• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • ভোট প্রচারে আক্রমণাত্মক মোদি, নিশানায় তৃণমূল-বাম-কংগ্রেস

ভোট প্রচারে আক্রমণাত্মক মোদি, নিশানায় তৃণমূল-বাম-কংগ্রেস

বিজেপির হাতিয়ার নারদের স্টিং। সেই স্টিংয়ের হুলে তৃণমূলকে বৃহস্পতিবার ফের বিঁধলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। প্রথমে মাদারিহাট, তারপর আসানসোল এবং শেষে শিলিগুড়ি। তিনটি সভাতেই রাজ্যের শাসকদলের বিরুদ্ধে সারদা, নারদের মতো দুর্নীতিকে হাতিয়ার করেন মোদি। পোস্তার উড়ালপুল বিপর্যয়ের জন্যেও সরাসরি দায়ী করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। মোদির আক্রমণের নিশানায় ছিল বাম-কংগ্রেস জোটকেও।

বিজেপির হাতিয়ার নারদের স্টিং। সেই স্টিংয়ের হুলে তৃণমূলকে বৃহস্পতিবার ফের বিঁধলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। প্রথমে মাদারিহাট, তারপর আসানসোল এবং শেষে শিলিগুড়ি। তিনটি সভাতেই রাজ্যের শাসকদলের বিরুদ্ধে সারদা, নারদের মতো দুর্নীতিকে হাতিয়ার করেন মোদি। পোস্তার উড়ালপুল বিপর্যয়ের জন্যেও সরাসরি দায়ী করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। মোদির আক্রমণের নিশানায় ছিল বাম-কংগ্রেস জোটকেও।

বিজেপির হাতিয়ার নারদের স্টিং। সেই স্টিংয়ের হুলে তৃণমূলকে বৃহস্পতিবার ফের বিঁধলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। প্রথমে মাদারিহাট, তারপর আসানসোল এবং শেষে শিলিগুড়ি। তিনটি সভাতেই রাজ্যের শাসকদলের বিরুদ্ধে সারদা, নারদের মতো দুর্নীতিকে হাতিয়ার করেন মোদি। পোস্তার উড়ালপুল বিপর্যয়ের জন্যেও সরাসরি দায়ী করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। মোদির আক্রমণের নিশানায় ছিল বাম-কংগ্রেস জোটকেও।

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #কলকাতা: বিজেপির হাতিয়ার নারদের স্টিং। সেই স্টিংয়ের হুলে তৃণমূলকে বৃহস্পতিবার ফের বিঁধলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। প্রথমে মাদারিহাট, তারপর আসানসোল এবং শেষে শিলিগুড়ি। তিনটি সভাতেই রাজ্যের শাসকদলের বিরুদ্ধে সারদা, নারদের মতো দুর্নীতিকে হাতিয়ার করেন মোদি। পোস্তার উড়ালপুল বিপর্যয়ের জন্যেও সরাসরি দায়ী করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। মোদির আক্রমণের নিশানায় ছিল বাম-কংগ্রেস জোটকেও।

    প্রথম দফাতেই আক্রমণের সুর চড়িয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী। বুঝিয়েও দেন, প্রাক নির্বাচনী সমীক্ষা তাঁর দলকে বিশেষ নম্বর না দিলেও, তিনি লড়াই ছাড়বেন না। রাজ্যে দ্বিতীয় দফার ভোটপ্রচারে সেই আক্রমণের ঝাঁঝ আরও বাড়ালেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। বৃহস্পতিবার মাদারিহাট, আসানসোল ও শিলিগুড়িতে দলীয় প্রার্থীদের সমর্থনে জনসভা করেন প্রধানমন্ত্রী। তিনটি সভাতেই নারদের স্টিং অপারেশনকেই হাতিয়ার করে তৃণমূল কংগ্রেসকে আক্রমণ করেন মোদি। একইসঙ্গে সারদা, সিন্ডিকেটের মতো বিতর্কিত ইস্যুগুলিতেও শাসক দল ছিল প্রধানমন্ত্রী মোদির নিশানায়।

    এদিন নির্বাচনী জনসভা থেকে পোস্তার উড়ালপুল বিপর্যয়ের জন্যেও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই সরাসরি দায়ী করেন মোদি । বলেন, ‘কলকাতায় ভোটের মুখে উড়ালপুল ভাঙল ৷ সেখানেও দোষারোপের পালা শুরু করলেন দিদি ৷ বামেদের দিকে আঙুল তুলছেন দিদি ৷ মৃতদের আগে বাঁচাও, তা না করে বামেদের আক্রমণ ৷ আমি জানতে চাই কোনটা আগে দিদি? মৃত্যু নিয়ে রাজনীতি করছেন দিদি ৷ যদি এই সেতু দিদিকে উদ্বোধন করতে হতো ৷ তাহলে দিদি কি বলতেন? এটা অ্যাক্ট অফ গড? এটা আসলে অ্যাক্ট অফ ফ্রড ৷ ’

    জনসভায় বাম-কংগ্রেস জোটকেও কটাক্ষ করতে ছাড়েননি প্রধানমন্ত্রী। কেরল ও বাংলায় দু'দলের পার্থক্য তুলে ধরে, সুকৌশলে বাম-কংগ্রেসে বিভাজনেরও চেষ্টা করেন মোদি। নরেন্দ্র মোদি বলেন, ‘বাংলায় একরকম আর কেরলে একরকম ৷ কেরলে ওরা কমিউনিস্ট পার্টিকে গালাগাল দিচ্ছে আর বাংলায় দেখুন ৷ কংগ্রেস বামেদের মাথায় তুলে নাচছে ৷ কেরলে কুস্তি আর বাংলায় দোস্তি ৷ এদের উপর কি ভরসা করতে পারবেন?’

    চলতি ভোটে দুর্নীতি রাজ্যের অন্যতম নির্বাচনী ইস্যু। তবে রাজ্যবাসীর মন জয়ে উন্নয়নের চেনা তাস খেলতেও ভোলেননি প্রধানমন্ত্রী। জনসভায় উপচে পড়া ভিড় হলেও, শেষ পর্যন্ত প্রাক নির্বাচনী সমীক্ষাগুলিকে মোদি ভুল প্রামাণিত করতে পারেন কিনা, সেটাই দেখার।

    First published: