ডাক্তারদের গণ-ইস্তফা কল্যাণীর জেএনএম হাসপাতালে !

ডাক্তারদের গণ-ইস্তফা কল্যাণীর জেএনএম হাসপাতালে !
Photo Source: Collected
  • Share this:

#কল্যাণী: কল্যাণীর জেএনএম হাসপাতালে গণ-ইস্তফা চিকিৎসকদের! ইস্তফা দিলেন ৩৪জন চিকিৎসক। বন্ধ হাসপাতালের আউটডোর পরিষেবা। জরুরি বিভাগেও হাতেগোনা চিকিৎসক।

অবিলম্বে কাজ না-শুরু করলে বা পরিষেবা না-দিলে হস্টেল ছাড়তে হবে৷ এসএসকেএম-এ গিয়ে আন্দোলনরত ডাক্তারদের হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ মুখ্যমন্ত্রীর হুঁশিয়ারির পাল্টা হিসেবে, কল্যাণীর জেএনএম মেডিক্যাল কলেজের হস্টেল ছাড়তে শুরু করেন জুনিয়র ডাক্তার, ইন্টার্ন ও পড়ুয়ারাও ৷ এবার গণ-ইস্তফার পালা।

সোমবার রাতে জুনিয়র ডাক্তারদের সঙ্গে রোগীর পরিবারের সংঘর্ষে রণক্ষেত্রে পরিণত হয় এনআরএস হাসপাতাল। জখম জুনিয়র ডাক্তার পরিবহ মুখোপাধ্যায়। প্রতিবাদে মঙ্গলবার থেকে রাজ্যজুড়ে জুনিয়র ডাক্তারদের কর্মবিরতি। গত চার দিন ধরে স্তব্ধ রাজ্যের সরকারি চিকিৎসা পরিষেবা।

এনআরএস কাণ্ডের প্রতিবাদে ইতিমধ্যেই রাজ্যজুড়ে হাসপাতালগুলিতে শতাধিক চিকিৎসক ইস্তফা দিয়েছেন । আরজিকর মেডিক্যাল কলেজে এখনও পর্যন্ত ইস্তফা দিয়েছেন ৯৬ জন চিকিৎসক। ন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজের মোট ২৬ জন চিকিৎসক ইস্তফা দিয়েছেন । এসএসকেএম-এ ২০ জন চিকিৎসক ইস্তফা দিয়েছেন। গণ-ইস্তফা সিউড়ি হাসপাতাল ও সাগর দত্ত মেডিক্যালেও। সিউড়ি হাসপাতালে ইস্তফা দেন ৬৭ চিকিৎসক। গণ-ইস্তফা সাগর দত্তের ১৮ চিকিৎসকের।

আন্দোলনরত ছাত্ররা নিজেদের অবস্থানে অনড়। এই পরিস্থিতিতে পদত্যাগ করেন এনআরএস মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের অধ্যক্ষ শৈবাল কুমার মুখোপাধ্যায় এবং মেডিক্যাল সুপার কাম ভাইস প্রিন্সিপাল সৌরভ চট্টোপাধ্যায়। দুজনেরই পদত্যাগপত্রের বয়ান এক। সোমবার থেকে এই হাসপাতালে যে অচলাবস্থা চলছে তার সমাধানসূত্র বের করতে না পারায় দুঃখপ্রকাশ করে, বৃহস্পতিবার দু’জনে ইস্তফা দেন।

First published: June 15, 2019, 11:41 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर