Home /News /kolkata /

ভোল বদলেও রক্ষা হল না, বুদ্ধগয়া বিস্ফোরণে গ্রেফতার 'মোস্ট ওয়ান্টেড' জঙ্গি, বড়সড় সাফল্য এসটিএফের

ভোল বদলেও রক্ষা হল না, বুদ্ধগয়া বিস্ফোরণে গ্রেফতার 'মোস্ট ওয়ান্টেড' জঙ্গি, বড়সড় সাফল্য এসটিএফের

গোয়েন্দা সংস্থার হাতে তার ছবি পৌঁছে যাওয়ায় লুকিয়ে থাকার জন্য চেহারায় আমূল পরিবর্তন এনেছিল করিম

গোয়েন্দা সংস্থার হাতে তার ছবি পৌঁছে যাওয়ায় লুকিয়ে থাকার জন্য চেহারায় আমূল পরিবর্তন এনেছিল করিম

ভারতে জামাত-উল-মুজাহিদিন (জেএমবি) জঙ্গি সংগঠনের মাথা ও বিহারের বুদ্ধগয়ায় বিস্ফোরণে 'মোস্ট ওয়ান্টেড' জঙ্গি আব্দুল করিম

  • Share this:

#কলকাতা: চেহারায় পরিবর্তন এনেও রক্ষা হল না। প্রায় দু'বছর পর অবশেষে সাফল্য পেল এসটিএফ। ভারতে জামাত-উল-মুজাহিদিন (জেএমবি) জঙ্গি সংগঠনের মাথা ও বিহারের বুদ্ধগয়ায় বিস্ফোরণে 'মোস্ট ওয়ান্টেড' জঙ্গি আব্দুল করিমকে অবশেষে গ্রেফতার করতে সক্ষম হল এসটিএফ। বৃহস্পতিবার রাতে মুর্শিদাবাদের সুতি থানা এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে কলকাতা পুলিশের এসটিএফ। ধৃতকে শুক্রবার ব্যাঙ্কশাল আদালতে তোলা হবে।

এস টি এফ সূত্রে খবর, আব্দুল করিম জেএমবির বিস্ফোরক বিশেষজ্ঞ। এদেশে জেএমবির তিন মোস্ট ওয়ান্টেড জঙ্গির মধ্যে একজন। বুদ্ধগয়ায় যে আইইডি বিস্ফোরণ ঘটেছিল তা সরবরাহ করেছিল জেএমবির অন্যতম এই মাথা। ২০১৮ সালে জানুয়ারি মাসে ওই বিস্ফোরণের ঘটনায় তদন্তভার নেওয়ার পরই আব্দুল করিমের বাড়িতে হানা দিয়েছিল এসটিএফের গোয়েন্দারা। সে সময় তাকে পাওয়া না গেলেও, তার বাড়ি থেকে প্রচুর বিস্ফোরক বাজেয়াপ্ত করা হয়। সেই সময় থেকেই গা ঢাকা দিয়ে বেড়াচ্ছিল আব্দুল করিম। কখনও বিহার, কখনও ঝাড়খন্ড কখনও বা রাজ্যেই নিজের বিভিন্ন আত্মীয়ের বাড়িতে গা ঢাকা দিয়ে বেড়িয়েছে এই জঙ্গি।

বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার হাতে তার ছবি পৌঁছে যাওয়ায় লুকিয়ে থাকার জন্য চেহারায় আমূল পরিবর্তন এনেছিল করিম। আগে গোঁফ, দাড়ি রাখলেও পরবর্তীতে গোঁফ দাড়ি ছাড়া ঘোরাফেরা করত। চুলের ছাটও বদল করেছিল। আগে পাঞ্জাবি পড়ে ঘোরাফেরা করলেও পরবর্তীতে টি-শার্ট ও জামা পরে ঘুরে বেড়াত সে।

এসটিএফ সূত্রে খবর, যেএমবি জঙ্গি সংগঠনের ধুলিয়ান মডেলের মাথা ছিল আব্দুল করিম। এ রাজ্যে ধুলিয়ানকেই সামনে রেখে তারা সংগঠনের বিস্তার ঘটাতে চেয়েছিল। সেজন্য সংগঠন বিস্তারের দায়িত্বও ছিল আব্দুল করিমের উপর। কিন্তু বুদ্ধগয়া বিস্ফোরণ মামলার তদন্ত শুরু করার পর থেকে ধুলিয়ান মডিউলের একাধিক জঙ্গিকে গ্রেফতার করে এসটিএফ। তাতেই কোমর ভেঙে যায় সংগঠনের।

জেএমবির অন্যতম মাথা সালাউদ্দিন সালের সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগ ছিল আব্দুল করিমের। সালাউদ্দিন-সহ এই সংগঠনের আরও বেশ কয়েকজনকে রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় শেল্টার দিতে সাহায্য করেছে করিম।

পেশায় ট্রাক্টর চালক করিম চাষবাষের আড়ালেই সংগঠন বিস্তারের কাজ করত।

SUJOY PAL

Published by:Ananya Chakraborty
First published:

Tags: Bodh Gaya Blast, Mohammed Abdul Kashem, Special Task Force

পরবর্তী খবর