মহারাষ্ট্রে থেকে আসা বেশিরভাগ পরিযায়ী শ্রমিকই করোনা আক্রান্ত, উদ্বেগ জেলায় জেলায়

গ্রামবাসীদের দাবি, মহারাষ্ট্র থেকে যে সমস্ত পরিযায়ী শ্রমিকরা আসছেন তাঁদের সরকারিভাবে কোয়ারেন্টাইন রাখা হোক ।

গ্রামবাসীদের দাবি, মহারাষ্ট্র থেকে যে সমস্ত পরিযায়ী শ্রমিকরা আসছেন তাঁদের সরকারিভাবে কোয়ারেন্টাইন রাখা হোক ।

  • Share this:

Pranab Kumar Banerjee

#কলকাতা: মুর্শিদাবাদে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে । ইতিমধ্যেই জেলাতে ৫৯ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। যদিও সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১৩ জন। রবিবার মারা গিয়েছেন নবগ্রামের একজন। ইতিমধ্যেই জেলাতে কয়েক হাজার পরিযায়ী শ্রমিক এসেছেন। যে ৫৯জন করানা আক্রান্ত হয়েছেন তাঁদের মধ্যে ৪২ জনই  পরিযায়ী শ্রমিক। বিভিন্ন গ্রামে আতঙ্ক ছড়িয়েছে। সরকারিভাবে যে সমস্ত পরিযায়ী শ্রমিকরা মহারাষ্ট্র থেকে ফিরেছেন তাঁরাই বিশেষ করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন।

মহারাষ্ট্র থেকে যে সমস্ত পরিযায়ী শ্রমিকরা এসেছেন তাঁদের বেশিরভাগই গ্রামের মধ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। গ্রামবাসীদের দাবি, মহারাষ্ট্র থেকে যে সমস্ত পরিযায়ী শ্রমিকরা আসছেন তাঁদের সরকারিভাবে কোয়ারেন্টাইন রাখা হোক । তবে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা প্রতিদিন বেড়ে চলায় মুর্শিদাবাদে কোভিড হাসপাতালে আরও বেড সংখ্যা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেওযা হয়েছে। বহরমপুর মাতৃসদনে আরও একটি নতুন ওয়ার্ড খোলা হয়েছে। যেখানে করোনা আক্রান্ত রোগীদের রাখা হবে । আগে মাতৃসদনে ৬০ টি বেড  ছিল, বর্তমানে তা ১০০ টি বেড করা হবে।

নবগ্রামের বাসিন্দা রফিক শেখ বলেন, আমাদের এই এলাকাতে প্রায় ১০ জনের করোনা পজেটিভ এসেছে। তাঁরা প্রত্যেকেই পরিযায়ী শ্রমিক হিসেবে কাজ করতেন মহারাষ্ট্রে। মহারাষ্ট্র থেকে আরও অনেকেই ফিরে এসেছেন। এই সমস্ত পরিযায়ী শ্রমিকদের সরকারিভাবে কোয়ারেন্টাইন সেন্টারের রেখে দেওয়া উচিত ছিল। সরকার তা করেনি।

Published by:Simli Raha
First published: