• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • MUKUL ROY MEETING WITH ABHISHEK BANERJEE AFTER JOINING TMC SB

Mukul Roy to Abhishek Banerjee: অভিষেকের হাতে ৩৫ BJP নেতার 'লিস্ট' মুকুলের? কাদের নাম, হন্যে গেরুয়া শিবির

কাদের নাম তালিকায়?

Mukul Roy to Abhishek Banerjee: শুভ্রাংশুকে নিয়ে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের অফিসে গিয়ে ওই তালিকা তুলে দেন মুকুল রায়।

  • Share this:

    #কলকাতা: নিজের পুরনো ঘরে ফিরেই 'কাজ' শুরু করে দিয়েছেন মুকুল রায়। শুক্রবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপস্থিতিতে সপুত্র তৃণমূলে ফিরেছেন 'চাণক্য'। আর তারপর থেকেই বিজেপি ভাঙানোর 'খেলা' শুরু হয়ে গিয়েছে বলে খবর। এরই মধ্যে শনিবার দুপুরে ছেলে শুভ্রাংশুকে নিয়ে অভিষেকের অফিসে যান মুকুল। সেখানে দীর্ঘক্ষণ বৈঠক হয় তাঁদের। আর সেই বৈঠকেই অভিষেকের হাতে মুকুল ৩৫ জন বিজেপি নেতার একটি তালিকা তুলে দিয়েছেন বলে খবর। বলা বাহুল্য, ওই সমস্ত নেতার দলবদলের সম্ভাবনা তীব্র। তাঁরা কারা, তা বুঝে উঠতেই এখন হিসেব কষছে গেরুয়া শিবির।

    সূত্রের খবর, যে সমস্ত নেতাদের নাম অভিষেককে দিয়েছেন মুকুল, তাঁদের মধ্যে যেমন তৃণমূল ছেড়ে ভোটের আগে বিজেপিতে নাম লেখানো নেতারা আছেন, একই সঙ্গে বিজেপির বেশ কিছু জনপ্রতিনিধিও আছেন। এরই মধ্যে খবর ছড়িয়ে পড়েছে, শুক্রবার বিকেলে তৃণমূলে নাম লেখানোর পর রাতেই বিজেপির এক সাংসদ ও ৭-৮ জন বিধায়কের কাছে ফোন গিয়েছে মুকুলের। অর্থাৎ, এটা স্পষ্ট যে, আগেও তৃণমূলে যে কাজটা দক্ষতার সঙ্গে করেছেন মুকুল, এবারও তার অন্যথা হবে না। যদিও বিজেপি পরিষদীয় দলের মুখ্য সচেতক মনোজ টিগ্গা জানিয়েছেন, মুকুলের ফোন সম্পর্কে তাঁরা জানতে পেরেছেন। এ বিষয়ে বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী যা করার করবেন।

    উত্তরবঙ্গ থেকে জঙ্গলমহল, যেখানেই তাঁর ঘনিষ্ঠ বিজেপি বিধায়ক-নেতা রয়েছেন, তাঁদেরই নিশানা করেছেন মুকুল। সূত্রের খবর এমনটাই। প্রসঙ্গত, বিধানসভা নির্বাচনে ২০০ আসনের স্বপ্ন দেখলেও বাস্তবে বিজেপি ৭৭টি আসনে জিতেছিল। কিন্তু সাংসদ পদে থাকা অবস্থায় দিনহাটা ও শান্তিপুর থেকে বিধানসভা ভোটে লড়ে জেতা নীশিথ প্রামাণিক ও জগন্নাথ সরকার বিধায়ক পদ থেকে ইস্তফা দেন। ফলে বিজেপি-র বিধায়ক সংখ্যা কমে হয়ে যায় ৭৫। শুক্রবার কৃষ্ণনগর উত্তরের বিজেপি বিধায়ক মুকুল তৃণমূলে যোগ দেওয়ায় সেই সংখ্যা কমে এখন ৭৪। আর তারপরই যেভাবে বিজেপি ভাঙনের আশঙ্কা তৈরি হয়েছে, তাতে সেই সংখ্যাটা কত দাঁড়াবে, তা নিয়ে চিন্তায় গেরুয়া শিবির।

    যদিও এ প্রসঙ্গে এখন থেকেই হুঁশিয়ারি দিয়ে রেখেছেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। চ্যালেঞ্জের সুরে তিনি বলেছেন, 'মুকুল রায়কে দিয়ে যে পর্ব শুরু হল, তা দলত্যাগ বিরোধী আইন মেনে হয়নি। আমি বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী বলছি, দু’মাস হোক, তিন মাস হোক, বিরোধী দলনেতা হিসেবে বাংলায় এই আইন কার্যকর করেই ছাড়ব আমি।' যদিও বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, 'এরা কেউই তো গরু-ছাগল নয়, যে বেঁধে রাখব। মুকুল রায় বিজেপিতে ছিলেন। তাই বিজেপি ছাড়ার পর পূর্বপরিচিতদের ফোন করতেই পারেন। তবে, যাঁরা অরিজনাল বিজেপি, তাঁরা কেউই দল ছাড়বেন না। আর যাঁরা আয়ারাম-গয়ারাম তাঁদের নিয়ে ভাবছি না।'

    Published by:Suman Biswas
    First published: