• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • যাদবপুর অঞ্চলে ডায়েরিয়ায় আক্রান্তের সংখ্যা ২০০০ ছাড়াল ! কারণ খুঁজে পাচ্ছে না পুরসভা

যাদবপুর অঞ্চলে ডায়েরিয়ায় আক্রান্তের সংখ্যা ২০০০ ছাড়াল ! কারণ খুঁজে পাচ্ছে না পুরসভা

Representational Image

Representational Image

দক্ষিণ কলকাতায় ডায়েরিয়ার পরিস্থিতি ক্রমশই আরও উদ্বেগজনক হয়ে উঠেছে ৷

  • Share this:

    #কলকাতা: দক্ষিণ কলকাতায় ডায়েরিয়ার পরিস্থিতি ক্রমশই আরও উদ্বেগজনক হয়ে উঠেছে ৷  এ পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ২০০০ ছাড়িয়েছে। কিন্তু অ্যকিউট ডি- হাইড্রেশন কারো নেই। সিরিয়াস কিছু নেই। একটা ‘Fear Psychosis’ কাজ করছে। চিকিসকেরা বলছেন এইসময় এর থেকে বেশি রোগী হয়। জলে ক্যালিফর্ম ব্যাকটেরিয়া বিপজ্জনক মাত্রার অনেক নীচে রয়েছে বলে না গিয়েছে পুরসভার স্যাম্পেল টেস্ট রিপোর্ট। আজও ৪০ স্যাম্পেল সংগ্রহ করা হয়েছে। স্কুল অফ ট্রপিক্যাল মেডিসিনে পাঠানো হবে সেই স্যাম্পেলগুলি। জানালেন মেয়র পারিষদ অতীন ঘোষ।

    তিন দিনে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে তো এলই না। বরং আরও উদ্বেগজনক হয়ে উঠল ডায়েরিয়া পরিস্থিতি। নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন বহু মানুষ। নতুন করে বেশ কিছু এলাকাতেও ছড়িয়েছে ডায়েরিয়া। পুরসভার স্বাস্থ্যকেন্দ্রে উপচে পড়ছে ভিড়। সরবরাহ করা পানীয় জল থেকে সংক্রমণের সম্ভাবনা মানতে নারাজ পুরসভা। তা হলে কেন এই পরিস্থিতি? উত্তর খুঁজছে পুর-প্রশাসন। 

    আরও পড়ুন-

    ডায়েরিয়া আটকাতে কী করবেন ? জেনে নিন চিকিৎসকদের পরামর্শ

    আরও ছড়াচ্ছে ডায়েরিয়া। সোমবার দক্ষিণ কলকাতার বেশ কয়েকটি অঞ্চল থেকে নতুন করে ছড়ায় ডায়েরিয়া। সেলিমপুর, হালতুর মতো অঞ্চলে হাসপাতালে ভরতি করা হয় বেশ কয়েকজনকে। যত বেলা গড়িয়েছে ততই ভিড় বেড়েছে পুর-স্বাস্থ্যকেন্দ্র ও হাসপাতালে।

    পুরসভার সরবরাহ করা জল থেকেই ডায়েরিয়া ছড়াচ্ছে বলে এই অভিযোগ উঠেছিল। যা মানতে নারাজ পুর-প্রশাসন। দক্ষিণ কলকাতার ১০১ থেকে ১০৯ নম্বর ওয়ার্ডেই ডায়েরিয়ার প্রবণতা বেশি। ৯২ নম্বর ওয়ার্ডেও ডায়েরিয়া আক্রান্ত রোগীর সন্ধান মিলেছে। সূত্রের খবর, গত তিনদিনে আক্রান্তের সংখ্যা হাজার ছাড়িয়েছে। সোমবারও শহরের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন বেশ কিছু আক্রান্ত।

    ডায়েরিয়া নিয়ন্ত্রণে পুরসভার ব্যর্থতার অভিযোগে সরব বিরোধীরা। পুরসভার সরবরাহ করা জল খেতে ভয় পাচ্ছেন অনেকেই। আতঙ্কের ঠেলায় মিনারেল ওয়াটার ও পরিশ্রুত পানীয় জলের দাম চড়ছে ডায়েরিয়া প্রবণ ওয়ার্ডগুলিতে। রোগের প্রকোপ আটকাতে সতর্ক হওয়ার পরামর্শ চিকিৎসকদের।

    আগামী ২ -৩ দিনে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসবে বলে আশা পুরসভার। তবে এই ধরণের পরিস্থিতি রুখতে প্রয়োজনীয় পরিকাঠামোর অভাব রয়েছে খোদ কলকাতা পুরসভাতেই। এই ঘটনায় তা আরও একবার প্রমাণিত।

    First published: