Home /News /kolkata /
‘আমি এর শেষ দেখে ছাড়ব’, আমরণ অনশনের হুমকি ঐত্রির মায়ের

‘আমি এর শেষ দেখে ছাড়ব’, আমরণ অনশনের হুমকি ঐত্রির মায়ের

মেয়ের মৃত্যুর বিচার চাই ! না হলে আমরণ অনশন ৷ সংবাদমাধ্যমের সামনে এরকমই হুমকি দিয়েছিলেন আমরিতে মৃত শিশু ঐত্রির মা ৷

  • Share this:

    #কলকাতা: মেয়ের মৃত্যুর বিচার চাই ! না হলে আমরণ অনশন ৷ সংবাদমাধ্যমের সামনে এরকমই হুমকি দিয়েছিলেন আমরিতে মৃত শিশু ঐত্রির মা ৷

    সংবাদমাধ্যমের কাছে ঐত্রির মা জানিয়েছিলেন, ‘ইউনিট হেড জয়ন্তীকে সরাতে হবে ৷ সরাতে হবে অভিযুক্ত চিকিৎসককে ৷ সবাইকে উপযুক্ত শাস্তি দিতে হবে ৷ ২ দিনের মধ্যে দাবি পূরণ না হলে অনশন ৷ আমি এর শেষ দেখে ছাড়ব ৷ ’

    অন্যদিকে মুকুন্দপুর আমরিতে মৃত শিশুর হৃদযন্ত্রে কি সমস্যা ছিল? বাড়ছে ধোঁয়াশা। ময়নাতদন্তের প্রাথমিক রিপোর্টে বিভ্রান্তিকর তথ্য। পরীক্ষার জন্য পাঠানো হল ঐত্রির হৃদযন্ত্রের মাংসপেশি। ইটিভি নিউজ বাংলার অন্তর্তদন্ত।

    কী কারণে মাত্র আড়াই বছরেই চলে যেতে হল ফুটফুটে ঐত্রি দে-কে? হৃদরোগে না কি অন্য কোনও কারণ? ময়নাতদন্তের প্রাথমিক রিপোর্টের পর ধোঁয়াশায় বিশেষজ্ঞরা।

    মৃত্যুর সঠিক কারণ জানতে ময়নাতদন্ত করা হয় এনআরএস হাসপাতালে। ময়নাতদন্তের প্রাথমিক রিপোর্টে আরও বাড়ল ধোঁয়াশা। মেডিক্যাল কলেজে হবে হিস্টো প্যাথলজিক্যাল টেস্ট।

    কি এই হিস্টো প্যাথলজিক্যাল টেস্ট?

    ঐত্রি হৃদরোগে আক্রান্ত কি না, তা জানতে হৃদযন্ত্রের পেশী পরীক্ষা ৷ ঐত্রির হৃদযন্ত্রের পেশীতে সমস্যা নাকি অন্য কোনও ফরেন বডি হৃদযন্ত্রে ঢুকেছিল?

    আমরি হাসপাতালের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ জানায় মৃত শিশুর পরিবার। এক্ষেত্রে দুটি মামলা রুজু করা হয় ৷ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ও চিকিৎসক জয়তী সেনগুপ্তর বিরুদ্ধে, গাফিলতির জেরে মৃত্যুর অভিযোগে ৩০৪ (এ) ধারায় মামলা রুজু করা হয়েছে। অন্যদিকে, ইউনিট হেড জয়ন্তী চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে ৩২৩ ধারায় মারধর এবং ৫০৬ ধারায় হুমকির মামলা রুজু হয়েছে।

    আরও কয়েকটি দিক খতিয়ে দেখছে পুলিশ। সূত্রের খবর, মৃত্যুর আগের দিন কোন কোন চিকিৎসকের সঙ্গে শিশুর পরিবার কথা বলে ৷ তা জানতে ১৬ জানুয়ারি হাসপাতালের সিসিটিভি ফুটেজ চেয়েছে পুলিশ ৷ (চাওয়া হয়েছে) চিকিৎসা সংক্রান্ত যাবতীয় নথি ৷ ডাকা হতে পারে ইউনিট হেড জয়ন্তী চট্টোপাধ্যায়কে ৷ জিজ্ঞাসাবাদ করা হতে পারে চিকিৎসক জয়তী সেনগুপ্তকে ৷ ঐত্রিকে আগে যে চিকিৎসক দেখতেন তাঁকেও জিজ্ঞাসাবাদ করতে পারে পুলিশ ৷

    স্বাস্থ্য কমিশনের কাছেও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করে ঐত্রির পরিবার। হাসপাতালের কাছে শিশুর চিকিৎসা সংক্রান্ত তথ্য চেয়ে পাঠায় কমিশন। ইতিমধ্যে সেই নথি পাঠিয়েও দিয়েছে আমরি কর্তৃপক্ষ।

    First published:

    Tags: AMRI Child Death, Kolkata, Mother

    পরবর্তী খবর