলেন, ‘’ অসৎ উদ্দেশে অভিষেক আবেদন করেছিলেন ৷ এ কথা বলা হয়েছে সরকারের আবেদনেই ৷ অর্থাৎ অসৎ উদ্দেশ্যের কাজকে সমর্থন জানাচ্ছেন স্বয়ং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ৷  জাগো বাংলা’ ব্র্যান্ডের মালিকানাও অভিষেকের ৷ সংস্থার ঠিকানা লেখা রয়েছে ৩০ বি হরিশ চ্যাটার্জি স্ট্রিট ৷ মা-মাটি-মানুষের ব্র্যান্ডের মালিকানাও অভিষেকের ৷ তৃণমূলের প্রতীকের ব্র্যান্ডের জন্যও আবেদন করেন অভিষেক ৷  আমি নথি হাতে নিয়ে যা বলার বলছি ৷ নথি ভুল থাকলে মামলা করুন ’’ দাবি বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের ৷

বিশ্ব বাংলার মতো তৃণমূল কংগ্রেসের মা-মাটি-মানুষ ব্র্যান্ডও অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের মালিকানাধীন বলে অভিযোগ করেছেন মুকুল। তৃণমূল কংগ্রেসের দলীয় মুখপত্র জাগো বাংলার ট্রেড লাইসেন্সের মালিকানা নিয়েও ফের অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে বিঁধেছেন মুকুল রায়। রানি রাসমণি রোডে, বিজেপিতে যোগদানের পর প্রথম সভায় ব্র্যান্ড বিতর্ক তুলেছিলেন মুকুল রায়। আর সেই অস্ত্র দিয়েই এবার মুখ্যমন্ত্রীকে টার্গেট একদা তৃণমূল কংগ্রেসের সেকেন্ড ইন কমান্ডের।

Loading...

মুকুল রায়ের দাবি, ‘‘ আমাদের দলের যাঁরা রাজনৈতিক লোক, তাদের ফোন ট্যাপ হচ্ছে ৷ দিল্লি হাইকোর্টে এ নিয়ে মামলা করেছি ৷ টাওয়ার লোকেশন দেখেই স্পষ্ট মুকুল রায়, কৈলাশ বিজয়বর্গী, বাবুল সুপ্রির ফোন ট্যাপ হচ্ছে ৷’’ বিজেপি-র সব নেতাদেরই ফোন ট্যাপ হচ্ছে বলে দাবি মুকুল রায়ের ৷

First published: 01:55:42 PM Nov 25, 2017
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर
Listen to the latest songs, only on JioSaavn.com