BJP leaders on Mukul Roy: কেউ বলছেন 'মীরজাফর', কারও মতে 'লবিবাজির শিকার'! মুকুল ঝরতেই দিশেহারা BJP

মুকুল-ব্যথা বিজেপির!

BJP leaders on Mukul Roy: মুকুল রায়কে নিয়ে ঠিক বক্তব্য রাখা হবে, তা নিয়েই এখন ল্যাজেগোবরে অবস্থা বিজেপি নেতাদের।

  • Share this:

    কলকাতা: দীর্ঘ সাড়ে তিন বছর পর নিজের 'ঘরে' ফিরলেন মুকুল রায়। বিজেপির সর্বভারতীয় সহ সভাপতি পদ থেকে সরাসরি সপুত্র তৃণমূলে যোগ দিলেন মুকুল। আর বিজেপিতে মুকুল ঝরতেই দিশেহারা অবস্থা গেরুয়া শিবিরের। কেউ বলছেন, 'মুকুল রায় মীরজাফর', আবার কেউ বলছেন, 'বিজেপিতে লবিবাজির শিকার হয়েছেন মুকুল রায়', কেউ আবার বলছেন 'কোনও ক্ষতি হবে না'। আসলে মুকুলকে নিয়ে ঠিক বক্তব্য রাখা হবে, তা নিয়েই এখন ল্যাজেগোবরে অবস্থা বিজেপি নেতাদের।

    যদিও মুকুল শিবিরের দাবি, যে নেতারা দিনের পর দিন সকাল-বিকেল ফোন করতেন, মুকুলের স্ত্রী অসুস্থ হওয়ার পর কিংবা তিনি নিজে কোভিড আক্রান্ত হওয়া সত্ত্বেও তাঁরা কোনও যোগাযোগ করেননি। কিন্তু শুক্রবার সকাল থেকেই মুকুলের তৃণমূলে ফেরা নিয়ে জল্পনা শুরু হতেই বিজেপির তরফে নানা জনের ফোন আসতে থাকে মুকুলের জন্য। সেই তালিকায় রাজ্য বিজেপির নেতারাও যেমন ছিলেন, তেমনই ছিলেন বিজেপির এ রাজ্যের পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয়ও। কিন্তু কারও ফোনই ধরেননি মুকুল।

    এরপরই মুকুলের হয়ে ব্যাট ধরতে নামেন বিজেপি নেতা অনুপম হাজরা। বিজেপির 'লবিবাজি' নিয়ে ফেসবুকে রীতিমতো বিস্ফোরণ ঘটান তিনি। লেখেন, 'নির্বাচন চলাকালীন ২-১ জন নেতাকে নিয়ে অতি মাতামাতি করা এবং যোগ্যতা থাকা সত্ত্বেও লবিবাজি করে বাকিদের বসিয়ে রেখে অবজ্ঞা বা অপমান করার করুণ পরিণতি!!! চাটার্ড ফ্লাইটের রয়্যাল যাত্রীরাও মিসিং!!! এখনও সময় আছে, বঙ্গ বিজেপির উচিত লবিবাজি বন্ধ করে যোগ্যতা অনুসারে বসে থাকা নেতাদের কাজে লাগানো।'

    যদিও মুকুল-ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত সাংসদ সৌমিত্র খাঁ অবশ্য সরাসরি মুকুলকে মীরজাফর বলে আক্রমণ শানান। বলেন, 'মুকুল রায় কোনও চাণক্য নন, উনি মীরজাফর। এটা আজ প্রমাণিত হয়ে গেল।' সৌমিত্র জানান, তিনি যেহেতু এখন দিল্লিতে, তাই সেখানেই মাথা মুন্ডন করবেন তিনি। বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ অবশ্য বিষয়টির মধ্যেই সেভাবে ঢোকেননি। মুকুলের সঙ্গে তাঁর সংঘাত বিজেপির অন্দরে কারও অজানা নয়। সেই দিলীপ এদিন বলেন, 'এখন জল্পনা কল্পনা, গান গাওয়ার সময় নেই। আমাদের অনেক কর্মী সন্ত্রাসের শিকার। অনেকে ঘরে ফিরতে পারেননি। তাঁদের সুরক্ষা নিয়ে আপাতত চিন্তিত।' বিজেপি নেতা স্বপন দাশগুপ্তও ট্যুইট করেন। সেখানে মুকুলের দলত্যাগকে বিশেষ গুরুত্ব দেননি তিনি। লেখেন, 'বঙ্গ বিজেপির কাছে এটা একটা শিক্ষা। এর জন্য ঘাবড়ে যাওয়ার কোনও প্রয়োজন নেই। ২ কোটি ২০ লক্ষ ভোট পেয়েছে বিজেপি। সেই শক্তিতে ভর করেই আমরা সামনের দিকে এগোব।' কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রবিশংকর প্রসাদ অবশ্য গোটা বিষয়টিই এড়িয়ে গিয়েছেন।
    Published by:Suman Biswas
    First published: