• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • আজকের খবর কাগজ কী বলছে...

আজকের খবর কাগজ কী বলছে...

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:
                    anandabazar   ১) শুকোচ্ছে গঙ্গা, জলচুক্তির দিকেই আঙুল রাতারাতি জল হারিয়েছিল গঙ্গা, বহরমপুরের ফরাসডাঙায় রবিবার সকালে নদীর বুকে বিস্তৃত চর দেখে অবাক হয়ে গিয়েছিলেন স্থানীয় বাসিন্দারা। চব্বিশ ঘণ্টাও কাটেনি, এ বার চর পড়তে দেখল হাওড়ার বালি। গঙ্গার এই জল-হারা দশার জন্য একুশ বছর আগে, ভারত-বাংলাদেশ জলচুক্তির শর্তের দিকেই আঙুল তুলছেন বিশেষজ্ঞরা। সরকারি সূত্রও জানাচ্ছে, ওই জলচুক্তি মানতে গিয়েই ফরাক্কা ব্যারাজ থেকে নেমে গিয়েছে জলস্তর। আর তার জেরেই, গঙ্গার বুকে কোথাও জেগেছে বিস্তৃত চর, কোথাও বা বন্ধ হয়ে গিয়েছে ফেরি চলাচল। ফরাক্কার ফিডার ক্যানালও নালার চেহারা নেওয়ায় বন্ধ হয়ে গিয়েছে এনটিপিসি-র তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রও। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে পরিস্থিতি বদলের কোনও সম্ভাবনাও যে নেই, তা স্পষ্ট করে দিয়েছেন ফরাক্কা ব্যারাজ কর্তৃপক্ষ। তাদের দাবি, আগামী ২০ মার্চ পর্যন্ত প্রতি দিন বাংলাদেশকে ৩৫ হাজার কিউসেক জল দিতে বাধ্য থাকবে ভারত। তাই এ সপ্তাহে পরিস্থিতি বদলের কোনও সম্ভাবনা নেই। ব্যারাজ সূত্রে জানা গিয়েছে, ২০ মার্চের পর থেকে টানা ১০ দিন চুক্তি অনুসারে ভারত কমপক্ষে ৩৫ হাজার কিউসেক জল পাবে। তখন সমস্যা কিছুটা বদলাবে। তবে, উত্তর ভারতে বৃষ্টি হলে জল সঙ্কট মিটবে কিছুটা দ্রুত। নদী বিশেষজ্ঞ কল্যাণ রুদ্র বলছেন, ‘‘না হলে, অপেক্ষায় থাকতে হবে এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহ পর্যন্ত। কারণ, ওই সময়ে হিমালয়ে বরফ গললে সে জল নেমে আসবে নদীর নিম্ন অববাহিকায়।’ ২) বিরল প্রজাতির কচ্ছপ সংরক্ষণের উদ্যোগ রবীন্দ্রসরোবরে প্রাতভ্রমণ করতে গিয়ে হঠাৎই কিছু মানুষের নজরে পড়ল, জলাশয়ের মাঝে জেগে থাকা ডাঙায় বসে আছে দুটি কচ্ছপ ৷ দেখা মাত্রই খবর গেল কলকাতা উন্নয়ন সংস্থায় ৷ তারা খবর দিলেন টার্টল সার্ভাইভাল অ্যালায়েন্স সংস্থার কাছে ৷ এই সংস্থা বিরল প্রজাতির কচ্ছপ সংরক্ষণের কাজ করে ৷ এই সংস্থার বক্তব্য অনুযায়ী, এই কচ্ছপ দুটি ‘ইন্ডিয়ান রফড টার্টল’ ও ‘ইন্জিয়ান ফ্ল্যাপশেল টার্টল’ প্রজাতির ৷ যা প্রায় বিলুপ্ত ৷ ৩) নিজের মানিব্যাগই ধরাল পকেটমারকে ঘটনাস্থলে কোনও একটা নিশানা রেখেই যায় অপরাধী। তেমনই এক ‘নিশানা’র জন্য পুলিশের জালে ধরা পড়ল চোর। এ ক্ষেত্রে ‘মানিব্যাগ’ ছিনতাই করতে এসে নিজের ‘মানিব্যাগ’টাই ফেলে পালিয়েছিল এক পকেটমার। রবিবার রাতে ঘটনাটি ঘটে পশ্চিম বন্দর থানা এলাকায়। ঘটনাটি ঘটেছে কলকাতা পুলিশের ডিসি (বন্দর) সুদীপ সরকারের অফিসের সামনে। সে সময়ে গার্ডেনরিচ সার্কুলার রোড ধরে হেঁটে বাড়ি ফিরছিলেন বিবি হলের বাসিন্দা বীরেন্দ্র রাম। রাস্তার পাশের এক দোকান থেকে পান কেনেন তিনি। বেশ আমেজে মুখে সবেমাত্র পান দিয়েছেন বীরেন্দ্র। পান বিক্রেতাকে টাকা দেওয়ার জন্যে যেই প্যান্টের পিছনের পকেট থেকে মানিব্যাগ বার করছেন, তখনই পিছন থেকে এক যুবক ছোঁ মেরে ওই মানিব্যাগ ছিনতাই করে দৌড়তে শুরু করে। পানের আমেজ ততক্ষণে কেটে গিয়েছে ওই ব্যক্তির। প্রথমে কিছুটা থতমত খেয়ে যান বীরেন্দ্র। তার পরে তিনিও ধাওয়া করেন ওই যুবককে। কিন্তু তখনই রাস্তায় চলে আসে একটি গাড়ি। কার্যত ফিল্মি কায়দায় ওই চলন্ত গাড়িতে উঠেই পালিয়ে যায় ছিনতাইকারী। এ দিকে, রাত বারোটা নাগাদ এ ভাবে ওই ব্যক্তিকে রাস্তায় দৌড়তে দেখে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় পুলিশও। কিন্তু ততক্ষণে চলন্ত লরির পিছনে চেপে উধাও ছিনতাইকারী যুবক। কিন্তু তখনই পুলিশের চোখে পড়ে সেই নিশানা। হঠাৎ এক পুলিশকর্মী লক্ষ্য করেন রাস্তায় পড়ে রয়েছে একটি মানিব্যাগ। প্রথমে বীরেন্দ্র ভাবেন সেটি তাঁর খোয়া যাওয়া মানিব্যাগটিই। কিন্তু না, ওটি আসলে ছিনতাইকারীর ফেলে যাওয়া অন্য একটি মানিব্যাগ। ওই মানিব্যাগে থাকা ভোটার কার্ডের তথ্য দেখেই খুঁজে বার করা হয় ছিনতাইকারী যুবককে। ৪) পরিকল্পনাই সার, রয়ে গিয়েছে হোর্ডিং বিজ্ঞাপনের দৃশ্যদূষণ রুখে শহরকে নতুন করে সাজিয়ে তোলার পরিকল্পনার কথা ঘোষণা করেছিল বিধাননগর পুরনিগম। পুরকর্তারা জানিয়েছিলেন, যত্রতত্র নয়, বিজ্ঞাপনের স্থান নির্দিষ্ট করা হবে। নির্দিষ্ট করা হবে তার সংখ্যাও। বাড়ানো হবে বিজ্ঞাপনের হোর্ডিংয়ের চার্জ। তাতে আয়ও বাড়বে পুরসভার। কিন্তু এত কিছু ঘোষণার পরে কয়েক মাস কেটে গেলেও কাজ এগোয়নি একচুলও। এখন পুরনিগম বলছে, এই কাজ করতে হলে আগে ‘বেআইনি’ হোর্ডিং চিহ্নিত করতে হবে। কিন্তু ‘বেআইনি’ হোর্ডিং সংখ্যায় কত, সেই তথ্য নেই পুরনিগমের কাছে। তা জানতে নানা পদক্ষেপ শুরু করেছে পুরপ্রশাসন। কিন্তু কবে ‘বেআইনি’ হোর্ডিং সরানোর কাজ শুরু হবে, তার কোনও সদুত্তর মেলেনি প্রশাসনের তরফে। বিরোধীদের অবশ্য অভিযোগ, বিধাননগরের তৃণমূল পরিচালিত বর্তমান পুরনিগম হোর্ডিং নিয়ে যত দাবিই করুক না কেন, গত পুরবোর্ডেও দায়িত্বে ছিল তারাই। বিধাননগর পুরসভায় ক্ষমতায় আসার পরে ৫ বছর কোনও নিয়মের ধার ধারেনি তৃণমূল পুরবোর্ড। এখন পদক্ষেপ করলে নিজেরাই সমস্যা পড়বে শাসক দল। তাই ঘোষণা করেও পরিকল্পনা কার্যকর করতে পারছেন না মেয়র।   logo   ১) প্লাসটিকের বোতলের নৌকায় সাগরপাড়ি জাহাজডুবির পর কাঠের তক্তায় ভর করে সাগার সাঁতরানোর রোমহর্ষক গল্প রয়েছে একাধিক ৷ কিন্তু ঘরের ছেলেরাই যখন নজিরবিহীন অভিযানে নামেন তখন তার খবর ক’জন রাখেন ? ঘটল এমনটাই পুষ্পেন সামন্তের নেতৃত্বে ছ’জনের দল বেরিয়ে পড়েছিল এক অদ্ভুত অভিযানে৷ তবে যতটা না এই অভিযান অদ্ভুত, ততটাই অভিযানের যানটি হতবাক করেছে সব্বাইকে ৷ তাঁদের বাহন তৈরি হয়েছে প্লাসটিকের চারহাজার খালি বোতল দিয়ে ৷ আর যাত্রাপথ সমুদ্র ও নদীপথে ২৫৯ কিলোমিটার ৷ ২) শর্ত না মানায় প্রচারে বাধা ছিটমহলে প্রথম ভোট দেবেন ছিটমহলবাসী ৷ সেই সেই সুযোগে নিজের অধিকার বুঝে নিতে চান ৷ প্রচারে প্রার্থী এলে তিনটি শর্ত তাঁদের সামনে রাখছেন ৷ ছিটমহল বিনিময়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অবদান আছে বলে তাঁরা মনে করেন বটে ৷ কিন্তু তৃণমূল প্রার্থী উদয়ন গুহও তাঁদের দেওয়া শর্ত থেকে রেহাই পেলেন না ৷ তবে ছিটমহল বাসিন্দারা মোটেই মন্ত্রীর মুখের কথায় চিড়ে ভেজাচ্ছেন না ৷ রীতিমতো কাগজে লিখিয়ে নিতে চান ৷ তাঁদের শর্তগুলো কী ? জমির দলিল প্রদান, ছিটমহলকে পিছিয়ে পড়া এলাকা ঘোষণা, পঞ্চায়েতের পরিবর্তে ছিটমহলের বাসিন্দাদের দিয়েই এলাকার উন্নয়ন ৷ ৩) মাঠের বাইরে শান্ত থাকাটাই চাবিকাঠি: বিরাট কোহলি অধিনায়ক নন, সহ অধিনায়ক ৷ বিশ্বকাপ অভিযান শুরুর ২৪ ঘণ্টা আগে বিরাট কোহলিই প্রচারমাধ্যমের সামনে টিম ইন্ডিয়ার মুখ ৷ কাপ জয়ের প্রত্যাশা থেকে টিমের প্রস্তুতি ৷ সব কিছু নিয়েই সোজা-সাপটা ৷ প্রথমেই তাঁকে প্রশ্ন বিশ্বকাপের প্রস্তুতি কেমন ? উত্তরে বিরাট, বেশ আত্মবিশ্বাসী জায়গা থেকে শুরু করছি ৷ কারণ এই ফর্ম্যাটে গত ১১টা ম্যাচের মধ্যে ১০টা জিতেছি আমরা ৷ এশিয়া কাপের মতো টুর্নামেন্টটা প্রস্তুতি হিসেবে খুব কাজ দিয়েছে ৷ কিন্তু বিশ্বকার আরও বড় চ্যালেঞ্জ ৷ পরের প্রশ্নে একেবারে বোল্ডআউট বিরাট ! প্রশ্ন ছিল, নিজের ব্যাটিং ফর্ম কাপ জয়ের সবচেয়ে বড় অস্ত্র কি না ! মুখ থেকে কথা কেড়ে নিয়ে বিরাটের সহজ জবাব ৷ ‘আমার কাছে বড় টুর্নামেন্ট চাপ নয়, বরং সুযোগ ৷ এই ফরম্যাটটা এরকম যে আপনি খুব বেশি বল নাও পেতে পারেন ৷ প্রথম দিকের ব্যাটসম্যানদের দায়িত্বটা বেশি হবেই !’ ৪) এবার জুটি-আবির জয়া জয়া এহেসানের কপাল খুলেছে ৷ টলিউডে একের পর এক বিগ প্রোজেক্ট ৷ সৃজিতের ‘রাজকাহিনি’তে অভিনয়ের পর থেকেই আলাদা করে সবার নজরে পড়েছেব জয়া ৷ আর এবার জুটি বাঁধতে চলেছেন টলিউডের মোস্ট হ্যান্ডসাম আবির চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে ৷ ছবির পরিচালক মনোজ মিচিগান ৷ ছবির নাম ‘আমি জয় চ্যাটার্জি’ ! এই ছবিতেই জুটি বাঁধবেন আবির ও জয়া ৷   bartaman-logo ১) ভোট লুট রুখতে এবার বুথওয়ারি জমায়েত রাখবে বিপিএমও, পরিকল্পনা আলিমুদ্দিনের সুষ্ঠু ও অবাধ ভোটের জন্য বেশ কিছু কাল ধরে রাজ্যের প্রধান বিরোধী পক্ষ তথা বাম শিবির দাবি জানিয়ে আসছে। নির্বাচন কমিশন থেকে শুরু করে প্রশাসনের সর্বস্তরে এই দাবিতে বারবার দরবারও করেছে তারা। তাদের অভিযোগ এবং রাজ্যের বর্তমান আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির কথা বিবেচনা করে নির্বাচন কমিশন বিহার মডেলকে অনুসরণ করে এবার বিধানসভা নির্বাচচের দেড় মাস আগে ২০০ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনীও পাঠিয়েছে পশ্চিমবঙ্গে। তবে গত লোকসভা নির্বাচনের অভিজ্ঞতা বিবেচনা করে কমিশনের শত কঠোর পদক্ষেপ সত্ত্বেও পুরোপুরি আস্বস্ত হতে পারছে না বামেরা। তাই ভোটের দিনগুলিতে তারা বুথওয়ারি গণ জমায়েতের ব্যবস্থা রাখতে চলেছে এবার। যদিও সরাসরি কোনও বাম পার্টিকে নয়, এলাকার সাধারণ সমর্থকদের নিয়ে তারা এই দায়িত্ব দিচ্ছে বিভিন্ন গণ সংগঠনকে নিয়ে গঠিত বেঙ্গল প্ল্যাটফরম অফ মাস অরগানাইজেশন বা বিপিএমও’কে। ২) সবচেয়ে বেশি বিক্রি হয় গন্ডারের নকল খড়গ বন্যপ্রাণীদের যেসব দেহাংশ পাচার করা হয়, তার মধ্যে সবথেকে বেশি নকল করা হচ্ছে গন্ডারের খড়্গ। রাজ্য তথা দেশের বিভিন্ন প্রান্তে নানা সময় বন্যপ্রাণীদের দেহাংশ উদ্ধার করে থাকে বনদপ্তর বা ওয়াইল্ডলাইফ ক্রাইম কন্ট্রোল ব্যুরো (ডব্লুসিসিবি)। পরবর্তী পর্যায়ে সেগুলি আসল কি না, তা খতিয়ে দেখার জন্য জিওলজিক্যাল সার্ভে অব ইন্ডিয়ার (জেডএসআই) বিজ্ঞানীদের কাছে পাঠিয়ে থাকে সংশ্লিষ্ট পক্ষ। বন্যপ্রাণীদের সেই সমস্ত দেহাংশ পরীক্ষা করেই জেডএসআই-এর বিজ্ঞানীদের দাবি, এগুলির মধ্যে অনেক নকল সামগ্রী থাকে, যেগুলিকে বন্যপ্রাণীদের দেহাংশ বলে বিক্রি করার চেষ্টা করে দুষ্কৃতীরা। এর মধ্যে সবথেকে বেশি গন্ডারের নকল খড়্গ বিক্রি করা হয়। ৩) ডেবিট কার্ডের পিন হাতিয়ে কেনাকাটা, ঝাড়খণ্ড থেকে ধৃত অভিযুক্ত এটিএম কার্ডের পিন হাতিয়ে ৮৩ হাজার টাকার কেনাকাটা করার অভিযোগে একজনকে গ্রেপ্তার করল বিধাননগর সাইবার থানা। রবিবার রাতে ওই অভিযুক্ত পুরুষোত্তম কুমার ওরফে রাজা সিংকে তার ঝাড়খণ্ডের বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করে সাইবার থানার বিশেষ দল। পুলিশ জানিয়েছে, গতবছর সেপ্টেম্বর মাসে নারায়ণপুরের এক বৃদ্ধা সাইবার থানায় অভিযোগ করেন, রাজা সিং নামে এক ব্যক্তি তাঁকে ফোন করে বলেন, এটিএম কার্ড ব্লক হয়ে যাবে। তাই অবিলম্বে সেটিকে বদল করতে হবে। এর জন্য পুরানো এটিএম কার্ডের পিনসহ বিস্তারিত তথ্য তিনি যেন রাজা সিংকে জানিয়ে দেন। এমনকী এসএমএসের মাধ্যমে যে ওটিপি নম্বর এসেছিল, তাও ওই বৃদ্ধা রাজা সিংকে দিয়ে দেন। এরপরই ওই বৃদ্ধা লক্ষ্য করেন তাঁর ব্যাংক অ্যাকাউন্টের টাকা দিয়ে বিভিন্ন সামগ্রী কেনা হয়েছে। বাধ্য হয়ে তিনি বিধাননগর সাইবার থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। এরপরেই তদন্ত শুরু করে ওই থানা। কিন্তু অভিযুক্তকে পাওয়া যাচ্ছিল না। অবশেষে কয়েকদিন আগে সাইবার থানার গোয়েন্দারা জানতে পারেন, ঝাড়খণ্ডের ওই যুবক পরিচয় গোপন করে ফোন করেছিল বৃদ্ধাকে। সেইমতো শনিবারই ঝাড়খণ্ডের উদ্দেশে রওনা হয় সাইবার থানার দল। রবিবার রাতে স্থানীয় কালাঝরিয়া এলাকার জিয়ানপুর গ্রাম থেকে ওই অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করা হয়। ট্রানজিট রিমান্ডে তাকে নিয়ে আসা হচ্ছে বলে পুলিশ জানিয়েছে। ৪) মাগনায় হোটেলে থাকব না, ভোটের আগে বোধোদয় পুলিশের, খুশি মালিকরা হঠাৎ উলটো সুরে গান গাইছে পুলিশ! অন্তত এমনটাই বলছে এ রাজ্যের হোটেল মালিকদের একাংশ। সামনেই ভোট। ভোটের সময় বেসরকারি হোটেলের বেশকিছু ঘর নিজেদের দখলে রাখাই পুলিশের রেওয়াজ। তাদের আরও একটি অভ্যাস হল, হোটেলে থেকে, খেয়ে, তার বিল না মেটানো। এমনই অভিযোগ এ রাজ্যের অধিকাংশ হোটেলের। এবার নাকি সেই পথ থেকে সরে আসতে চাইছে পুলিশ। ইতিমধ্যেই জলপাইগুড়ি এবং মালদহে জেলাশাসকের অফিসে হোটেলের দর-দাম জানতে মালিকদের সংগঠনকে ডেকে পাঠানো হয়েছে। বেশ কয়েকটি জেলায় হোটেল মালিকদের সঙ্গে এই বিষয়ে কথা বলতে উদ্যোগী হয়েছে প্রশাসন। আর তাতেই একটু হলেও হাঁফ ছেড়ে বেঁচেছেন হোটেল মালিকরা। মাগনায় থাকা-খাওয়ার সংস্কৃতি থেকে বেরিয়ে এসে পয়সা মেটানোর বিষয়ে পুলিশের এই বোধোদয়কে সাধুবাদ জানাচ্ছেন তাঁরা।   thetelegraph_344     ১) সিনেমাকে নিষিদ্ধ করতে পারবে না রাজ্য এবার থেকে আপত্তি থাকলেও, সিনেমাকে নিষিদ্ধ করতে পারবে না রাজ্য সরকার ৷ কোনও সিনেমাকে কেন্দ্রীয় সেন্সর বোর্ড একবার ছাড়পত্র দিয়ে দিলে, সেই সিনেমাকে নিষিদ্ধ করতে পারবে না রাজ্য ৷ সোমবার এরকমই এক সিদ্ধান্ত নেয়, কেন্দ্রীয় সরকার ৷ এর আগে বহু ক্ষেত্রেই দেখা গিয়েছে, পুরো দেশে সিনেমা মুক্তি পাওয়ার পর নির্দিষ্ট কিছু রাজ্যে সিনেমা নিষিদ্ধ করা হয়েছে ৷ রাজ্যের এই হস্তক্ষেপকেই সমালোচনা করেই এই সিদ্ধান্ত নিল কেন্দ্রীয় সরকার ৷ ২) মে মাসেই শেষ হবে বাদ বাকি ‘পরমা’ মে মাসের প্রথম সপ্তাহের মধ্যেই বাদ বাকি পরমা ফ্লাইওভারে কাজ শেষ হবে ৷ পরমা ফ্লাইওভার খুলে যাওয়ার পরও ৯৫০ মিটার লম্বা রাম্পের কাজ ছিল বাকি ৷ সোমবার ফ্লাইওভারের দায়িত্বে থাকা সংস্থার পক্ষ থেকে জানানো হয় মে মাসের প্রথম সপ্তাহের মধ্যেই শেষ হবে ফ্লাইওভারে বাদ বাকি কাজ ৷ ৩) ট্যাক্সি ধর্মঘটে নাকাল শহর ফের ট্যাক্সি ধর্মঘট। ফের ভোগান্তি। সোমবার এআইটিইউসির ডাকা ট্যাক্সি ধর্মঘটে ফের যাত্রী হয়রানির চেনা ছবি ফিরে এল হাওড়া ও শিয়ালদহ স্টেশন চত্বরে। প্রি-পেড ট্যাক্সি বুথে দীর্ঘ অপেক্ষার পরেও ট্যাক্সির দেখা মেলেনি দুই স্টেশনেই। দেখা মেলেনি সরকারি বাসেরও। ফলে দিনভর নাজেহাল হন ট্রেন যাত্রীরা। তবে এরই মধ্যে দেখা মিলেছে ওলা, উবের ও কিছু এসি ট্যাক্সির। মুর্শিদাবাদ থেকে সপরিবার কলকাতায় ডাক্তার দেখাতে এসেছিলেন সুপ্তি দাস। শিয়ালদহ স্টেশনে দাঁড়িয়ে তাঁর মন্তব্য, ‘‘এ শহরে কে কখন ধর্মঘট ডাকে, বোঝা দায়! মানুষের কথা কবে যে রাজনৈতিক দলগুলি বুঝবে জানি না?’’ অবশেষে ট্রাফিক পুলিশের সাহায্যে একটি এসি ট্যাক্সিতে চড়ে রওনা দেন তিনি।   download   ১) প্রত্যেক স্কুলে গাইতে হবে জাতীয় সঙ্গীত সম্প্রতি পশ্চিবঙ্গ সরকার এক নির্দেশিকা পেশ করে জানাল, প্রত্যেক সরকারী স্কুলে প্রার্থনা সঙ্গীতে গাইতে হবে জাতীয় সঙ্গীত ৷ এই ঘোষণার পরে বাংলার এক মাদ্রাজা বিদ্যালয়ে আক্রান্ত হয়েছিলেন এক শিক্ষক ৷ সরকারকে একথা জানানোর পরে, নতুন করে নির্দেশিকা দেয় পশ্চিমবঙ্গ সরকার ৷ পশ্চিমবঙ্গের সমস্ত সরকারি স্কুলে জাতীয় সংগীতকে বাধ্যতামূলক করার কথা বলা হয় নির্দেশে ৷  ২) পারকিনসন রোগিদের জন্য চামচ তৈরি করে পুরস্কৃত হেরিটেজের শিক্ষক কলকাতার হেরিটেজ ইন্সটিটিউট অফ টেকনোলজি কলেজের জন্য সুখবর ৷ তাঁদের কলেজের শিক্ষক দেবজ্যেতি চৌধুরী সম্মানিত হলেন ‘গান্ধিয়ান ইয়ং টেকনোলজি ইনোভেশন’ পুরস্কারে ৷ ১২ মার্চ রাষ্ট্রপতির হাত থেকে পুরস্কার নিয়েছেন দেবজ্যোতি ৷ পারকিনসন রোগিদের জন্য বিশেষ চামচ ও পেন বানানোর জন্যই পুরস্কৃত করা হয়েছে তাঁকে ৷    
    First published: