corona virus btn
corona virus btn
Loading

এসএসকেএমে অ্যাঞ্জিওগ্রাম করতে গিয়ে ধমনী ছিঁড়ে মৃত্যু রোগিনীর

এসএসকেএমে অ্যাঞ্জিওগ্রাম করতে গিয়ে ধমনী ছিঁড়ে মৃত্যু রোগিনীর
কালিয়াগঞ্জের বাসিন্দা নমিতা বণিক

এসএসকেএমে অ্যাঞ্জিওগ্রাম করতে গিয়ে ধমনী ছিঁড়ে মৃত্যু রোগিনীর

  • Share this:

#কলকাতা: সামান্য অ্যাঞ্জিওগ্রাম করাতে গিয়ে মৃত্যু। গাফিলতির জেরে রোগীমৃত্যুর অভিযোগ এবার রাজ্যের অন্যতম সেরা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের বিরুদ্ধে। এসএসকেএমে অ্যাঞ্জিওগ্রাম করাতে গিয়েই কোমায় চলে যান এক রোগী। বৃহস্পতিবার সকালে মৃত্যু হয় তাঁর। অ্যাঞ্জিওগ্রামের সময় অসাবধানে ধমনী ছিঁড়েই মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ পরিবারের। ভবানীপুর থানায় অভিযোগ দায়ের পরিবারের।

অ্যাঞ্জিওগ্রাম করাতে গিয়েছিলেন। তারপরেই হার্ট অপারেশন।অপারেশনের পরই অবস্থার অবনতি। কোমায় চলে যান কালিয়াগঞ্জের বাসিন্দা নমিতা বনিক। বৃহস্পতিবার রোগীর মৃত্যু হল এসএসকেএমে। গাফিলতির জেরেই এই ঘটনা বলে অভিযোগ। রাজ্যের অন্যতম সেরা হাসপাতালে এই অভিযোগ ঘিরে কাঠগড়ায় এসএসকেএমের কার্ডিওলজি বিভাগ।

বুথে ব্যথা হওয়ায় এসএসকেএমের ওপিডিতে দেখান নমিতাদেবী ৷ চিকিৎসকদের পরামর্শে তাঁকে ভর্তি করে নেওয়া হয় ৷ ১৩ ডিসেম্বর তাঁর অ্যাঞ্জিওগ্রামের হয় ৷ অ্যাঞ্জিওগ্রামের পরই নমিতাদেবীর হার্ট অপারেশন হয় ৷ প্রথমে আইসিসিইউ ও পরে ভেন্টিলেশনে চলে যায় রোগী ৷ ১৮ ডিসেম্বর সুপারের কাছে অভিযোগ জানায় পরিবার ৷ বৃহস্পতিবার মৃত্যু হয় নমিতাদেবীর ৷

অ্যাঞ্জিওগ্রামের সময় নমিতাদেবীর ধমনী ছিঁড়ে যাওয়াতেই এই পরিণতি বলে অভিযোগ পরিবারের। কার্ডিওলজি বিভাগের প্রধান এসসি মন্ডল ও ডঃ একে দাসের বিরুদ্ধেই অভিযোগ পরিবারের। এই দুই চিকিৎসকের অধীনেই ভর্তি হয়েছিলেন নমিতাদেবী।

বেসরকারি হাসপাতালে হামেশাই এই অভিযোগ ওঠে। তবে এসএসকেএমের মতো রাজ্যের সেরা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালেও একই অভিযোগ ওঠায় অস্বস্তিতে স্বাস্থ্য দফতর।

First published: December 21, 2017, 7:20 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर