Home /News /kolkata /
Matua Vote: ফ্যাক্টর মতুয়া ভোট!  চব্বিশের নির্বাচনের আগে ফের সিএএ অস্ত্রে শান বঙ্গ বিজেপির

Matua Vote: ফ্যাক্টর মতুয়া ভোট!  চব্বিশের নির্বাচনের আগে ফের সিএএ অস্ত্রে শান বঙ্গ বিজেপির

পদ্ম শিবিরের নেতৃত্বের বক্তব্য,' অযোধ্যায় রাম মন্দির নির্মাণের পর এবার লক্ষ্য  CAA লাগু। এবার আসরে বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার। তাঁর গলাতেও এবার সিএএ-প্রতিশ্রুতি।

  • Share this:

#কলকাতা:  নাগরিকত্ব সংশোধন নিয়ে শুরু থেকেই চাপানউতোর। উনিশের লোকসভা ভোটের পর আইন তৈরি হয়। কিন্তু, সেই আইন, সিএএ, আজও কার্যকর হয়নি। দুই বছর পর আবার লোকসভা ভোট। আবারও বিজেপি নেতাদের মুখে সিএএ-প্রতিশ্রুতি। যা নিয়ে তরজা তুঙ্গে।  ভোটে গরম সিএএ-অস্ত্র। বাংলাদেশ থেকে আসা উদ্বাস্তুদের বড় অংশ তপসিলি জাতিভুক্ত মতুয়া। তাঁদের দাবি স্থায়ী নাগরিকত্ব। গত কয়েকবছরে এই নাগরিকত্ব ইস্যুতেই হয়েছে বিস্তর চাপানউতোর। সূত্রপাত ২০১৯-এ।

উনিশের লোকসভা ভোটের আগে মতুয়াদের মন পেতে তাঁদের স্থায়ী নাগরিকত্ব দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেয় বিজেপি। ভোটের ময়দানে ইস্যু হয় সিএএ। লোকসভা ভোটের ফলে এর ডিভিডেন্ডও পায় বিজেপি। মতুয়া প্রভাবিত রাণাঘাট এবং বনগাঁ আসনেও পদ্ম ফোটে। লোকসভা ভোটের পর সিএএ নিয়ে তৎপরতা বাড়ে পদ্ম শিবিরে। ২০১৯-এর ডিসেম্বরে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলে ছাড়পত্র দেয় মোদির মন্ত্রিসভা। বিলে বলা হয় পড়শি দেশগুলির অ-মুসলিম শরণার্থীদের ভারতের নাগরিকত্ব দেওয়া হবে।  বিল সংসদে পেশ হতেই দেশজুড়ে বিক্ষোভের আগুন। যদিও, তারপরও পিছু হঠেনি মোদি সরকার। ২০২০ সালের ১০ জানুয়ারি আইনে পরিণত হয় নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল। কিন্তু, আজও কার্যকর হয়নি সিএএ। যদিও, একুশের বিধানসভা ভোটের ময়দানে একাধিকবার পদ্ম নেতাদের মুখে শোনা গিয়েছে সিএএ-প্রতিশ্রুতি।

আরও পড়ুন - West Bengal Weather Update: আজ কি ভিজতেই হবে? দিনের বিভিন্ন সময়ে বজ্র বিদ্যুৎ সহ বৃষ্টির পূর্বাভাস, রইল আজকের ওয়েদার আপডেট

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ কয়েক মাস আগে উত্তরবঙ্গ সফরে এসে এক জনসভায় বলেছিলেন, সবাই করোনার টিকা পেলেই  সিএএ কার্যকর করার পথে হাঁটবে কেন্দ্র। প্রসঙ্গত,বাংলার প্রায় ৮৩টি বিধানসভা আসন মতুয়া প্রভাবিত।এর মধ্যে একুশের বিধানসভা নির্বাচনে ৫৩টি আসনে জেতে তৃণমূল। ৩০টিতে বিজেপি।রাজ্যে বিজেপির প্রাপ্ত আসনের প্রায় ৩৯% মতুয়া প্রভাবিত। আসন জিতেছে বিজেপি। কিন্তু, সিএএ আজও চালু হয়নি। এর জেরে মতুয়াদের একাংশের মধ্যে ক্ষোভ তৈরি হয়েছে। সম্প্রতি, বেসুরো হন বঙ্গে বিজেপির মতুয়া মুখ শান্তনু ঠাকুরও। হরিণঘাটার  বিজেপি বিধায়ক অসীম সরকার সম্প্রতি বলেন, আমার কেন্দ্রের ভোটারদের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম  সিএএ- এর।  অবিলম্বে সিএএ লাগু না হলে মানুষের কাছে আর ভোট চাইতে যেতে পারবো না'। পদ্ম শিবির সাময়িক ভাবে এই পরিস্থিতি সামাল দিতে পারলেও মতুয়ারা সিএএ’র দাবিতে অনড়।

আরও পড়ুন - BSF vs BGB: পারল না ভারত, দু'দেশের লড়াইতে বিএসএফকে হারিয়ে জয়ী বিজিবি

এই পরিস্থিতিতেই এবার আসরে বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার। তাঁর গলাতেও এবার সিএএ-প্রতিশ্রুতি। বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদারকে সিএএ নিয়ে আপনাদের কি প্রতিক্রিয়া? প্রশ্নের উত্তরে সুকান্তবাবু বলেন, বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতাদের  লক্ষ্য ছিল, অযোধ্যায় রাম মন্দির নির্মাণ করা। আদালতের নির্দেশে সেটা হয়েছে। আমাদের এবার লক্ষ্য,  পশ্চিমবঙ্গ সহ গোটা দেশেই সিএএ লাগু করা। তাঁর দাবি, ২০২৪-এর লোকসভা নির্বাচনের অনেক আগেই এ রাজ্যেও আইন লাগু হবে'। রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর কথায়, 'সিএএ লাগু হবেই। ২৪ এর নির্বাচন পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে না'। বঙ্গ বিজেপির রাজ্য সভাপতি ও বিরোধী দলনেতার মুখে সিএএ নিয়ে একই সুর। যা ঘিরে নতুন করে রাজনৈতিক উত্তাপে টগবগ করে ফুটতে শুরু করেছে বঙ্গ রাজনীতির ময়দান।

  VENKATESWAR LAHIRI

Published by:Debalina Datta
First published:

Tags: BJP, CAA, Lok Sabha Elections 2024

পরবর্তী খবর